আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

বর্ষবরণ উৎসবে যৌন হয়রানি ॥ চিহ্নিত আট জন

প্রকাশিত : ১৮ মে ২০১৫
বর্ষবরণ উৎসবে যৌন হয়রানি ॥ চিহ্নিত আট জন
  • ধরিয়ে দিলে এক লাখ টাকা করে পুরস্কার ঘোষণা আইজির, তথ্যদাতার পরিচয় গোপন রাখা হবে

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকায় যৌন হয়রানির ঘটনায় ক্লোজড সার্কিট ক্যামেরার ভিডিও দেখে ৮ জনকে চিহ্নিত করেছে পুলিশ। শনাক্ত হলেও তারা কেউ গ্রেফতার হয়নি। ধরিয়ে দিলে প্রত্যেকের জন্য ১ লাখ টাকা করে পুরস্কারেরও ঘোষণা দিয়েছে পুলিশের আইজি একেএম শহীদুল হক। রবিবার পুলিশ সদর দফতরে এক সংবাদ সম্মেলনে ৮ জন চিহ্নিতকরণ ও পুরস্কার ঘোষণা দিয়ে যৌন হয়রানিকারীদের পরিচয় সম্পর্কে নিশ্চিত হতে না পেরে পুলিশের পক্ষ থেকে সবার সহযোগিতা চেয়েছেন তিনি। আইজি বলেন, আগামী ৩ জুন থেকে রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে নিবন্ধনবিহীন মোটরসাইকেল ধরতে অভিযান শুরু হবে। দেশের বিভিন্ন স্থানে মানবপাচারের কয়েকটি সিন্ডিকেট আছে যার মধ্যে দুই-তিনটি সিন্ডিকেট শনাক্ত করার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, মানবপাচার সিন্ডিকেটের সদস্যদের আটক করতে পুলিশী অভিযান চালানো হবে। সিন্ডিকেটের মাধ্যমে পাচার হওয়াদের দেশে ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে জানান তিনি।

গত পহেলা বৈশাখে বর্ষবরণ উৎসবের সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিসংলগ্ন সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের ফটকে ভিড়ের মধ্যে নারীদের যৌন হয়রানি করে এক দল উচ্ছৃঙ্খল ও উগ্রপন্থী যুবক। এ ঘটনায় এর আগে বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকায় যৌন হয়রানির সঙ্গে জড়িত ১০-১২ জনকে ভিডিও ফুটেজের মাধ্যমে শনাক্ত করেছে বলে জানায় ডিএমপির মুখপাত্র মনিরুল ইসলাম। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে তাৎক্ষণিকভাবে পুলিশের নায়েক আনিসকে সাময়িক বরখাস্ত করার কথা নিশ্চিত করেন পুলিশের মিডিয়া বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (ডিসি) এস এম জাহাঙ্গীর আলম সরকার। এ ঘটনা কেন্দ্র করে ছাত্র ইউনিয়নের ডিএমপি কার্যালয় ঘেরাও কর্মসূচীতে পুলিশের লাঠিপেটাসহ লাঞ্ছিত করার ঘটনা ঘটে। ডিএমপি কার্যালয়ের ঘটনাটি কেন অবৈধ হবে না এবং জড়িতের বিরুদ্ধে কেন আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে না, তা জানতে এবং আগামী ১৪ জুন এই প্রতিবেদন দিতে স্বরাষ্ট্র সচিব, পুলিশের আইজিসহ সংশ্লিষ্টদের প্রতি রুল জারি করেছে হাইকোর্ট বেঞ্চ। পুলিশ সদর দফতর ও ডিএমপি এ ঘটনায় দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করে তদন্ত শুরু করে। সাত দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে ডিএমপির তদন্ত কমিটিকে। তদন্ত কমিটি ঘটনার জন্য দায়ী ও দোষী ব্যক্তিদের খুঁজে বের করার জন্য সাক্ষ্য, প্রমাণ, আলামত সংগ্রহ, জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে।

পুলিশ আইজি শহীদুল হক সংবাদ সম্মেলনে জানান, ঢাবির টিএসসি যৌন হয়রানির ওই ঘটনার ছবি ও ভিডিও দেখেই ৮ জনকে তারা চিহ্নিত করেছেন। তাদের পরিচয় শনাক্ত করতে যারা সহায়তা করবে তাদের পরিচয় গোপন রাখা হবে। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন পুলিশের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক মোখলেছুর রহমান, মাইনুর রহমান চৌধুরী, মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার মনিরুল ইসলাম প্রমুখ।

যৌন নিপীড়কদের চিহ্নিত করতে ঘটনাস্থলে উপস্থিত কোন ব্যক্তির কাছে কোন ছবি অথবা ঘটনার সঙ্গে জড়িত কোন ব্যক্তির পরিচয় বা কোন ধরনের তথ্য থাকলে একটি নির্ধারিত মোবাইল নম্বরে জানাতে অনুরোধ জানানো হয়। কিন্তু নিপীড়নের শিকার কেউ ওই নম্বরে ফোন করে ঘটনার বিষয়ে কোন তথ্য তো দেননি।

পহেলা বৈশাখের উৎসবের সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি সংলগ্ন সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের ফটকে ভিড়ের মধ্যে এক দল যুবক নারীদের যৌন হয়রানির ঘটনায় বাধা দিতে গিয়ে আহত হন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি লিটন নন্দীসহ কয়েকজন। ঘটনার সময়ে চার নিপীড়ককে ধরে এসআই আশরাফসহ দুই পুলিশ কর্মকর্তার কাছে দেয়া হলেও পরে তাদের ছেড়ে দেয়া হয় বলে অভিযোগ করেন ছাত্র ইউনিয়ন নেতা লিটন। ওই ঘটনায় ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়ে পুলিশ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এক মাসের বেশি সময় গত হলেও এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি।

মানবপাচার প্রসঙ্গ ॥ দেশের বিভিন্ন স্থানে মানবপাচারের কয়েকটি সিন্ডিকেট আছে এবং এগুলোর মধ্যে দুই-তিনটি সিন্ডিকেট শনাক্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশের আইজি একেএম শহীদুল হক। তিনি জানান, তাদের আটক করতে পুলিশ অভিযান চালাবে। এসব সিন্ডিকেটের মাধ্যমে পাচার হওয়াদের দেশে ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। রবিবার দুপুরে রাজধানীর পুলিশ সদর দফতরে এক সংবাদ সম্মেলনে আইজি শহীদুল হক এ তথ্য জানান তিনি। তিনি বলেন, পুলিশ কাজ করে তথ্য, প্রমাণ ও সাক্ষীর জবানবন্দীর ভিত্তিতে। প্রয়োজনীয় তথ্য-প্রমাণ পেলে মানবপাচারকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। সাতক্ষীরা, সিরাজগঞ্জ, চট্টগ্রাম, বাঁশখালি, ঝিনাইদহসহ দেশের কয়েকটি এলাকায় মানবপাচারকারী সিন্ডিকেটের সদস্যরা সক্রিয়ভাবে কাজ করছে। মানবপাচারকারী সিন্ডিকেটের মাধ্যমে পাচার হওয়াদের দেশে ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। মানবপাচার ও পাচারকারীদের কূটকৌশল সম্পর্কে জনগণকে সচেতন হতে হবে বলে জানান পুলিশের আইজি।

নিবন্ধনহীন মোটরসাইকেলের বিরুদ্ধে অভিযান ॥ আগামী ৩ জুন সারাদেশে নিবন্ধনবিহীন মোটরসাইকেল ধরতে অভিযান শুরু হবে বলে জানিয়েছেন পুলিশের মহাপরিদর্শক একেএম শহীদুল হক। রবিবার এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, আগামী ১৫ দিনের মধ্যে মোটরসাইকেল নিবন্ধনের সময় দেয়া হলো। পুলিশের অভিযান শুরু হলে কেউ নিবন্ধনের কাগজ দেখাতে না পারলেও বিআরটিএতে নিবন্ধনের টাকা জমা দেয়ার রসিদ দেখালেও চলবে জানান তিনি। তিনি জানান, কোন কাগজ দেখাতে না পারলে সেই মোটরসাইকেল পুলিশ নিজেদের হেফাজতে নেবে। যতদিন না বাহক কাগজ দেখাতে পারেন ততদিন বাহনটি পুলিশের কাছে থাকবে।

ব্লগারদের নিরাপত্তা ॥ সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের উত্তরে পুলিশের আইজি শহীদুল হক বলেন, মুক্তমনা লেখক ও ব্লগারদের হত্যাকা-ের জন্য দায়ী জঙ্গী সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিমসহ জঙ্গী সংগঠনগুলোর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। মুক্তমনা লেখক ও ব্লগারদের নিরাপত্তার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

প্রকাশিত : ১৮ মে ২০১৫

১৮/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: