কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

এবার আনসারুল্লাহ বাংলা টিম নিষিদ্ধ করার প্রস্তাব

প্রকাশিত : ১৭ মে ২০১৫

শংকর কুমার দে ॥ উগ্র মৌলবাদী জঙ্গী সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিমকে নিষিদ্ধ করার প্রস্তাব দেয়া হয়েছে সরকারকে। একের পর এক মুক্তমনা লেখক ও ব্লগার হত্যার দায় স্বীকার করার কারণে পুলিশের পক্ষ থেকে জঙ্গী সংগঠনটি নিষিদ্ধ করার প্রস্তাব করা হয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে। এ সংক্রাস্ত প্রস্তাব স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে বলে সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) যুগ্ম কমিশনার মনিরুল ইসলাম। মুক্তমনা ব্লগের প্রতিষ্ঠাতা বিজ্ঞান মনস্ক লেখক ড. অভিজিত রায়, ওয়াশিকুর রহমান বাবু ও সর্বশেষ অনন্ত বিজয় দাশ হত্যাকা-ের পর দায় স্বীকার করে এ জঙ্গী সংগঠনটি। নাশকতা ও ধ্বংসাত্মক কার্যকলাপ চালানোর অভিযোগে এ পর্যন্ত উগ্র মৌলবাদী পাঁচটি জঙ্গী সংগঠনকে নিষিদ্ধ করেছে সরকার। আনসারুল্লাহ বাংলা টিমকে নিষিদ্ধ করার প্রস্তাব করার আগেই যে পাঁচ জঙ্গী সংগঠনকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে তা হচ্ছে, জামাআ’তুল মুজাহিদীন বাংলাদেশ (জেএমবি), জাগ্রত মুসলিম জনতা (জেএমজেবি), হরকত-উল-জিহাদ (হুজি), শাহাদাত-ই-আল হিকমা, হিযবুত তাহ্্রীর। হিযবুত তাহ্্রীর নিষিদ্ধ হওয়ার পর তাদের জঙ্গীরাই যোগ দেন আনসারুল্লাহ বাংলা টিমে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে এ খবর জানা গেছে।

সূত্র জানান, আন্তর্জাতিক সশস্ত্র গোষ্ঠী আল কায়দার একটি ঘনিষ্ঠ সংগঠন আনসারউল্লাহ বাংলা টিম। আল কায়দার যাবতীয় মতাদর্শকে অনুসরণ করে তারা। আনসারুল্লাহ বাংলা টিম দেশে সবগুলো জঙ্গী সংগঠনের মুখপাত্র হিসেবে কাজ করছে। বিভিন্ন জঙ্গী সংগঠনের জঙ্গীরা আনসারুল্লাহর নাম ধারণ করে সামরিক প্রশিক্ষণ নিচ্ছে। পাহাড়ী এবং নির্জন এলাকায় তাদের প্রশিক্ষণও হয় এই সংগঠনের নামে।

গোয়েন্দা কর্মকর্তা মনিরুল জানান, প্রকাশ্যে সাংগঠনিকভাবে তৎপরতা চালায় না আনসারুল্লাহ বাংলা টিম। কিন্তু নিষিদ্ধ হলে জঙ্গী সংগঠনটির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বাড়তি কিছু সুবিধা হবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর। কোনও ব্যক্তির ধর্মীয় মতাদর্শ নিয়ে দ্বিমত হলেই নাস্তিক আখ্যায়িত করে হত্যার পরিকল্পনা করে আনসারুল্লাহ বাংলা টিম। এই জঙ্গী সংগঠনটি ছোট-ছোট সিøপার সেল গঠন করে তালিকাভুক্ত মুক্তমনা বিজ্ঞানমনস্ক লেখক ও ব্লগারদের হত্যার কার্যক্রম বাস্তবায়নে সক্রিয় হয়ে ওঠে। এই জঙ্গী সংগঠনটি বাংলাদেশের সংস্কৃতির চরম বিরোধিতা করে। পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠানকে তারা মনে করে বৈশাখী পূজা। আইএস এবং আল কায়দার কার্যক্রম অনুসরণ করে তারা। অনেক আগে থেকে জঙ্গী সংগঠনটি আল-কায়দা ও আইএস-এর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করে আসলেও এখনও তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পেরেছে বলে মনে করেন না এই গোয়েন্দা কর্মকর্তা।

টার্গেট শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগ ॥ গোয়েন্দা সূত্র জানায়, আনসারুল্লাহ বাংলা টিম নামে জঙ্গী সংগঠনটির প্রধান টার্গেট শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ নেতারা। পাশাপাশি গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা গুঁড়িয়ে দেয়া। দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতাচ্যুত করা। শেখ হাসিনা ইসলামের শত্রু বলেও প্রচার চালাচ্ছে সংগঠনটি। কিন্তু নিরাপত্তার কারণে তাদের অপারেশন সাকসেসফুল করতে সমস্যা হচ্ছে।

প্রকাশিত : ১৭ মে ২০১৫

১৭/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: