মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

ভেবে কথা বলুন

প্রকাশিত : ১৮ মে ২০১৫

অফিশিয়াল একটি মিটিং চলছে। স্টাফদের মতবিনিময় এবং প্রতিষ্ঠানের ভবিষ্যত পরিকল্পনা নির্ধারণী মিটিংয়ে একেক জন একেকভাবে নিজেদের মন্তব্য দিয়ে যাচ্ছেন। এরই মধ্যে হুট করে নাজিম তার পাশের কলিগের কথা টেনে নিয়ে বললেন, আকবরের কথা শেষ হলে আমি কিছু বলতে চাই। এতে হতচকিয়ে যায় অফিসের বসসহ অন্যান্য স্টাফরা। রীতিমতো সবাই অবাক নাজিম এতগুলো মানুষের সামনে এভাবে এপ্রোচ কেন করল? অথচ নাজিমের কোন বোধোদয়ই হচ্ছে না। তার ভাষ্য মতে আমি কিছু বলতে চাওয়ার অনুমতি চেয়েছি এতে বেয়াদবি হলো কোথায়।

সত্যিকার অর্থেই কিছু বলতে চাওয়ার জন্য অনুমতি নেয়াটা বেয়াদবি নয়। তবে সেই অনুমতি নেয়ার ক্ষেত্রে কিছু সতর্কতা কিংবা অন্যভাবে বলতে গেলে স্মার্টনেসের পরিচয় দেয়া উচিত। আগে বুঝে নিতে হবে পরিবেশ পরিস্থিতি, ভালভাবে খেয়াল করতে কারা কারা উপস্থিত রয়েছে এবং কে কতটা গুরুত্ব বহন করে। যেহেতু নাজিমের উর্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত সেখানে কখনই উচিত হবে না অন্যের কথা টেনে নিয়ে নিজের মতো করে উপস্থাপন করা। অন্যের কথা শেষ হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। কথা শেষ হওয়ার পর যদি মনে হয় নিজের কিছু বলার আছে সে ক্ষেত্রে মিটিংয়ের সঞ্চালকের অনুমতিক্রমে নিজের কথা উপস্থাপন করা উচিত। সে ক্ষেত্রে নাজিম আকবরের কথা শেষ হলে আমি কিছু বলতে চাই না বলে যখন আকবরের কথা শেষ তখন তার বলা উচিত ছিল, স্যার অনুমতি দিলে এ ব্যাপারে আমি কিছু বলতে চাই। অনুমতি পাওয়ার পর স্যারকে সহ উপস্থিত সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে কথা বলা শুরু করা উচিত। মিটিংয়ে অবশ্যই খেয়াল রাখা উচিত নিজের মতামত ছাড়া অন্যের দোষারোপ করা যাবে না। নেগেটিভ কথাগুলোও নেগেটিভলি উপস্থাপন করা যাবে না। মনে রাখতে হবে উপস্থাপন প্রক্রিয়া যার যতটা স্মার্ট সে ততবেশি সবার নজড় কাড়তে সক্ষম হয়। ‘কথায় কথা বাড়ে’ খুব প্রচলিত একটি সংলাপ। আবার মজা করে বলা হয় কেউ কেউ নাকি কথা বলেই একশ’ চুরি ভাঙ্গে। আর জাতির দিক দিয়ে বললে, বাঙালী কত কথা বলেরে... মনের যত ভাব, আনন্দ, ভালবাসা, দুঃখ, কষ্ট সবকিছুই মানুষ প্রকাশ করে এই কথা দিয়ে। কিন্তু আমরা অনেক সময় এই কথাতেই ভুল করে ফেলি। যেখানে যে কথা বলা উপযোগী হবে না সেখানেই সে কথা অজান্তেই বলে ফেলি। তাতে হয়ত আমাদের কাছের মানুষের মনে কষ্ট দেয়া হয়ে যায়। কথা এমনই এক বিষয় যা একবার মুখ থেকে বের হয়ে গেলে ফেরত আনা যায় না। যা বলা হয়েছে তাই রয়ে যায়। হয়ত বা সেই কথাই হূল হয়ে ফোটে কারও হৃদয়ে। কিন্তু তখন আর কিছুই করার থাকে না। তাই কোন কথা বলার আগে ভেবে নিন। যে উদ্দেশ্যে আপনি কথাটা বলছেন তা কতটা উপযোগী হচ্ছে। একটু ঠা-া মাথায় ভেবে তারপর কথা বলুন। অনেক সময় আপনার কথার অন্যরকম মানে দাঁড়ায়। আপনি হয়ত যা বোঝাতে চাচ্ছেন তার বিপরীত। সেক্ষেত্রে গুছিয়ে কথা বলাটা খুব জরুরী। আমরা অনেকেই কথা বলার সময় উত্তেজিত হয়ে যাই। উত্তেজিত হয়ে কিছু বলার আগে তার ফলটা ভেবে নিন। আপনার মুখনিসৃত ছোট্ট একটা কথা হয়ত অপরজনের পক্ষে পাহাড় সমান ভারি হতে পারে। কারণ এই কথায় হয়ত আপনার সুন্দর সম্পর্কের জাল ছিঁড়ে যেতে পারে। কথা বলার আগে অবস্থার গতি প্রকৃতি বুঝে নিন। যে কোন নীরব অবস্থায় আপনি উগ্র কোন কথা বলতে পারেন না। তাহলে পরিস্থিতি মন্থর হয়ে যেতে পারে। আপনি ভাবতেও পারবেন না, অবাঞ্ছিত কোন কথা আপনাকে কতটা নিচে নামিয়ে দিতে পারে। কথা শুধু কথা নয় মনের খোরাকও মেটায়। কারও হাতে হাত রেখে ওয়াদা দেয়া হয় এই কথার মাধ্যমে, আবার ভাল কোন কাজের শপথও নেয়া হয় কথা দিয়ে। আর তাই কথা বলার প্রতিও আমাদের যতœবান হওয়াটা জরুরী। গুছিয়ে সুন্দর করে কথা বলার গুণ আপনার না থাকতেই পারে। কিন্তু সঠিক পরিবেশে মানিয়ে কথা বলতে আপনাকে বেগ পেতে হবে না। আর তাতেই আপনার ব্যক্তিত্ব ফুটে উঠবে।

শারমিন সুলতানা মিম

ছবি : লঙ্কেশর রায়

মডেল : সামী, সুজিত

দোলন ও নীহারিকা

প্রকাশিত : ১৮ মে ২০১৫

১৮/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: