মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

নীলফামারী পটিয়ায় ॥ ৪১ ঘর ১৪ দোকান পুড়ে ছাই

প্রকাশিত : ১৮ মে ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার, নীলফামারী ॥ নীলফামারী সদরে পৃথক দুই অগ্নিকা-ে অর্ধ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। রবিবার সকাল সাড়ে নয়টায় প্রথম অগ্নিকা- ঘটে সদর উপজেলার কুন্দপুকুর ইউনিয়নের সুটিপাড়ার পূর্ব বকসিপাড়া গ্রামে। সেখানে ১৮ পরিবারের ৪১ ঘর পুড়ে ছাই হয়। একই দিন দুপুরে দিকে অপর অগ্নিকা-ের ঘটনাটি ঘটে সদর উপজেলার চাপড়া সমরমজামী ইউনিয়নের বাবড়িঝাড় কাচারী বাজারে। সেখানে পুড়ে যায় ১৪টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান।

জানা যায়, কুন্দপুকুর ইউনিয়নের সুটিপাড়া পূর্ব বকসিপাড়া গ্রামের জাহিদুলের রান্নাঘরের চুলা থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়ে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় গ্রামের ১৮ পরিবারের ৪১ ঘর, ঘরে রক্ষিত আসবাবপত্র, ধান, চাল, আলু, সরিষা, ভুট্টা, নগদ এক লাখ সত্তর হাজার টাকাসহ সর্বস্ব পুড়ে যায়। আগুন নিয়ন্ত্রণে সময়ের মধ্যে নীলফামারী দমকল বাহিনীর এলাকায় এলেও সঙ্কুচিত রাস্তার কারণে ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নেভাতে বেগ পেতে হয়। ইউপি চেয়ারম্যান শাহজাহান চৌধুরী বলেন অগ্নিকা-ে এই গ্রামে ৪০ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। আমার পক্ষ থেকে দুপুরে ক্ষতিগ্রস্তদের খাবার ব্যবস্থা ও প্রতি পরিবারের মাঝে ১০ কেজি করে চাল, আধা কেজি করে ডাল, আলু, লবণ, ভোজ্যতেল প্রদান করা হয়েছে। অপর অগ্নিকা-ের ঘটনাটি ঘটে জেলা সদরের চাপড়া সরমজানি ইউনিয়নের বাবড়িঝাড় কাচারী বাজারে। রবিবার বেলা ১২টার দিকে ওই বাজারের টিভির মেকার লুৎফর রহমানের দোকানে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। বাজারের সার ও কীটনাশক ব্যবসায়ী আমিনুর রহমান বলেন, অগ্নিকা-ে বাজারের ১৪ দোকানঘর, রক্ষিত মালামাল পুড়ে ১১ লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়। নীলফামারী দমকলবাহিনীর একটি ইউনিট এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। নিজস্ব সংবাদদাতা,পটিয়া থেকে জানান, চট্টগ্রামের পটিয়ায় শনিবার রাতে অগ্নিকা-ে ১০ বসত ঘর পুড়ে ছাই হয়েছে। এতে প্রায় ২০ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। উপজেলার হাবিলাসদ্বীপ ইউনিয়নের হুলাইন গ্রামের মনির আহমদ চৌধুরীর বাড়িতে এই ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, রান্নাঘরের চুলা থেকে সৃষ্ট আগুনে ওই এলাকার মনির আহমদ চৌধুরীর বাড়ির মো. ইউছুপ, এ্যাডভোকেট নুরুল হুদা, মুন্সি, মো. সৈয়দ, মো. নাছির মাস্টার, মো. আনোয়ার, মো. আবু তাহের, মো. সাগর, আমিন শরীফ, মো. শরিফের বসতঘর পুড়ে ছাই হয়। খবর পেয়ে পটিয়া ফায়ার সার্ভিসের একটি টিম ও স্থানীয়রা মিলে প্রায় এক ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

প্রকাশিত : ১৮ মে ২০১৫

১৮/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: