মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ফরাশগঞ্জে পয়েন্ট খোয়াল রাসেল

প্রকাশিত : ৮ মে ২০১৫
  • শেখ রাসেল ২-২ ফরাশগঞ্জ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ‘নীলকুঠি’দের অবস্থান ১১ দলের মধ্যে দশম। সে তুলনায় ‘বেঙ্গল ব্লুজ’দের অবস্থান কিছুটা শ্রেয়তর, পঞ্চম। কাজেই এই দুই দলের মুখোমুখি লড়াইয়ে যে কে জিততে পারে, সেটা যদি অনুমান করতে বলা হয়, তাহলে নিশ্চিতভাবেই দ্বিতীয় দলের পক্ষেই বাজি ধরার লোক হওয়ার কথা বেশি। কিন্তু বৃহস্পতিবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ‘মান্যবর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ’ ফুটবলে তেমন দৃশ্য দেখা গেল না। এমনকি উল্টো দৃশ্যও হলো না পরিলক্ষিত। বরং দ্বৈরথ ২-২ গোলে শেষ হলো অমীমাংসিতভাবে। ‘নীলকুঠি’ খ্যাত ফরাশগঞ্জ স্পোর্টিং ক্লাব দুই গোল খেয়েও সব গোল শোধ করে বীরত্বের সঙ্গে। ফলে প্রথমার্ধে ২-১ গোলে এগিয়ে গিয়েও ড্র করার নীল বেদনায় পূর্ণ তিন পয়েন্টের পরিবর্তে মাত্র এক পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছে ‘বেঙ্গল ব্লুজ’ খ্যাত শেখ রাসেলকে। রাসেলের পক্ষে গোল করেন জাহিদ হাসান এমিলি এবং পল এমিল। ফরাশগঞ্জের পক্ষে গোল করেন শাহীনুর রহমান এবং শংকর দাস। ৭ ম্যাচে এটা রাসেলের প্রথম ড্র, পয়েন্ট ১৩। অবস্থান আগের মতোই, পঞ্চম। তাদের সমান পয়েন্ট ঢাকা আবাহনীরও। তবে গোল গড়ে (+৩) এগিয়ে থাকায় আবাহনী আছে চার নম্বরে। আর ৭ ম্যাচে এটা ফরাশগঞ্জের তৃতীয় ড্র, পয়েন্ট ৩। অবস্থান আগের মতোই দশম। মজার ব্যাপার, এটা ফরাশগঞ্জের টানা তৃতীয় ড্র! আগের দুই ম্যাচে তারা ড্র করে চট্টগ্রাম আবাহনী (২-২) এবং ফেনী সকারের (০-০) সঙ্গে।

রাসেলের এই ড্র হতাশাজনক। কেননা প্রায় ১২ কোটি টাকা ব্যয়ে জাতীয় দলের আট ফুটবলারকে দলে ভেড়ানো দলের এমন অবস্থা কোনভাবেই মেনে নিতে পারছেন না দলটির সমর্থকরা। দলের বিদেশী (মন্টেনিগ্রোর) কোচও চেষ্টা করে পারছেন না পয়েন্ট টেবিলে দলকে ওপরের দিকে ওঠাতে। বৃহস্পতিবার ম্যাচ শেষে গ্যালারিতে খেলা দেখতে আসা এক রাসেল সমর্থকের (অতুল হেমন্ত) মতে, দলটি যথেষ্ট ব্যালান্সড হওয়ার পরও এমন অধারাবাহিক... এর কারণ হতে পারে সম্ভবত দলটিতে অন্য কোন সমস্যা আছে। আকিম সাইদের ফ্রি কিকে প্লেসিং করেন ফরোয়ার্ড জাহিদ হাসান এমিলি। বল চলে যায় ফরাশগঞ্জের জালে (১-০)। ২৬ মিনিটে মিডফিল্ডার জাহিদ হোসেনের ক্রস বক্সে পেয়ে তীব্র শটে প্রতিপক্ষ

গোলরক্ষক-অধিনায়ক সুজন চৌধুরীকে পরাস্ত করেন শেখ রাসেলের ক্যামেরুনের ফরোয়ার্ড পল এমিল (২-০)। ৩৪ মিনিটে ব্যবধান কমিয়ে আনতে সক্ষম হয় পুরনো ঢাকার ক্লাব ফরাশগঞ্জ। নাইজিরিয়ান মিডফিল্ডার আকিনইয়েলে পিটারের ক্রসে হেডে গোল করেন মিডফিল্ডার শাহীনূর রহমান (১-২)। বল ধরার আপ্রাণ চেষ্টা ব্যর্থ হয় রাসেল গোলরক্ষক রাসেল মাহমুদ লিটনের।

৭১ মিনিটে আবারও গোল করে ম্যাচে সমতা আনার পাশাপাশি প্রতিপক্ষকে ভড়কে দেয় ফরাশগঞ্জ। কাকতালীয়ভাবে এবারও এই গোলের রূপকার সেই আকিনইয়েলে পিটারই। তার ক্রসে দর্শনীয় শটে প্রতিপক্ষের জাল কাঁপান মিডফিল্ডার শংকর দাস (২-২)। ৮৫ মিনিটে ডান প্রান্ত থেকে জাহিদ হোসেনের শট মাঠের বাইরে পাঠিয়ে দেন ফরাশগঞ্জের গোলরক্ষক। ইনজুরি সময়ে বক্সের খুব কাছেই ফ্রি কিক পায় শেখ রাসেল। কিন্তু জাহিদের ফ্রি কিক বক্সের মধ্যে বিপন্মুক্ত করেন ফরাশগঞ্জের ডিফেন্ডাররা। এর কিছুক্ষণ পরই রাসেলের বক্সে গোলরক্ষকে একা পেয়েও গোল করার সুবর্ণ সুযোগ নষ্ট করেন ফরাশগঞ্জের বদলি ফরোয়ার্ড শাহীনূর ইসলাম শাহিন।

রেফারি মিজানুর রহমান খেলা শেষের বাঁশি বাজালে ড্র করেও জয়ের সমান আনন্দ নিয়ে এবং ড্র করে হারের সমান কষ্ট নিয়ে মাঠ ছাড়ে ফরাশগঞ্জ এবং রাসেল। আজ এবং আগামীকাল প্রিমিয়ার লীগে কোন ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে না। রবিবার বড় ম্যাচে সন্ধ্যা ৬টায় শেখ জামালের মুখোমুখি হবে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্র।

প্রকাশিত : ৮ মে ২০১৫

০৮/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: