কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

প্রধানমন্ত্রী তথ্য প্রযুক্তির পক্ষে, খালেদা বিপক্ষে ॥ ইনু

প্রকাশিত : ১৫ মে ২০১৫, ০১:২২ এ. এম.
  • ল্যাপটপ ফেয়ার উদ্বোধন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তথ্য প্রযুক্তির পক্ষে আর বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া তথ্য প্রযুক্তির বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছেন। শুধু খালেদা জিয়ার অজ্ঞতার কারণে দেশ ১০ বছর পিছিয়ে গেছে। সাবমেরিন কেবলের সঙ্গে যুক্ত হতে না পারায় এ পেছনে পড়েছে দেশ ও বাঙালী জাতি। এর জন্য দায়ী খালেদা জিয়া। তিনি ও তার তেঁতুল হুজুররা এ দেশকে ধ্বংস করার কাজে মনোযোগী। যে কোনো মূল্যে এসব তেঁতুল হুজুর ও তাদের সমর্থক বিএনপিকে ক্ষমতায় আসা ঠেকাতে হবে। প্রয়োজনে জীবন দিয়ে হলেও এদের প্রতিরোধ করব। বৃহস্পতিবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু সম্মেলন কেন্দ্রে ল্যাপটপ ফেয়ার- ২০১৫-এর উদ্বোধনকালে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এসব কথা বলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী বলেন, ২০০৮ সালের পর বাংলাদেশ অন্যরকম হয়ে গেছে। বর্তমানে দেশে ১০ কোটির বেশি মানুষ মোবাইল ব্যবহার করছেন। শিক্ষার্থীরা যাতে কম্পিউটার ব্যবহার করতে পারে, সেজন্য প্রতিষ্ঠানের পাঠ্যসূচীতে দেয়া হচ্ছে। এ বছরের মধ্যে ২২ হাজার স্কুলে কম্পিউটার বিতরণ করা হবে। তথ্যপ্রযুক্তির অপব্যবহার ঠেকাতে একগুচ্ছ সাইবার আইন, সাইবার আদালতও তৈরি করতে হবে। তিনি বলেন, সম্প্রচার আইন করছি, সম্প্রচার কমিশনও গঠন করতে হবে।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, চাপাতি বাহিনী, জঙ্গীবাদী, আগুন সন্ত্রাসী এবং তেঁতুল হুজুররাও তথ্যপ্রযুক্তির সেবা নিচ্ছে। তারাও ল্যাপটপ, মোবাইল ব্যবহার করছে। তারা সেই ব্যবহারের মাধ্যমে চাপাতি, আগুন সন্ত্রাস ছড়াচ্ছে। এদের ঠেকাতে হবে। তা না হলে তথ্যপ্রযুক্তিও ড. অভিজিতদের মতো ক্ষতবিক্ষত হয়ে পড়ে থাকবে। তেঁতুল হুজুররা মন্ত্রী-এমপি হলে দেশ পাকিস্তান-আফগানিস্তান হয়ে যাবে। জনগণকে এদের হাত থেকে রক্ষা করার আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এভারেস্ট জয়ী মুসা ইব্রাহীম বলেন, টেকনোলোজির সুফলগুলো জীবনের জন্য ব্যবহার করতে হবে। তথ্যপ্রযুক্তির ভাল দিকগুলো জানতে হবে। মানুষের ঢাকামুখিতা ঠেকাতে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবস্থা ও সেবাকে বিকেন্দ্রীকরণ করতে হবে।

মেলায় দামী সব ব্র্যান্ডের সর্বশেষ প্রযুক্তির ল্যাপটপ ও ট্যাব নিয়ে আকর্ষণীয় আয়োজন করা হয়েছে। ‘সবার জন্য ল্যাপটপ’ সেøাগান নিয়ে তিন দিনব্যাপী ১৫তম এ মেলার উদ্বোধন করা হয়। মেলায় ৫০টি স্টল, সাতটি মিনি প্যাভিলিয়ন ও তিনটি প্যাভিলিয়নে অংশ নিচ্ছে স্মার্ট টেকনোলজিস, গ্লোবাল ব্রান্ড, কম্পিউটার সোর্স, ফ্লোরা, লেনোভো, আরএনটেক, এইচটিএস, মাইসেল, গ্যাজেট গ্যাং সেভেন, এমজে টাইমসটেক, ডিএক্স জেনারেশন, ই-জগত ডটকম, মাইক্রোল্যাব, এইচপিএস ও গ্যাজেট গ্যালারি।

আয়োজকরা জানান, মেলার টিকেটের ২৫ শতাংশ যাবে নেপালে ভূমিকম্পদুর্গতদের জন্য। ২৫ শতাংশ যাবে তথ্যপ্রযুক্তি সংবাদকর্মীদের সংগঠনে।

প্রকাশিত : ১৫ মে ২০১৫, ০১:২২ এ. এম.

১৫/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: