মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

রাজা বধে মারের মাদ্রিদ জয়

প্রকাশিত : ১২ মে ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ অপ্রতিরোধ্য পারফরমেন্সের কারণে ক্লে কোর্টের রাজা হিসেবেই পরিচিত রাফায়েল নাদাল। আর সেই নাদালকে পরাজিত করেই ক্লে কোর্টের প্রথম মাস্টার্স সিরিজ জয়ের স্বাদ পেলেন ব্রিটিশ টেনিস তারকা এ্যান্ডি মারে। রবিবার মাদ্রিদ ওপেনের ফাইনালে ২৭ বছর বয়সী মারে ৬-৩ এবং ৬-২ গেমে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন রাফায়েল নাদালকে সরাসরি সেটে হারান। সেই সঙ্গে এক সপ্তাহের মধ্যেই টানা দ্বিতীয় শিরোপা লাভ করেন।

রাফায়েল নাদাল আর এ্যান্ডি মারের লড়াইটা দীর্ঘদিনের। সাতবারের প্রচেষ্টায় এই প্রথমবারের মতো ক্লে কোর্টে নাদালের বিপক্ষে জয় পেলেন মারে। গত সোমবার জার্মানিতে মিউনিখ ওপেনের শিরোপা জিতেছিলেন মারে। ১৯৭৬ সালের পর এটাই ছিল ব্রিটিশ কোন টেনিস খেলোয়াড়ের প্রথম ক্লে কোর্টের শিরোপা জয়। মিউনিখ ওপেনের পর মাদ্রিদ মাস্টার্সেও চ্যাম্পিয়ন হয়ে উচ্ছ্বাসের জোয়াড়ে ভাসছেন মারে। ম্যাচ শেষে পারফরমেন্সে সন্তুষ্ট মারে জানান, নিজেকে আরও সামনের দিকে এগিয়ে নিতে চান। এ বিষয়ে তার অভিমত হলো, ‘রাফায়েল নাদালের বিপক্ষে খেলাটা সত্যিই কঠিন। বিশেষ করে ক্লে কোর্টে তার বিপক্ষে জয়ী হওয়া একেবারেই অন্যরকম এক অনুভূতি। আগামী কয়েক সপ্তাহ আমি এই ধারা বজায় রাখতে চাই। সেই সঙ্গে রোলা গ্যাঁরোতে ভাল কিছু উপহার দিতে চাই।’ স্পেনের রাজধানী মাদ্রিদে টানা তৃতীয় শিরোপা জয়ের লক্ষ্যে কোর্টে নেমেছিলেন নাদাল। কিন্তু তার সেই স্বপ্নে বাধা হয়ে দাঁড়ান মারে। ইউরোপিয়ান ক্লে কোর্টে প্রথমবার মন্টে কার্লো মাস্টার্সের সেমিফাইনালে বিশ্বের এক নম্বর তারকা নোভাক জোকোভিচের কাছে হার মেনেছিলেন নাদাল। গত মাসে বার্সিলোনা ওপেনেও ফ্যাবিও ফোগনিনির কাছে পরাজিত হয়ে হতাশ হতে হয় স্প্যানিশ তারকাকে। মাদ্রিদ মাস্টার্সের ফাইনালেও খুব একটা স্বস্তিতে ছিলেন না রাফা। ম্যাচ শেষে সেটাই প্রকাশ করতে গিয়ে নাদাল বলেন, ‘ফাইনালে যেভাবে খেলেছি প্রকৃতপক্ষে এ ধরনের ম্যাচ আমি কোন সময়ই আশা করি না। শেষ পর্যন্ত আমি চেষ্টা করেছি। কিন্তু এই ধরনের দিন আমি কখনই মনে রাখতে চাই না। তবে এই সপ্তাহটি আমার জন্য জন্য খুবই গুরত্বপূর্ণ। সবকিছুকে পেছনে ফেলে আমি আবারও নতুন উদ্যমে ফিরে আসতে চাই।’ মিউনিখ ওপেনের ফাইনালে ফিলিপ কোহশ্রেইবারের বিপক্ষে ফাইনালে বেশ সমস্যায় পড়তে হয়েছিল মারেকে। বৃষ্টির কারণে ফাইনাল একদিন পিছিয়ে যাওয়ার পরে মাদ্রিদেও প্রথম ম্যাচটি একই প্রতিপক্ষের বিপক্ষে ভোর ৩.০০টায় শেষ হয়। যে কারণেই সপ্তাহের শুরুটা মোটেই ভাল হয়নি মারের। তবে এক মাস আগে দীর্ঘদিনের বান্ধবী কিম সিয়ারসের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হওয়ার পর থেকেই মারের ক্যারিয়ারে এক নতুন মোড় শুরু হয়েছে। সে কারণেই ফাইনালের লড়াই জেতার পর কোর্ট-সাইড ক্যামেরায় তিনি লিখেছেন ‘বিয়েতে কাজ হয়েছে।’ কিম সিয়ার্সকে বিয়ের পর টানা নয় ম্যাচ জিতেছেন মারে। তাই এমন বলাটা মারের জন্য স্বাভাবিকই।

শক্তিশালী প্রতিপক্ষ রাফায়েল নাদালের বিপক্ষে ফাইনালের শুরু থেকেই দারুণভাবে প্রভাব বিস্তার করে খেলতে থাকেন মারে। প্রথম ১৪ পয়েন্টের মধ্যে ১২ পয়েন্টই অর্জন করে ৩-০ গেমে এগিয়ে যান। সাত নম্বর গেমে নাদাল দুটি ব্রেক পয়েন্টের সুযোগ কাজে লাগিয়ে ম্যাচে ফিরে আসেন। কিন্তু সেটি মূলত খুব একটা কাজে আসেনি। ৫-৩ এগিয়ে গিয়ে মারে সার্ভিস থেকে সেটটি জিতে নেন। দ্বিতীয় সেটেও মারের বেশ কয়েকটি শক্তিশালী শটে পেরে উঠেননি নাদাল। প্রথম গেমেই নাদালের একটি এরর থেকে বিশ্বের তিন নম্বর তারকা মারে তিনটি ব্রেক পয়েন্ট অর্জন করেন। পরের গেমেও দারুণ দাপটের সঙ্গেই পয়েন্ট জিতে নেন তিনি।

প্রকাশিত : ১২ মে ২০১৫

১২/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: