রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

কেপিকে এখনও বিশ্বাস করেন না স্ট্রস!

প্রকাশিত : ১৩ মে ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ‘দুষ্ট গরুর চেয়ে শূন্য গোয়াল ভাল’ বলে প্রবাদ আছে। বাজে আচরণের খেসারত কতটা ভয়ঙ্কর হতে পারে ইংল্যান্ড ক্রিকেটার কেভিন পিটারসেন (কেপি) তা হারে হারে টের পাচ্ছেন। কিছুদিন আগেই ইংলিশ বোর্ডে (ইসিবি) সাবেক নির্বাহী পল ডাউনটন বলেছিলেন, ঘরোয়া ক্রিকেটে পারফর্ম করে তবেই ফিরতে হবে। লক্ষ্যটা বাস্তবায়নে ব্যাট হাতে রানের ফল্গধরা বইয়ে দিচ্ছিলেন। কিন্তু মাত্রই বোর্ড পরিচালকের দায়িত্ব পাওয়া এ্যান্ড্রু স্ট্রস সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, এমনকি ভবিষ্যতেও কেপিকে নিয়ে ভাবছেন না তারা। এক সময়ের জাতীয় দল সতীর্থের প্রতি কোন রকম আস্থা নেই বলে স্পষ্ট করেছেন সাবেক অধিনায়ক! স্ট্রসের ভাষায়, ‘আচরণগত সমস্যার কারণেই বিশ্বাস হারিয়েছে কেপি। সুতরাং আসন্ন এ্যাশেজ তো বটেই, ভবিষ্যতেও আমাদের ভাবনায় নেই ও!’ ২০১২ সালের আগস্টে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ছাড়ার আগে স্ট্রসের নেতৃত্বে খেলেছেন পিটারসেন। সে সময় দক্ষিণ আফ্রিকা দলের ইংল্যান্ড সফরে কী পরিস্থিতিই না সৃষ্টি হয়েছিল? অধিনায়ক স্ট্রস, কোচ এ্যান্ডি ফ্লাওয়ারসহ বোর্ড কর্তাদের সমালোচনা করে প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটারদের এসএমএস (মোবাইলে) করেছিলেন কেপি, সিরিজ হারের পর টালমাটাল ইংল্যান্ড দল থেকে আচমকাই অবসর নিয়েছিলেন স্ট্রস। সেই তিনি ভাল করেই জানেন, কেপি কতটা বদমায়েশ! অস্ট্রেলিয়ায় ২০১৩-১৪ এ্যাশেজ সিরিজেও নানা ঝামেলা বাধিয়ে দল থেকে বাদ পড়েন পিটারসেন। ইংলিশ বোর্ড কর্তাদের পক্ষ থেকে চিরদিনের জন্য দলের দরজা বন্ধ করে দেয়ার ঘোষণা দেয়া হয়। ইসিবিতে একাধিক পরিবর্তনে নতুন করে স্বপ্ন দেখছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকান বংশোদ্ভূত তুখোড় এই ব্যাটসম্যান। ব্যাট হাতেও জ্বলে উঠছিলেন। মাত্রই একদিন আগে ইংলিশ কাউন্টিতে সারের হয়ে অপরাজিত ৩২৬ রানের দুরন্ত ট্রিপল সেঞ্চুরির ইনিংস খেলেন। আর গতকালই বোর্ড পরিচালক স্ট্রসের কাছ থেকে শুনতে হলো এমন রূঢ় সত্য! ইংল্যান্ডের হয়ে খেলার স্বপ্নটা হয়ত কোনদিনই পূরণ হবে না ৩৪ বছর বয়সী ‘ক্রেজি’ পিটারসেনের। চোখ ধাঁধানো ইনিংসটি ছিল ৩৪ চার ও ১৪ ছক্কা দিয়ে সাজানো। তারপরই স্ট্রস ও ইসিবির চেয়ারম্যান টম হ্যারিসনের সঙ্গে দেখা করেন পিটারসেন। ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে জেনে গেলেন, বন্ধ দরজা খুলছে না আর। প্রতিক্রিয়াটা অবশ্য স্বভাবসুলভ স্টাইলের, ‘সময় অনেক কিছু করে দেখাতে পারে। স্ট্রস এসেছে, নতুন চেয়ারম্যান আসছেন, নতুন কোচ দায়িত্ব নেবেন। আমাকে বলা হয়েছিল, ফিরতে হলে কাউন্টিতে রান করতে হবে। আমার মনে হয়, আমি সেটি করতে পারছি। এজন্য আইপিএলকেও বাদ দিয়েছি। অর্থের জন্য নয়, আমি কেবল জাতীয় দলের হয়ে খেলার জন্যই ব্যাট হাতে মাঠে নামি। সেই যোগ্যতা আমার রয়েছে।’ স্ট্রসের কঠোর মনোভাবে ক্ষুব্ধ সাবেকরা পিটারসেনকে আবার জাতীয় দলে দেখাতে চাইছেন।

প্রকাশিত : ১৩ মে ২০১৫

১৩/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: