আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

বিশেষ সম্মাননা পাচ্ছেন ফেরদৌসী মজুমদার

প্রকাশিত : ১৬ মে ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশের সারা জাগানো দাপুটে মঞ্চ, টিভি ও চলচ্চিত্র অভিনেত্রী ফেরদৌসী মজুমদার নাগরিক নাট্যাঙ্গনের উৎসবে বিশেষ সম্মাননা পেতে যাচ্ছেন। দলের ২০ বছর পূর্তিতে আগামী ২০-২৮ মে এ উৎসব হবে। সেখানে তাকে সম্মাননা জানানো হবে। ফেরদৌসী মজুমদার বাংলা নাটকে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ একুশে পদকসহ একাধিক পদকে ভূষিত হয়েছেন। চলতি বছরের গত ১২ মার্চ ক্যানভাস ও পারসোনার যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত সফল নারী হিসেবে আজীবন সম্মাননা পান ফেরদৌসী মজুমদার। ২০১২ সালে বাংলা একাডেমির ফেলোশিপ পান তিনি। বাংলাভাষীর যেসব মানুষ দেশ ও সাংস্কৃতিক উন্নয়নে অবদান রাখেন, বাংলা একাডেমি তেমন ব্যক্তিত্বদের ফেলোশিপ সম্মাননা প্রদান করে। নাট্যাঙ্গনসহ সাংস্কৃতিক অঙ্গনের বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদান রাখার স্বীকৃতিস্বরূপ ২০১২ সালে এ সম্মাননা পান ফেরদৌসী মজুমদার। এছাড়া বাংলা নাটকে বিশেষ অবদান রাখায় আরও অসংখ্য পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন তিনি।

ফেরদৌসী মজুমদার ১৯৪২ সালে ১৮ জন্মগ্রহণ করেন। স্বাধীনতা উত্তরকালে টিভি ও মঞ্চে সমান সফলতার সঙ্গে অভিনয় করে আসছেন। ধারাবাহিক নাটক ‘সংশপ্তক’ নাটকে হুরমতি চরিত্রে অভিনয় করে তিনি বিপুল প্রশংসা লাভ করেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলা এবং আরবী বিষয়ে মাস্টার্স সম্পন্ন করেন। তার অভিনীত প্রথম নাটকের নাম ছিল ‘ডাক্তার আব্দুল্লাহর কারখানা’। তার ভাই মুনির চৌধুরীর উৎসাহে তিনি নাটকে অভিনয় করেন। চল্লিশ বছর ধরে তিনি বাংলাদেশ টেলিভিশনে অভিনয় করেছেন। এছাড়া ঢাকার মঞ্চে তিনি, ‘এখন দুঃসময়’, এখনও ক্রীতদাস’, ‘একা’, ‘ম্যাকবেথ’, ‘পায়ের আওয়াজ পাওয়া যায়’, ‘কোকিলারা’, ‘মেরাজ ফকিরের মা’, ‘মুক্তি’সহ অসংখ্য নাটকে তিনি অভিনয় করেছেন। তবে বিটিভির ‘সংশপ্তক’ নাটকে হুরমতি চরিত্রে অভিনয় করে তিনি জনপ্রিয় হোন। ‘মায়ের অধিকার’সহ বেশ কয়েকটি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেও প্রতিভার পরিচয় দিয়েছেন। এদিকে খ্যাতিমান অভিনেত্রী ফেরদৌসী মজুমদার বিশিষ্ট নাট্যাভিনেতা, নির্দেশক ও রচয়িতা আব্দুল্লাহ আল মামুনের রচনা ও নির্দেশনায় টিভি ধারাবাহিক ‘জোয়ার ভাটা’, ‘এক জনমে’ ও ‘বাবা’ নাটকে অভিনয় করেছিলেন। আব্দুল্লাহ আল মামুন অসম প্রেমের গল্প নিয়ে ‘তাহাদের যৌবনকাল’ নামে একটি ধারাবাহিক নাটক রচনা করেছিলেন। এটি নির্মাণও করতে চেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু নির্মাণ করে যেতে পারেননি। তার সঙ্গে দীর্ঘদিন সহকারী হিসেবে কাজ করা নাট্যপরিচালক সাজাদ হাসান বাবলু এ ধারাবাহিক নাটকটি নির্মাণ করছেন। যথারীতি এতে প্রধান একটি চরিত্রে অভিনয় করছেন ফেরদৌসী মজুমদার। এতে তার চরিত্রের নাম সুমিতা বড়ুয়া। চলতি সপ্তাহে ধারাবাহিক এ নাটকটির শূটিং শুরু হয়েছে রাজধানীর অদূরে পূবাইলে। এতে অভিনয় প্রসঙ্গে ফেরদৌসী মজুমদার বলেন, মামুন ভাইয়ের রচিত নাটক বলেই কাজটি করছি। এর আগে মামুন ভাইয়ের রচনা ও নির্দেশনায় বহু নাটকে অভিনয় করেছি। তাই তার লেখার প্রতি এক ধরনের আবেগ কাজ করে সব সময়। সেই আবেগ এবং ভাল লাগা থেকে নতুন এই ধারাবাহিক নাটকে কাজ করা। দারুণ ভাল লাগছে কাজটি করতে। সাজাদ হাসান বাবলু জানান, খুব শিগগিরই ধারাবাহিক এ নাটকটি এটিএন বাংলায় প্রচার হবে। এছাড়া ফেরদৌসী মজুমদার অভিনীত রহমতুল্লাহ তুহিন পরিচালিত ধারাবাহিক নাটক ‘ক্ষণিকালয়’ মাছরাঙা টিভিতে প্রচার হচ্ছে। তিনি পেশাগত জীবনে আজিমপুর অগ্রণী ব্যাংক বিদ্যালয় এবং উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুলে শিক্ষকতা করেছেন। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি আরেক বরেণ্য নাট্য ব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদারের স্ত্রী। তাদের একমাত্র মেয়ে ত্রপা মজুমদারও দেশের গুণী অভিনেত্রী ও নির্দেশক।

প্রকাশিত : ১৬ মে ২০১৫

১৬/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: