মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

এবার ড. জাফর ইকবালকে গ্রেফতার দাবি হেফাজত নেতার

প্রকাশিত : ১৮ মে ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার ॥ এবার বিতর্কিত হেফাজত ও ইসলামী ঐক্যজোট নেতা মুফতি ফয়জুল্লাহ শিক্ষাবিদ ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালকে গ্রেফতারের দাবি তোলার ঔদ্ধত্য দেখিয়েছে। একই সঙ্গে জাফর ইকবালকে বিশিষ্ট নাস্তিক-মুরতাদদের গুরু অভিহিত করে উগ্রবাদী এ হেফাজত নেতা বলেছে, জাফর ইকবালদের গ্রেফতার করে বিচারের মুখোমুখি করতে হবে।

রবিবার এক বিবৃতিতে ৫ মে’র সেই হেফাজতী তা-রের অন্যতম নেতা মুফতি ফয়জুল্লাহ এসব ঔদ্ধত্যপূর্ণ বক্তব্য দিয়েছেন। জঙ্গীবাদীদের হাতে একের পর এক প্রগতিশীল তরুণকে হত্যার প্রতিবাদ জানিয়ে সমাবেশে বক্তব্য দেয়ার পর পরই বিতর্কিত হেফাজত নেতার পক্ষ থেকে জাফর ইবকালসহ বুদ্ধজীবীদের বিরুদ্ধে এমন অবস্থান প্রকাশ পেল। মুফতি ফয়জুল্লাহ বলেন, ইসলামবিদ্বেষীরা ইসলাম ও মুসলমানকে অশ্লীল বাক্যবাণে জর্জরিত করে উম্মাহবিরোধী উগ্রবাদ ছড়িয়ে দিয়ে ও নাস্তিক্যবাদী জঙ্গী অপতৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে। তারা ইসলাম ও ইসলামী দর্শনকে উগ্রপন্থায় আক্রমণ করে মানুষের হƒদয় চূর্ণ-বিচূর্ণ করে দিয়ে বিশ্বাসীদের মানবাধিকার লঙ্ঘন করছে। তিনি আরও বলেন, আমরা দেশে কোন অনভিপ্রেত ঘটনা দেখতে চাই না। ৯২ ভাগ মানুষের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতকারী, আল্লাহ ও রাসূলের অবমাননাকারী কুলাঙ্গারদের যদি শান্তিপ্রিয় মানুষ প্রতিরোধ করতো- তবে আল্লাহদ্রোহী মুরতাদদের জন্য আল্লাহর জমিন হারাম হয়ে যেত। তিনি বলেন, নাস্তিক মুরতাদদের বিরুদ্ধে ইসলামী বিধান অনুযায়ী সর্বোচ্চ শাস্তির আইন না করা হলে, নাস্তিক্যবাদী জঙ্গীদের অব্যাহত আক্রমণের কারণে ধর্মপ্রাণ মানুষের মনে সৃষ্ট ক্ষোভ ও অসন্তোষ বন্ধ করা সম্ভব হবে না ।

লগার অনন্ত বিজয় দাশ হত্যাকাণ্ডের জন্য সরকারের ব্যর্থতাকে দায়ী করার পাশাপাশি সজীব ওয়াজেদ জয়ের সাম্প্রতিক মন্তব্য মৌলবাদীদের উৎসাহিত করেছে বলে মন্তব্য করেছেন অধ্যাপক মুহম্মদ জাফর ইকবাল। গত সপ্তাহে সিলেটে প্রগতিশীল লেখক গণজাগরণ মঞ্চের সংগঠন ব্লগার অনন্ত বিজয় দাশকে কুপিয়ে হত্যার একদিন পর তার প্রতিবাদে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে এক মানববন্ধন কর্মসূচীতে বক্তব্য রাখেন জনপ্রিয় লেখক শিক্ষাবিদ অধ্যাপক জাফর ইকবাল। যেখানে জাফর ইকবাল জঙ্গীবাদ দমনে বরং সরকারেরই সমালোচনা করেন।

প্রকাশিত : ১৮ মে ২০১৫

১৮/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: