মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

বুয়েট ছাত্রলীগের দুই নেতার ক্লাস পরীক্ষা নেয়ার আদেশ

প্রকাশিত : ১২ মে ২০১৫
  • হাইকোর্টের রুল ॥ জামায়াতী শিক্ষক অপসারণ দাবিতে সমাবেশ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ ছাত্রলীগের বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) শাখার সভাপতি শুভ্রজ্যোতি টিকাদার ও সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ কনকসহ চারজনকে ক্লাস-পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে দেয়ার আদেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে রুল জারি করেছেন আদালত। চার শিক্ষার্থীর বহিষ্কারাদেশকে কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না-রুলে তা জানতে চাওয়া হয়েছে। বুয়েটের উপাচার্য ও সংশ্লিষ্টদের রুলের জবাব দিতে হবে। অন্যদিকে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি শুভ্রজ্যোতি টিকাদার ও সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ কনকের আজীবন বহিষ্কারাদেশ দ্রুত প্রত্যাহারের জন্য বুয়েট প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। সেই সঙ্গে মৃত্যুদ-প্রাপ্ত মানবতাবিরোধী অপরাধী কামারুজ্জামানের রায় নিয়ে বিরূপ মন্তব্যকারী জামায়াতপন্থী শিক্ষক ড. জাহাঙ্গীর আলমের অপসারণের দাবি করা হয়েছে। এক দিনের মধ্যে এই দাবি মানা না হলে বুধবার বুয়েট ভিসি কার্যালয় ঘেরাও করবে সংগঠনটি।

এদিকে সোমবার বিকেল থেকেই একটি গুজব ছিল বুয়েটের অধ্যাপক জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে শাহবাগ থানায় তথ্যপ্রযুক্তি আইনে মামলা করা হয়েছে। কিন্তু থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জাফর আলী বিশ্বাস জনকণ্ঠকে বলেছেন, সন্ধ্যা পৌনে সাতটা পর্যন্ত তার বিরুদ্ধে কোন মামলা হয়নি। যুদ্ধাপরাধী কামারুজ্জামানের ফাঁসির রায় নিয়ে ফেসবুকে মন্তব্যকারী শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলমকে লাঞ্ছনা ও মারধরের অভিযোগে ওই চার শিক্ষার্থীকে আজীবন বহিষ্কার করেছিল বুয়েট সিন্ডিকেট। চার শিক্ষার্থীর পৃথক চারটি রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে সোমবার এ আদেশ দেন বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি আবু তাহের মোঃ সাইফুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ। একইসঙ্গে রুল জারি করেছেন আদালত। চার শিক্ষার্থীর বহিষ্কারাদেশকে কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না-রুলে তা জানতে চাওয়া হয়েছে। বুয়েটের উপাচার্য ও সংশ্লিষ্টদের রুলের জবাব দিতে হবে। রিটকারীর পক্ষে ছিলেন এ্যাডভোকেট এএম আমীন উদ্দিন। রাষ্ট্রপক্ষে উপস্থিত ছিলেন ডেপুটি এ্যাটর্নি জেনারেল তাপস কুমার বিশ্বাস।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার জানিয়েছেন, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) থেকে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি শুভ্রজ্যোতি টিকাদার ও সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ কনকের আজীবন বহিষ্কারাদেশ দ্রুত প্রত্যাহারের জন্য বুয়েট প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। সেইসঙ্গে মৃত্যুদ-প্রাপ্ত মানবতাবিরোধী অপরাধী কামারুজ্জামানের রায় নিয়ে বিরূপ মন্তব্যকারী জামায়াতপন্থী শিক্ষক ড. জাহাঙ্গীর আলমের অপসারণের দাবি করা হয়েছে। এই দাবি মানা না হলে বুয়েট ভিসি কার্যালয় ঘেরাও করবে সংগঠনটি।

সোমবার সকাল ১১টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বুয়েট শহীদ মিনারে অবস্থান নিয়ে যুদ্ধাপরাধীদের দোসর, জামায়েতের মদদদাতা, সাম্প্রদায়িক উসকানিদাতা শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলমসহ সকল জামায়াত শিক্ষকদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে গণসংহতি ও সমাবেশ পালন করে সংগঠনটি। বুয়েট শাখা ছাত্রলীগ সমাবেশটি আয়োজন করে। সমাবেশে সংহতি জানিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে হাজার হাজার ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা অংশ নেন। এছাড়া প্রকৌশল পরিষদ, কৃষিবিদ এ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ ছাত্রমৈত্রী, জাসদ ছাত্রলীগ, বাংলাদেশ ছাত্র সমিতিসহ ঢাকা শহরে ছাত্রলীগের বিভিন্ন ইউনিটের হাজারো সদস্য সংহতি প্রকাশ করেন। প্রতিবাদী গান ও সেøাগানের মাধ্যমে চলে এই সমাবেশ। সন্ধ্যা ছয়টার সময় কেন্দ্রীয় সভাপতি পাঁচ দফা দাবিতে কর্মসূচী ঘোষণার মাধ্যমে সংহতি সমাবেশের ইতি টানেন।

সমাবেশ শেষে ছাত্রলীগের সাত সদস্যবিশিষ্ট একটি প্রতিনিধি দল বুয়েট উপাচার্যের কাছে পাঁচ দফা দাবি পেশ করতে যান। এ সময় বুয়েট সিন্ডিকেটের সভা চলছিল। ছাত্রলীগের দাবি সম্বলিত কাগজ গ্রহণ করলেও বুয়েট উপাচার্য ছাত্রলীগ নেতাদের সঙ্গে অসদাচরণ করেন। এ সময় তাদের উপাচার্য রুম থেকে বের হয়ে যেতে বলা হয়।

সমাবেশে সংহতি প্রকাশ করে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি এইচ এম বদিউজ্জামান সোহাগ বলেন, বুয়েট ছাত্রলীগের সভাপতি শুভ্রজ্যোতি টিকাদার ও সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ কনকের আজীবন বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের জন্যই শুধু এই সমাবেশ নয়, বুয়েটকে জঙ্গী ও রাজাকার মুক্ত করতে হবে। সরকার দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের চেয়ে বেশি অর্থ বুয়েটে বরাদ্দ দেয়। দেশের ১৬ কোটি মেহনতি মানুষের টাকা দিয়ে বুয়েট পরিচালিত হয়। অতএব এই বিশ্ববিদ্যালয়ে জঙ্গী রাজাকার মুক্ত হবে এইটাই ছাত্রদের দাবি।

শিক্ষকদের উদ্দেশ করে তিনি বলেন, নিজেদের বেতন ভাতা বাড়াতে আপনারা ছয় মাস ক্লাস বর্জন করতে পারেন কিন্তু যখন বুয়েটের ছাত্রলীগ নেতা আরিফকে জঙ্গীরা হত্যা করল, তখন আপনাদের কোন কর্মসূচী আমরা দেখিনি। আবার এখন রাজাকারদের মদদদাতাদের পক্ষ অবলম্বন করে শুভ্র ও কনককে বহিষ্কার করা হয়েছে, ক্লাসও বর্জন করা হয়েছে। আপনারা যে আচরণ করেছেন এটা কোন শিক্ষকের আচরণ নয়, ক্যাডারদের মতো আচরণ বলেও সোহাগ দাবি করেন। ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম বলেন, যে কোন মূল্যে আমরা আমাদের দাবি আদায় করব। আজকের মধ্যেই বুয়েট প্রশাসনকে বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করতে হবে।

সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন ছাত্রলীগের সহসভাপতি জয়দেব নন্দী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাক, শারমিন সুলতানা লিলি, সাংগঠনিক সম্পাদক আফরিন নুসরাত, দফতর সম্পাদক শেখ রাসেল, ঢাবি ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান মোল্ল্যা ও সাধারণ সম্পাদক ওমর শরীফ, সমাজসেবা সম্পাদক কাজী এনায়েত, কৃষি সম্পাদক রাইসুল ইসলাম জুয়েল, ক্রীড়া সম্পাদক আবিদ আল হাসান, পরিবেশ সম্পাদক সাইফুর রহমান সোহাগ, সহসম্পাদক আসাদুজ্জামান নাদিম, কেন্দ্রীয় সদস্য এনামুল হক প্রিন্স প্রমুখ।

প্রকাশিত : ১২ মে ২০১৫

১২/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: