মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

দিবারাত্রির টেস্ট ম্যাচে কিউইদের অনাস্থা!

প্রকাশিত : ১৫ মে ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ দিবারাত্রির টেস্ট ম্যাচ আয়োজনের প্রস্তাব এবং এ নিয়ে নানা পদক্ষেপ অনেক দিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি)। বেশ কয়েকবার দিবারাত্রির টেস্ট হওয়ার কথা থাকলেও এখন পর্যন্ত সেটা হয়নি। আগামী নবম্বরে নিউজিল্যান্ড দলের অস্ট্রেলিয়া সফরেই এবার হয়ে যেতে পারে ডে-নাইট টেস্ট। কিন্তু কিউই ক্রিকেটাররা এ ধরনের পরিকল্পনার বিরোধিতাই করছে। তারা মনে করে এতে করে টেস্ট ক্রিকেটের অবমূল্যায়ন হবে। বৃহস্পতিবারে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট প্লেয়ার্স এ্যাসোসিয়েশন (এনজেডসিপিএ) এমন দাবিই করেছে। ইতোমধ্যেই অস্ট্রেলিয়া জনপ্রিয় প্রথমশ্রেণীর ক্রিকেট আসর শেফিল্ড শিল্ডে কয়েকটি দিবারাত্রির ম্যাচ আয়োজন করেছে ২০১৪-১৫ মৌসুমে। মূলত দিবারাত্রির টেস্ট ম্যাচ আয়োজনের আগেভাগে পরীক্ষামূলকভাবেই এটা করেছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ)। বেশ আগ্রহের সঙ্গেই সিএ ডে-নাইট টেস্টের জন্য সার্বিকভাবে উঠে-পড়ে লেগেছে। দিবারাত্রির টেস্ট ম্যাচের জন্য গোলাপী বল প্রস্তাব করা হয়েছে এবং সেটিই ব্যবহার করেছে সিএ। এখন শুধু টেস্ট ম্যাচে এটা কার্যকর করার অপেক্ষা। আগামী নবেম্বরে অস্ট্রেলিয়া সফর করবে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দল। আর সে সময়েই কৃত্রিম আলোয় টেস্ট আয়োজনে প্রস্তুত হচ্ছে সিএ। কিন্তু এনজেডসিপিএ প্রধান নির্বাহী হিথ মিলস জানালেন এ বিষয়টি নিয়ে তেমন সন্তুষ্ট নয় ব্ল্যাক ক্যাপস ক্রিকেটাররা। তিনি বলেন, ‘নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট কয়েক মাস আগে আমাদের অনুরোধ জানিয়েছিল যাতে আমরা এ বিষয়ে ক্রিকেটারদের মতামতটা জানার চেষ্টা করি। কিন্তু ফলাফল যা এসেছে তাতে করে এটা আমরা নিশ্চিত হয়েছি ডে-নাইট টেস্ট খেলার ক্ষেত্রে ক্রিকেটারদের মনোভাব সমর্থনসূচক নয়।’ আগামী নবেম্বরে অস্ট্রেলিয়া সফরে তিন টেস্ট খেলবে নিউজিল্যান্ড। এর মধ্যে এ্যাডেলেইডে একটি ম্যাচ ডে-নাইট হতে পারে। সিএ মূলত দিবরাত্রির টেস্ট ম্যাচ আয়োজনের পক্ষে এ কারণে যাতে করে অনেক দর্শক সমাগত ঘটতে পারে। কারণ কার্যদিবস শেষ করে অনেক ক্রিকেট ভক্ত-সমর্থকরা সেক্ষেত্রে খেলা উপভোগের সুযোগ পাবেন। কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে সিরিজকে সবসময়েই নিজেদের জন্য সবচেয়ে মর্যাদার লড়াই হিসেবে বিবেচনা করে কিউই ক্রিকেটাররা। তাছাড়া ট্রান্স-তাসমান চিরশত্রু হিসেবে একটা মনস্তাত্ত্বিক লড়াই তো আছেই। এ কারণে কিউই ক্রিকেটাররা চায় নিয়মমাফিকভাবেই যেন টেস্ট ক্রিকেট আয়োজিত হয় অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে। এ বিষয়ে সাদারল্যান্ড আরও বলেন, ‘এটা আমাদের কাছে এ্যাশেজ সিরিজের মতোই। আমরা অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে খুব বেশি খেলি না। সর্বশেষবার দু’দলের মধ্যে টেস্ট সিরিজ হয়েছে ২০১১-১২ মৌসুমে। সুতরাং তাদের বিরুদ্ধে খেলাটা খুবই বিরল সুযোগ। অনেক খেলোয়াড়ই অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে খেলাটাকে নিজেদের ক্যারিয়ারের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ হিসেবে মনে করে। এ কারণে তারা কোনভাবেই চায় না এ সুযোগটা কোনভাবে একটা পরীক্ষা-নিরীক্ষায় সমস্যা হয়ে যায়।’ কিন্তু সিএ এরপরও জোর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ডে-নাইট টেস্ট খেলার পরিকল্পনাটা বাস্তবায়নের। এ বিষয়ে সিএ মুখপাত্র বলেন, ‘সিএ এবং এনজেডসি ডে-নাইট টেস্ট ক্রিকেট চালুর ধারণাটা বাস্তবায়নে বেশ জোরেশোরেই চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

প্রকাশিত : ১৫ মে ২০১৫

১৫/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: