রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

কবিতা

প্রকাশিত : ৮ মে ২০১৫

ঠাকুরের প্রতি

জাফর ওয়াজেদ

ঠাকুর, তুমি ডাকো কেনো অমন করে বৈশাখে

নদীর জল শুকিয়ে গেছে বধূ নেই কলসী কাঁখে

জীর্ণ এবং পুরাতনে মজে আছি কতো যে কাল

মুমূর্ষু সব জাগে না আর চারদিকে মরণ জাল।

মাথার চান্দি যায় যে ফেটে তপ্ত কড়াই রোদে

দেহের ঘাম ঝরতে থাকে উষ্ণতার প্রতিশোধে

দাও গো ঠাকুর দাও বৃষ্টি জলেতে সিনান করি

গায়ে-গতরে শীতলতা পক্ষীকুলেরও যে জরুরি

দেশের মাটি ফেটে চৌচির ফসল কোথা ফলে

পুকুর-বিল নেই যে আর আগের মতো ভরা জলে।

এমন তপ্ত নিঃশ্বাস বায়ে বলো থাকি কেমন করে

ঠাকুর, তুমি দাও বর দাও গরমে যেন যাই ঝরে।

রবীন্দ্রনাথের গান

দুলাল সরকার

তুমি না থাকলেও তোমার গান থাকবে বাঙালির

হৃদয় জুড়ে অটুট-এরকম বিশ্বাসেই তুমি একসময়

পদ্মার বালুচরে ঘুরতে ঘুরতে ভবতারিণী হারিয়ে ফেললে;

তারপর যখন মৃত্যুর ওপাড় থেকে ছোটকি বললে

আমি কিংবা বউঠাকুরুন কেউ না থাকার পিছনে

তোমার চিত্তের চিরন্তন হাহাকারটুকুই দায়ী-

তখন মনে হল আর কেউ না জানুক আমি জানি

রক্ত তোলপাড় করা তোমার হাতের ঐ একতারাটি

তুমি লালনের কাছেই খুঁজে পেয়েছিলে;

তখন আমাদের অবর্তমানে তোমার ভেতরের শূন্যতা

আর বুক জ্বালা করা একাকত্ব বোধ

সারা রাত আমাদের গান শোনাতে চেয়েছিল

যদিও সে গানের ভাষা আমার সম্পূর্ণ অচেনা

তবুও তোমার বউঠাকুরুন হয়ত বুঝে থাকবেন

এখানে তার শূন্যতা বোধই এ গানের উৎস

যদিও প্রতিটি গানের বহিরাবরণ মরমীয়া

বোধে আচ্ছন্ন আর ভেতরের ‘তুমি’ সেই চিরন্তন

বিরহেরই নামান্তর।

ট্রেসপাস

কাদের পলাশ

ইদানীং ট্রেসপাস বিষাদে বিস্মিত কিংবা

নিখুঁত কষ্টগুলো ভেতরে ছোঁয় না,

স্নায়ুতন্ত্ররাও ভোঁতা অনুভূতিহীন।

লোডশেডিংয়ে ড্রাইসেল ফ্যানের হওয়া

মায়ের তালপাতার বাতাস বলে চালিয়ে দিই।

পুকুর লেক ভূমিদস্যুরা ভরাট করছে

বড় হচ্ছে চাইনিজ রেস্টুরেন্টে উপড়ে পড়ছে

অপরিপক্ব কাশেম-কমলার প্রেম!

সুগন্ধি সুনামি

মিজানুর রহমান বেলাল

নীল ফ্রক পরা বালিকার বুক থেকে ওড়ে আসা ফড়িঙ

দেহের থরে থরে সাজায়-রূপালি রোদের ক্যানভাস

কেড়ে নেয়-চোখের সারল্য; দৃশ্যশিকারির সাম্পান।

সমুদ্রপকূলে দিয়েছে কারফিউ-ওড়ে পর্যটকের চোখ

নিরাপত্তাহীনতায় ভুগে দাঁড়কাকের প্রবাল প্রাণপ্রাচীর

বালিকার ঠোঁটের চাতালে হালের হাওয়া পাল তুলে

মগ্নতার প্লাবনে ভেসে যায়-উপকূলীয় বিলবোর্ড।

আবহাওয়ার পূর্বাভাসে দিয়েছে-দশ নম্বর সংকেত;

বালিকার খোলাবুকের ফাঁদ থেকে ওড়ে আসে সুনামি

আর নিরাপত্তাকর্মীরা জানে না-

তবুও কেনো পর্যটকরা বালিকা পূজারি...

আয়নার উপকথা

হাসান হাবিব

যে রূপকথায় চোখ আড়াল করে, তাকেও

ছবি আঁকতে হয়। ঘর ভর্তি ঢেউ

নিয়ে উন্মুখ বিলায় নারীর বর্ণিল শয্যায়-

তার প্রত্যেক রাত আয়নার উপকথা জুড়ে

দেয় জানালার বুকে...

বেহালা বাদক ঋণী হয় বর্ণচোরার ফাঁদে;

যারা যাচ্ছে- ছবির আড়ালে গান শোনা

দর্শক সারিতে বসে আছে মিনবর্তীর

কাছাকাছি...

তবু দেখি এ বাংলায় বোশেখের হাসি

প্রকাশিত : ৮ মে ২০১৫

০৮/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: