আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

লাঠিয়াল বাহিনী চরের আতঙ্ক

প্রকাশিত : ২৩ মে ২০১৫

নদীর এপার ভেঙ্গে ওপার গড়ে, এইতো নদীর খেলা, সকাল বেলা বাদশা তুমি ফকির সন্ধ্যা বেলাÑ এ প্রবাদবাক্যের বাস্তব রূপ মিলেছে নদী বেষ্টিত এবং ভাঙ্গনকবলিত বরিশাল সদর উপজেলাসহ মুলাদী, মেহেন্দীগঞ্জ, হিজলা, বাকেরগঞ্জ, বাবুগঞ্জ ও গৌরনদী উপজেলায়। এসব উপজেলা ঘেঁষে রয়েছে উত্তাল মেঘনা, কালাবদর, জয়ন্তী, সন্ধ্যা, সুগন্ধ্যা, কীর্তনখোলা ও আড়িয়াল খাঁ নদী।

এসব নদীর তীরবর্তী একপাড়ের বাসিন্দাদের বেঁচে থাকার স্বপ্ন নদী ভাঙ্গনে গ্রাস করে নিলেও অপর পাড়ে জেগে ওঠা চরের জমি ভোগদখল করছেন স্থানীয় প্রভাবশালীরা। যারাওবা জেগে ওঠা চরের কিছু অংশ দখল করে মাথাগোঁজার ঠাঁইয়ের জন্য বসত ঘর নির্মাণ কিংবা পরিবারের দু’মুঠো আহারের জন্য চাষাবাদ শুরু করেছেন তাদেরও দখলবাজ প্রভাবশালীদের ভয়ে রাত কাটে চরম আতঙ্কে। এ নিয়ে মামলা ও লাঠিয়াল বাহিনীর হামলা নিত্যনৈমেত্তিক ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে। সরেজমিনে এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছেন ভুক্তভোগী চরাঞ্চলবাসী। মুলাদী উপজেলার প্রত্যন্ত চরাঞ্চল চরকালেখা ইউনিয়নের ভুক্তভোগীদের দেয়া তথ্যমতে, ইউনিয়নের উত্তর গাছুয়া গ্রামের ওপর দিয়ে বয়ে গেছে ভয়ঙ্কর জয়ন্তী নদী। ১৭ বছর পূর্বে নদীর ভয়াবহ ভাঙ্গনে সম্পূর্ণ নিশ্চিহ্ন করে গ্রামটি। ফলে নিঃস্ব হয়ে যায় ওই গ্রামের সহস্রাধিক পরিবার। যারমধ্যে আজো মাথা গোঁজার ঠাঁই খুঁজে পায়নি ওই গ্রামের তিন শতাধিক পরিবারের সদস্য। দীর্ঘদিন পর সেই নিশ্চিহ্ন গ্রামে ৫ বছর পূর্বে জেগে উঠেছে চর। অসহায়, নিঃস্ব মানুষদের জন্য সৃষ্টিকর্তার অপার মহিমা। জেগে ওঠা চরের মধ্যে ইতোমধ্যে বসতঘর উত্তোলন করে বসবাস করছেন নিঃস্ব কয়েকটি পরিবার। কিন্তু তাতে দেখা দিয়েছে চরম বিপত্তি। জেগে ওঠা চরের ওপর লোলুপ দৃষ্টি পড়ে পার্শ্ববর্তী গ্রামের প্রভাবশালী কতিপয় ভূমিদস্যুদের। তারা নিজস্ব লাঠিয়াল বাহিনীর মাধ্যমে চর দখলের জন্য একাধিকবার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়। ওইসব প্রভাবশালীদের বাঁধা দিতে গিয়ে তাদের নিজস্ব লাঠিয়াল বাহিনীর একাধিকবার হামলা ও মিথ্যে মামলার আসামি হয়ে দীর্ঘদিন আদালতের বারান্দায় ঘুরে বেড়াচ্ছেন ওই গ্রামের শিক্ষক, সমাজ সেবক, আ’লীগ নেতাসহ সাধারণ বাসিন্দারা। মাথা গোঁজার ঠাঁই খুঁজে পাওয়া জেগে ওঠা চরের সকল বয়সের বাসিন্দারা জীবন দিয়ে হলেও ভূমিদস্যুদের কবল থেকে চর রক্ষার জন্য লাঠিসোটা নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে পাহারা অব্যাহত রেখেছেন।

প্রকাশিত : ২৩ মে ২০১৫

২৩/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: