মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

নীলফামারীর বারো বেইলি ব্রিজ বেহাল

প্রকাশিত : ১৫ মে ২০১৫
  • যান চলাচল ঝুঁকিতে

স্টাফ রিপোর্টার, নীলফামারী ॥ চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে নীলফামারীর ১২টি বেইলি ব্রিজ। আশির দশকে নির্মিত এসব ব্রিজ সাময়িকভাবে স্থাপন করা হলেও অদ্যাবধি সরানো হয়নি বরং সড়ক পথে যোগাযোগ হিসেবে ছোট বড়সহ ভারি যানবাহন চলাচলের স্থায়ী মাধ্যম হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে এইসব বেইলি ব্রিজ।

সড়ক ও জনপথ বিভাগ নীলফামারী সূত্র জানায়, হরতকিতলা, আউলিয়াখানা, মধুপুর, আনন্দ বাবুরপুল, বাহাগিলি, দুহুলী, টেঙ্গনমারী, হাফিজিয়া, গোমনাতি, চিলাহাটি, নাউতারা ও রামগঞ্জ সড়কের উপর নির্মিত হয় বেইলি ব্রিজ। স্থায়ীভাবে ব্রিজ নির্মাণ না হওয়ায় বেইলি ব্রিজগুলোর উপর দিয়ে ছোট বড় থেকে শুরু করে ভারি যানবাহনও চলাচল করে আসছে তখন থেকে।

সরেজমিনে দেখা যায় নীলফামারী ডোমার সড়কের হরতকিতলা মোড়ে যমুনেশ্বরী নদীর উপর নির্মিত লোহার সেতুটির উপর দিয়ে মারাত্মক ঝুঁকি নিয়ে যানবাহন চলাচল করছে। সেতুটির ভঙ্গুর দশা। সেতুতে লাগানো বিভিন্ন স্থানের পাত সরে ও দেবে যাওয়ায় চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।

ট্রাক চালক মোহাম্মদ সোহেল বলেন, সেতুতে লোহার পাতের ফাঁকে চাকা ফেঁসে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকার পরেও বাধ্য হয়ে ব্রিজের উপর দিয়ে চলাচল করে আসতে হচ্ছে। পলাশবাড়ি গ্রামের প্রত্যক্ষদর্শী লিটন হোসেন বলেন, ভারি যানবাহন ব্রিজের উপরে উঠলেই লোহার পাত সরে এবং দেবে গিয়ে দুর্ঘটনা ঘটছে।

স্থানীয় বাসিন্দা সুবাস চন্দ্র রায় বলেন, ‘এমনিতেই দুর্বল ব্রিজ। তার উপর ২০১৩ সালে জামায়াত-বিএনপি সহিংসতা চালিয়ে ব্রিজটি ক্ষতিগ্রস্ত করে। সে থেকে মেরামত হলেও সমস্যা লেগেই আছে।’

একই অবস্থা জলঢাকা উপজেলা শহরের আউলিয়াখানা বেইলি ব্রিজ। ব্যবহার অনুপযোগী হলেও উপায় না থাকায় ব্রিজটির উপর দিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে যানবাহনকে। সম্প্রতি ব্রিজটির সংস্কার কাজ করার জন্য ব্রিজে লাল পতাকা উত্তোলন করে ভারি যান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা দেয় সড়ক বিভাগ।

বেইলি ব্রিজের পরিবর্তে স্থায়ীভাবে আরসিসি ব্রিজ নির্মাণের জন্য উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হলেও অদ্যাবধি কোন ফল আসেনি। তবে প্রক্রিয়ার মধ্যে আছে ব্রিজ স্থাপনে।

তবে সড়ক বিভাগ বলছে, অতিরিক্ত মালামাল সেতুর উপর দিয়ে যানবাহনের চাপ বাড়ার কারণে সেতুগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী তানভির সিদ্দিকী বলেন, বেইলি ব্রিজগুলোর পরিবর্তে সেখানে আরসিসি ব্রিজ নির্মাণের জন্য উর্ধতন কর্র্র্র্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। অদ্যাবধি সেগুলোর কোন খবর হয়নি। তবে হরতকিতলা ব্রিজ নির্মাণে ইতোমেধ্য দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে। খুব তাড়াতাড়ি সেখানে কাজ শুরু হবে এছাড়া আউলিয়া খানা ব্রিজের নির্মাণ আগামী অর্থবছরে শুরু করা যাবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

প্রকাশিত : ১৫ মে ২০১৫

১৫/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: