আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

পণ্য সরবরাহ চাহিদার তুলনায় বেশি, দাম বাড়ার কোন কারণ নেই

প্রকাশিত : ২০ মে ২০১৫
  • ব্যবসায়ী বৈঠকে বাণিজ্যমন্ত্রী

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ রমজান তো বটেই, সারাবছর দ্রব্যমূল্য সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে থাকবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। তিনি বলেন, পণ্য সরবরাহ ও মজুদ চাহিদার চেয়ে বেশি রয়েছে। তাই গত বছরের মতো এবারও রমজানে বাজার স্থিতিশীল থাকবে। এছাড়া দ্রব্যমূল নিয়ে ব্যবসায়ীদের প্রতিও তার আস্থা আছে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী। তাই আগামী রমজানে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম বাড়বে না। এক বছর আগে ব্যবসায়ীরা পণ্যের দাম না বাড়ানোর যে অঙ্গীকার করেছিলেন তা রক্ষা করেছেন বলেই মন্ত্রী এমনটা মনে করছেন বলে জানান।

মঙ্গলবার সচিবালয়ে পবিত্র রমজান মাস সামনে রেখে দ্রব্যমূল্য ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের সরবরাহ পরিস্থিতি নিয়ে উৎপাদনকারী, পাইকারি বিক্রেতা ও পরিশোধনকারীদের সঙ্গে মন্ত্রীর বৈঠক হয়। ওই বৈঠকে তিনি এসব কথা বলেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী বাংলাদেশ ব্যাংক ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) তথ্য দিয়ে বলেন, প্রতিটি পণ্যের সরবরাহ চাহিদার তুলনায় বেশি আছে। তাই দাম বাড়ার কোন কারণ নেই। সাংবাদিকেরা মন্ত্রীর কাছে বোতলজাত সয়াবিন তেল ও খোলা সয়াবিন তেলের দামের পার্থক্য ২০ টাকা হওয়ার কারণ জানতে চান। এ সময় তিনি বলেন, এটা তার জানা নেই। পেঁয়াজের দাম ২৮ টাকা থেকে বেড়ে হঠাৎ ৪৮ টাকা কেন হলো জানতে চাইলে মন্ত্রী ব্যবসায়ীদের কাছে কারণ জানতে চান। এ সময় মৌলভী বাজার ব্যবসায়ী সমিতির নেতা গোলাম মওলা বলেন, বৃষ্টিপাতের কারণে পেঁয়াজের দামের ওপর প্রভাব পড়েছে।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, বর্তমান সরকারের সময়োপযোগী পদক্ষেপ এবং সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার কারণে বিগত বছরেও কোন নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য বৃদ্ধি হয়নি এবং বাজারে সরবরাহের ঘাটতি ছিল না। এ বছরও সরকার প্রয়োজনীয় সকল পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। নিত্য প্রয়োজনীয় কোন পণ্যের ঘাটতি হবে না এবং কোন পণ্যের মূল্য বৃদ্ধি পাবে না।

তিনি বলেন, আসন্ন পবিত্র রমজান মাস সামনে রেখে ভোজ্যতেল, চিনি, মসুর ডাল, ছোলা, খেজুর, পেঁয়াজ এবং রসুনের সরবরাহ বাড়াতে সরবরাহের প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। দেশের আমদানিকারক ও ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি টিসিবি পর্যাপ্ত প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। দেশব্যাপী ৩ হাজার ৫৪ জন নির্ধারিত ডিলারের পাশাপাশি ১৭৪টি ট্রাকের মাধ্যমে পবিত্র শবে-বরাতের দিন থেকে শুরু করে রমজান মাসব্যাপী ন্যায্যমূল্যে পর্যাপ্ত পরিমাণে তেল, চিনি, ছোলা, মসুর ডাল ও খেজুর বিক্রয় করবে। যেকোন সঙ্কট মোকাবেলার জন্য টিসিবি প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, বিএনপি নেত্রী দেশের উন্নয়ন কার্যক্রম এবং দেশের মানুষের জীবনযাত্রা বাধাগ্রস্ত করার উদ্দেশে হরতাল অবরোধের নামে দেশের মানুষকে জিম্মি করার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে নিজের ভুল বুঝতে পেরে ঘবে ফিরে গেছেন।

বাজারে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের সরবরাহ চেইন বন্ধ করার চেষ্টা করেছেন, কোন লাভ হয়নি। বর্তমান সরকার বিদ্যুত সমস্যার সমাধান করেছে। দেশের মানুষের মাঝে এখন আর ফরমালিন আতঙ্ক নেই। সরকার দক্ষতার সঙ্গে সফলভাবে এ সকল সমস্যার সমাধান করেছে। ওই সভায় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব হেদায়েতুল্লাহ আল মামুন, সরকারের সচিব এবং ট্যারিফ কমিশনের চেয়ারম্যান মোঃ আজিজুর রহমান, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব এটিএম মুর্তজা রেজা চৌধুরী, এনবিআর-এর সদস্য হুসেইন আহমেদ, টিসিবি-এর চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সারোয়ার জাহান, সিটি গ্রুপের জেনারেল ম্যানেজার বিশ^জিৎ সাহা, মেঘনা গ্রুপের উপদেষ্টা এম এইচ মুন্সী, এস আলম গ্রুপের সিনিয়র মহা-ব্যবস্থাপক কাজী সালাহ উদ্দিন আহমেদ, বাংলাদেশ ডাল সমিতির সভাপতি শফি মাহমুদসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

প্রকাশিত : ২০ মে ২০১৫

২০/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: