রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

দোষীদের ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে গ্রেফতারের নির্দেশ হাইকোর্টের

প্রকাশিত : ১১ মে ২০১৫
দোষীদের ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে গ্রেফতারের নির্দেশ হাইকোর্টের
  • গাছে বেঁধে গৃহবধূকে নির্যাতন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ নড়াইলে এক গৃহবধূকে গাছের সঙ্গে বেঁধে শ্বশুরবাড়ির লোকদের নির্যাতনের ঘটনায় দোষীদের ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে গ্রেফতারের নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। অন্যদিকে, ছুটি মঞ্জুর না করায় এ্যাপেক্স ফুটওয়্যার কারখানায় এক মহিলা শ্রমিকের টয়লেটে শিশুর জন্ম দেয়ার পর নবজাতকের মৃত্যু হওয়ায় ওই কারখানার তিন কর্মকর্তাকে তলব করেছেন হাইকোর্ট। বিচারপতি কাজী রেজাউল হক ও বিচারপতি আবু তাহের মোঃ সাইফুর রহমানের বেঞ্চ রবিবার এ আদেশগুলো প্রদান করেছেন।

নড়াইল জেলার এক গৃহবধূকে নির্যাতনের ঘটনায় দোষী ব্যক্তিদের গ্রেফতারের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। একইসঙ্গে দোষীদের গ্রেফতার করা হয়েছে কি-নাÑ সে বিষয়ে ১৮ মে জেলা প্রশাসক ও নড়াইলের লোহাগড়া থানার ওসিকে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি নির্যাতনের শিকার গৃহবধূর চিকিৎসা ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, ইউএনওসহ সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটাস এ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশ হাইকোর্টে এ রিট আবেদন নিয়ে আসে। আবেদনের পক্ষে আদালতে শুনানি করেন আইনজীবী মনজিল মোরশেদ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি এ্যাটর্নি জেনারেল তাপস কুমার বিশ্বাস।

দৈনিক জনকণ্ঠসহ কয়েকটি গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার শালবরাত গ্রামে গৃহবধূ ববিতা খানমকে (২১) চুরির অভিযোগে ৩০ এপ্রিল গাছের সঙ্গে বেঁধে লাঠি দিয়ে পেটায় তার স্বামী সেনা সদস্য শফিকুল শেখ, ভাসুর হাসান শেখ, শ্বশুর ছালাম শেখ, শাশুড়ি জিরিন আক্তার, চাচা শ্বশুর কালাম, প্রতিবেশী নান্নু শেখ ও কাশিপুর ইউপি আওয়ামী লীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক আজিজুর রহমান আরজু। নির্যাতনের এক পর্যায়ে ববিতা জ্ঞান হারান। ওই অবস্থায় তাকে বাজারে নিয়ে একটি দোকানে আটকে রাখা হয়। পরে তাকে নড়াইল সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। এ ঘটনায় ববিতার মা খাদিজা বেগম গত ৫ মে লোহাগড়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। পুলিশ শফিকুলের চাচা হিরু মিয়াসহ (৩৮) দু’জনকে এ পর্যন্ত গ্রেফতার করেছে।

এদিকে নড়াইল থেকে নিজস্ব সংবাদদাতা জানিয়েছেন, নির্যাতিত বাবিতা হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র নিয়ে রবিবার দুপুরে তার পিতার বাড়িতে এড়েন্দা গ্রামে অবস্থান করছেন। সে এখন সুস্থ হয়ে উঠছে। ববিতার নিরাপত্তায় নিশ্চিত করতে সার্বক্ষণিক এক স্কট পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলে নড়াইলের পুলিশ সুপার সরদার রফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন। এছাড়া হাইকোর্টের নির্দেশানুযায়ী বাবিতাকে নির্যাতনকারী আসামিদের গ্রেফতারের বিশেষ অভিযান অব্যাহত রয়েছে। এ মামলার প্রধান অভিযুক্ত ববিতার স্বামী সেনাবাহিনীতে কর্মরত সেনা সদস্য শফিকুল শেখ ঘটনার দিন কোথায় ছিলেন তা জানতে চেয়ে তার চাকরিস্থলে পুলিশের পক্ষ থেকে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

তিনজনকে তলব ॥ অন্তঃসত্ত্বা নারী শ্রমিক হামিদা আক্তারকে ছুটি না দেয়ায় ফ্যাক্টরির টয়লেটে কেন সন্তান প্রসব করেছেন তার কারণ ব্যাখ্যা করার জন্য সংশ্লিষ্ট কারখানার পরিচালকসহ তিনজনকে তলব করেছেন হাইকোর্ট।

আগামী ২৪ মে তাদের স্বশরীরে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার হরিণহাটি এলাকায় এ্যাপেক্স ফুটওয়্যার কারখানায় সংশ্লিষ্ট তিনজকে হাইকোর্টে উপস্থিত হয়ে টয়লেটে অন্তঃসত্ত্বা শ্রমিক বাচ্চা প্রসব করার কারণ ব্যাখ্যা করার জন্য বলেছেন। বিচারপতি কাজী রেজাউল হক ও বিচারপতি আবু তাহের মোঃ সাইফুর রহমানের বেঞ্চ রবিবার সুয়োমটো আদেশ প্রদান করেন। এ সময় এ্যাটর্নি জেনারেল তাপস কুমার বিশ্বাস উপস্থিত ছিলেন।

নবজাতক শিশুটিকে হাসপাতালে নেয়ার পর তার মৃত্যুঘটে। যাদেরকে তলব করা হয়েছে তারা হলেন, পরিচালক সৈয়দ নাসিম মঞ্জুর, পরিদর্শক আজিজুর রহমান এবং এ্যাপেক্স জুতো কারখানার সুপারভাইজার রতন মিয়া। তাদের সেদিন ওই ঘটনায় কী ভূমিকা ছিল ২৪ মে হাজির হয়ে সকাল সাড়ে ১০টায় ব্যাখ্যা করতে হবে। একই সঙ্গে ২৪ মে একটি প্রতিবেদন জমা দিতে কালিয়াকৈর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। একটি পত্রিকার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মহিলা কর্মী হামিদা আক্তার শনিবার কারখানা কর্তৃপক্ষের কাছে প্রসবকালীন ছুটি চান। কিন্তু কর্তৃপক্ষ তার ছুটি অনুমোদন করেননি। এর কয়েক ঘণ্টা পরেই হামিদা কারখানা টয়লেটে একটি সন্তানের জন্ম দেন। নবজাতককে হাসপাতালে নেয়ার পর তার মৃত্যু ঘটে।

প্রকাশিত : ১১ মে ২০১৫

১১/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: