মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

বাংলাদেশের উন্নয়নে সব সময় পাশে থাকবে চীন

প্রকাশিত : ২৫ মে ২০১৫
  • গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে লিউ ইয়ানদং
  • ছয়টি সমঝোতা স্মারক সই

স্টাফ রিপোর্টার ॥ চীনের উপ প্রধানমন্ত্রী (ভাইস প্রিমিয়ার) লিউ ইয়ানদং জানিয়েছেন, বাংলাদেশের উন্নয়নে সব সময় পাশে থাকবে চীন। আগামীতে ঢাকা ও বেজিংয়ের মধ্যে সম্পর্ক আরও জোরালো হবে। রবিবার গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে এক বৈঠকে তিনি এসব কথা বলেন।

চীনের উপ প্রধানমন্ত্রী লিউ ইয়ানদং রবিবার বিকেলে তিনদিনের সফরে ঢাকায় এসেছেন। চীনের সঙ্গে বাংলাদেশের বিদ্যমান কূটনৈতিক ও বাণিজ্যিক সম্পর্ক আরও জোরদারের লক্ষ্যে আলোচনা করতে এসেছেন দেশটির অন্যতম শীর্ষ এই রাজনীতিক।

ঢাকায় আসার পরে সন্ধ্যায় গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠকে মিলিত হন চীনের উপপ্রধানমন্ত্রী। এ সময় তিনি বাংলাদেশ ও চীনের মধ্যে সম্পর্ক আরও জোরালোর বিষয়ে আশা প্রকাশ করেন। রবিবার বিকেলে একটি বিশেষ বিমানযোগে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেন চীনের উপপ্রধানমন্ত্রী। বিমানবন্দরে তাকে স্বাগত জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী। লিউ ইয়ানদং ঢাকায় পৌঁছলে বিমানবন্দরে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বেজিংয়ে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ফজলুল করিম ও ঢাকায় নিযুক্ত চীনা রাষ্ট্রদূত মা মিং ছিয়াং।

আজ সোমবার সকালে জাতীয় জাদুঘরে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন তিনি। এছাড়া রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ, জাতীয় সংসদের স্পীকার শিরীন শারমিন চৌধুরী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সঙ্গে পৃথক বৈঠক হবে। চীনা উপপ্রধানমন্ত্রী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজিত দু’টি সেমিনারে অংশগ্রহণ করবেন বলে জানা গেছে। ঢাকা সফর শেষে মঙ্গলবার দুপুরে তিনি জাকার্তার উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করবেন। তিনি ২৬ থেকে ৩১ মে জাকার্তা সফর করবেন।

বাংলাদেশের কয়েকটি বড় প্রকল্পে সহযোগিতার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে চীন। গভীর সমুদ্রবন্দর, রেল, এক্সপ্রেসওয়ে, তথ্যপ্রযুক্তি, শিল্পাঞ্চল নির্মাণ এ ধরনের প্রকল্পে সহায়তার আগ্রহ প্রকাশ করেছে দেশটি। চীন বাংলাদেশের পায়রা সমুদ্রবন্দর, ঢাকা-আশুলিয়া এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে, চট্টগ্রামের দোহাজারী-রামু-গুমদুম পর্যন্ত দ্বৈতগেজ রেলপথ, ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলপথের জন্য কর্ডলাইন, পদ্মা সেতু থেকে যশোর পর্যন্ত রেলপথ, কর্ণফুলী নদীর তলদেশ দিয়ে টানেল, চট্টগ্রামে চীনা অর্থনৈতিক ও শিল্পাঞ্চল নির্মাণ, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে প্রযুক্তি খাতের উন্নয়ন, ঢাকা পাওয়ার ডেভেলপমেন্ট কোম্পানির (ডিপিডিসি) আওতাধীন এলাকায় বিদ্যুত ব্যবস্থার সম্প্রসারণ ও শক্তিশালীকরণ, ইস্টার্ন রিফাইনারি দ্বিতীয় ইউনিট স্থাপন ইত্যাদি প্রকল্পে সহায়তার প্রস্তাব দিয়েছে। এসব প্রকল্পে সহযোগিতার বিষয়ে দুই দেশের মধ্যে আলোচনা হতে পারে।

উল্লেখ্য, চীনের কোন উপপ্রধানমন্ত্রীর এটাই প্রথম বাংলাদেশ সফর। অবশ্য এ বছর বাংলাদেশের সঙ্গে চীনের কূটনৈতিক সম্পর্কের ৪০ বছর পূর্তির আয়োজনে দেশটির প্রধানমন্ত্রী লি কেকিয়াংয়ের ঢাকা সফরে আসার কথা রয়েছে।

উল্লেখ্য, লিউ ইয়ানদং ২০১৩ সালের গোড়ারদিকে চীনের স্টেট কাউন্সিলের উপপ্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পান। চীন সরকারের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ওই পদে মোট চার রাজনীতিক নিযুক্ত রয়েছেন। তবে সেখানে লিউ ইয়ানদংই একমাত্র নারী। ১৯৪৫ সালের নবেম্বরে জন্ম নেয়া এই রাজনীতিক ১৯৬৪ সাল থেকে রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত। তিনি চীনের কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির পলিটিক্যাল ব্যুরোর সদস্য। ‘রাজনৈতিক তত্ত্ব’ বিষয়ে উচ্চতর পড়াশোনা করা এই নারী রাজনীতিকের আইনের ওপরও ডিগ্রী রয়েছে।

প্রকাশিত : ২৫ মে ২০১৫

২৫/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: