হালকা কুয়াশা, তাপমাত্রা ১৮.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

রাজধানীতে যুবক হত্যা সড়ক দুর্ঘটনায় ৪ জন নিহত

প্রকাশিত : ১২ মে ২০১৫
  • গৃহবধূর আত্মহত্যা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীর মুগদাপাড়ায় একটি বাড়িতে ঢুকে এক যুবককে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় খোকা, রুবেল ও নয়ন নামে তিন ব্যক্তি গ্রেফতার হয়েছে। এদিকে পুরান ঢাকার বংশালে শিশু সন্তানকে বাঁচাতে গিয়ে বিদ্যুতস্পৃষ্ট হয়ে মায়ের মৃত্যু হয়েছে। পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় এক নারীসহ চারজন নিহত হয়েছে। তেজগাঁও এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছে। সোমবার পুলিশ ও মেডিক্যাল সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, রাজধানীয় মুগদায় একটি বাড়িতে ঢুকে দুর্বৃত্তরা সবুজ মিয়া (২১) নামে এক যুবককে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে খুন করেছে। নিহতের বাবার নাম সুরুজ মিয়া। গ্রামের বাড়ি বিক্রমপুর-মুন্সীগঞ্জ জেলা সদরের মাঠপাড়া গ্রামে। তিনি মুগদাপাড়ার মা-ার প্রথম গলির শহীদুলের বাড়িতে ভাড়া থাকতেন। নিহতের খালা মিনারা বেগম জানান, সবুজ কবুতরের ব্যবসা করতেন। প্রতিরাতে কবুতর বিক্রি করে ভোরের দিকে বাসায় ফিরতেন। তিনি জানান, ২২ এপ্রিল ভোরের দিকে সবুজ কবুতর বিক্রি করে বাসায় ফিরে। এ সময় স্থানীয় খোকা, রুবেল ও নয়ন তার ঘরে ঢুকে। এক পর্যায়ে তারা সবুজকে বুকে ও পেটে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। পরে তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ১৯দিন মৃত্যুর সঙ্গে লড়ে রবিবার গভীররাতে তার মৃত্যু হয়। মিনারা জানান, খোকার কাছে ধারের টাকা ফেরত চাওয়াকে কেন্দ্র করে বোনের ছেলে সবুজকে ছুরিকাঘাত করা হয়। এদিকে সোমবার সকালে পুলিশ সবুজের লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে পাঠায়। মুগদাপাড়া থানার ওসি (তদন্ত) মুস্তাফিজুর রহমান জানান, ওইদিন মারামারির ঘটনায় প্রথমে থানায় একটি মামলা হয়েছে। ওই মামলায় খোকা, রুবেল ও নয়নকে আটক করা হয়েছে। সবুজ মৃত্যুর পর এখন হত্যা মামলায় রূপান্তরিত হবে বলে ওসি (তদন্ত) জানান।

বিদ্যুতস্পৃষ্ট হয়ে মায়ের মৃত্যু ঃ সোমবার বিকেলে পুরান ঢাকার বংশাল এলাকায় নিজ শিশু সন্তান বিপ্লব চন্দ্র শীলকে (৪) বৈদ্যুতিক তার থেকে বাঁচাতে গিয়ে মা কাজল রানী (৪০) সেই বিদ্যুতের তারে স্পৃষ্ট হয়ে মারা গেছেন। এ ঘটনায় নিহতের শিশু সন্তান বিপ্লব আহত হয়েছে। নিহতের স্বামীর নাম ফনী চন্দ্র শীল। তার স্বামী স্থানীয় একটি সেলুনে নাপিতের কাজ করেন। তারা বংশাল থানাধীন নাজিমউদ্দিন রোডের ৫০/১ নম্বর বাড়িতে ভাড়া থাকতেন। নিহত কাজল রানীর বড় ছেলে পঙ্কজ জানায়, ছোট ভাই বিপ্লব বারান্দায় খেলতে গিয়ে পড়ে থাকা তারের সঙ্গে লেগে চিৎকার দিতে থাকে। মা কাজল রানী চিৎকার শুনে দৌড়ে এসে বিপ্লবকে জড়িয়ে থাকা বৈদ্যুতিক তার সরাতে যান। এ সময় মা ও ছোট ভাই বিপ্লব বিদ্যুতায়িত হন। পরে তাদের গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালে জরুরী বিভাগে আনা হয়। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক মা কাজল রানীকে মৃত ঘোষণা করেন।

সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৪ জন ॥ রাজধানীর যাত্রাবাড়ী, তেজগাঁও, মিরপুর ও বনানী সড়ক দুর্ঘটনায় চারজন নিহত হয়েছে। পুলিশ জানায়, সোমবার বিকেল ৩টার দিকে যাত্রাবাড়ী মোড়ে ট্রাফিক বক্সেও সামনে বাসের ধাক্কায় অজ্ঞাত (২০) এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। যাত্রাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অবনীশঙ্কর কর জানান, বাস ও চালককে আটক করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্যে ওই যুবকের লাশ স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়েছে। এদিকে একই দিন ভোরের দিকে তেজগাঁও থানার শহীদ জাহাঙ্গীর গেটের দক্ষিণ পাশের রাস্তায় গাড়ি চাপায় অজ্ঞাত (৩২) আরেক যুবক মারা গেছে। তেজগাঁও থানার উপ-পরিদর্শক রজিবুল ইসলাম জানান, সোমবার ভোররাতে একটি গাড়ির চাপায় ওই যুবক গুরুতর আহত হয়। পরে পথচারীরা তাকে উদ্ধার করে সিএমএইচ হাসপাতালে নিয়ে যায়। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তিনি জানান, পরে দুপুর পৌনে ১টার দিকে তার মৃতদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে পাঠানো হয়েছে। অন্যদিকে রবিবার গভীররাতে মিরপুর আধুনিক হাসপাতালের সামনে ট্রাকের ধাক্কায় নজরুল ইসলাম বাবলু (৭০) নামে এক রং মিস্ত্রি নিহত হয়েছেন। নিহতের ছেলে আশরাফ আলী জানান, রবিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে তার বাবা ওই হাসপাতালের সামনের সড়ক পার হচ্ছিলেন। পরে বাবাকে প্রথমে মিরপুর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে অবস্থা অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ২টার দিকে তার মৃত্যু হয়। নিহতের গ্রামের বাড়ি শরীয়তপুর জেলার সখিপুরে। এছাড়া সোমবার সকালে বনানীর মহাখালী ফ্লাইওভারের নিচ থেকে গাড়ির ধাক্কায় অজ্ঞাত (৫০) আরেক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে পাঠায়। নিহতের পরনে ছিল সাদা-সবুজ চেক শার্ট ও সাদা চেকের লুঙ্গি।

আত্মহত্যা : রবিবার মধ্যরাতে তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানার বাবরী মসজিদসংলগ্ন একটি বাসায় কাজল রানী ম-ল (৩০) নামে এক গৃহবধূ গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। নিহতের স্বামীর নাম রিপন ম-ল। নিহতের বাবার গ্রামের বাড়ি খুলনা জেলার বটিয়াঘাটা থানার নাহিদভাঙা গ্রামে। নিহতের স্বামী রিপন ম-ল জানান, রাতে পারিবারিক বিষয় নিয়ে স্বামী-স্ত্রী মধ্যে ঝগড়া হয়। পরে তারা ঘুমিয়ে পড়ে। রাত পৌনে ২টার দিকে শব্দ পেয়ে ঘুম থেকে উঠে দেখেন, স্ত্রী কাজল রানী গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলে আছে। পরে ওইখান থেকে তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরী বিভাগে আনলে কর্তব্যরত চিকিৎসক কাজলকে মৃত ঘোষণা করেন।

প্রকাশিত : ১২ মে ২০১৫

১২/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: