রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

জেসিকার চ্যালেঞ্জ রিও অলিম্পিক

প্রকাশিত : ২০ মে ২০১৫
জেসিকার চ্যালেঞ্জ রিও অলিম্পিক

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ দীর্ঘদিন পর ফিরেছেন ট্র্যাক এ্যান্ড ফিল্ডে। প্রায় দুই বছর মাতৃত্ব লাভের জন্য দূরে থেকেছেন সব ধরনের প্রতিযোগিতা থেকে। তবে গত সপ্তাহে আবার ফিরেছেন অলিম্পিক স্বর্ণজয়ী তারকা স্প্রিন্টার জেসিকা ইন্নিস হিল। ২৯ বছর বয়সী ইন্নিস দারুণভাবে ফিরে পেয়েছেন নিজেকে। ব্রিটিশ এ এ্যাথলেট গ্রেট সিটি গেমসে নেমেই ১০০ মিটার হার্ডেলসে হয়েছেন তৃতীয়। সময় নিয়েছেন ১৩.১৪ সেকেন্ড। বুঝিয়ে দিয়েছেন বেশ ভালভাবেই ফিরে আসছেন তিনি। এবারও আগামী অলিম্পিকে স্বর্ণ জয়ের স্বপ্নটাকে বাস্তব করতে চান। এর আগেই নিজের অন্যতম ইভেন্ট হেপ্টাথলনে ফিরছেন তিনি। চলতি মাসের শেষদিকে অস্ট্রিয়ার গোটজিসে হেপ্টাথলন প্রতিযোগিতায় অংশ নেবেন ইন্নিস। কারণ রিও অলিম্পিকে অংশ নেয়ার যোগ্যতা অর্জনের জন্য ৬২০০ পয়েন্ট অর্জন করতে হবে।

লন্ডনে ২০১২ অলিম্পিকে হেপ্টাথলনের স্বর্ণ জিতেছিলেন ইন্নিস। এরপর আর কোন প্রতিযোগিতায় অংশ নেননি। সব ধরনের প্রতিযোগিতা থেকে ২২ মাস ছিলেন পুরোপুরি বাইরে। এরপর নিজেকে ফিরে পাওয়ার জন্য নিভৃতে অনুশীলন চালিয়েছেন। মাঝে অংশ নিয়েছেন লন্ডন অলিম্পিক স্টেডিয়ামের বর্ষপূর্তির প্রতিযোগিতায়। সেখানে দারুণ করেছিলেন ইন্নিস ১৩.০৮ সেকেন্ড সময় নিয়ে শেষ করেছিলেন। আর গত সপ্তাহে ১০০ মিটার হার্ডেলসে তৃতীয় হওয়ার পরেও তাই দারুণ উৎফুল্ল তিনি। সেদিন তার সন্তান রেগিকে সঙ্গে করে নিয়ে এসেছিলেন। ফেরার লড়াইয়ে দারুণ অনুপ্রেরণা পেয়েছেন মোটামুটি একটা ছন্দ নিয়ে শেষ করার কারণে। এবার আরেকটি চ্যালেঞ্জ তার জন্য। হেপ্টাথলনে কিছু একটা করতে হবে। কারণ রিও ডি জেনিরো অলিম্পিকে স্বর্ণপদক ধরে রাখতে চাইলে এখন থেকেই নিজেকে একটা ছন্দে ফিরিয়ে আনা জরুরী। সর্বোচ্চ সাফল্য পেতেই হবে বিষয়টা এমন নয়। ইন্নিস মনোযোগী অন্তত স্বাভাবিক অবস্থায় ফেরার প্রতি। কারণ মাঝে পায়ের ইনজুরির সঙ্গেও লড়েছেন। সেই ইনজুরিটা এখনও পুরোপুরি কাটিয়ে উঠতে পারেননি। এরপরও গত রবিবার লাফবোরোতে লংজাম্প ও বর্শা নিক্ষেপে অংশ নিয়েছেন। সেরা সাফল্য না পেলেও ফিরে পাওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন ভালভাবেই। এবার কোন বড় প্রতিযোগিতায় নেমে নিজের সঠিক অবস্থা জানার সুযোগ খুঁজছেন। সে সুযোগটা আসছে অচিরেই।

গোটজিসে দুই দিনব্যাপী প্রতিযোগিতায় শুরু হবে ৩০ মে। সেখানে অংশ নেয়ার জন্য এখন থেকেই উন্মুখ তিনি। এ বিষয়ে ইন্নিস বলেন, ‘লাফবোরোতে গত রবিবার অংশ নেয়ার পর আমি বেশ ভাল বোধ করছি। আমার পায়ের অবস্থাটাও তেমন খারাপ মনে হচ্ছে না। এ বিষয়টাই আমাকে আরও অনুপ্রাণিত করছে।’ তবে আগামী বছর রিও অলিম্পিকে অংশ নেয়ার জন্য অন্তত ৬২০০ পয়েন্ট অর্জন করতে হবে ইন্নিসকে। সেটা করতে না পারলে রিও অলিম্পিকে স্বর্ণপদক ধরে রাখার লড়াইয়ে নামতেই পারবেন না। এ বিষয়ে ইন্নিস বলেন, ‘গত কয়েক সপ্তাহে আমি এ ইভেন্টে যে ফলাফল পেয়েছি সেটা খুবই অনুপ্রেরণার। আমি বিশ্বাস করি এ নৈপুণ্য হেপ্টাথলনে ভাল করার জন্য যথেষ্ট কার্যকর ভূমিকা রাখবে। আমার পুরোপুরি বিশ্বাস আছে যত পয়েন্টের প্রয়োজন সেটা আমি অর্জন করে রিও-তে যেতে পারব। আমি সেটা যদি মৌসুমের গোড়ার দিকেই অর্জন করতে পারি সেক্ষেত্রে সব ধরনের চাপ থেকে মুক্ত হতে পারব। কিন্তু এখন পর্যন্ত যতটা দেখতে পাচ্ছি সবকিছু ইতিবাচক মনে হচ্ছে। সুতরাং আমি গোটজিসে যাওয়ার পরিকল্পনা করছি এবং সেখানে আমার সর্বোচ্চ সেরাটাই দেয়ার প্রচেষ্টা চালাব।’

প্রকাশিত : ২০ মে ২০১৫

২০/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: