কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

স্ত্রীসহ মান্নান খান এবং কক্সবাজারের বদির বিরুদ্ধে চার্জশিট অনুমোদন

প্রকাশিত : ৬ মে ২০১৫, ০২:৫৯ পি. এম.

স্টাফ রিপোর্টার॥ অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে সাবেক গৃহায়ণ ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী আব্দুল মান্নান খান ও তার স্ত্রী সৈয়দা হাসিনা সুলতানার বিরুদ্ধে পৃথক ২টি মামলার চার্জশিট দাখিলের অনুমোদন দিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এছাড়া একই অভিযোগে কক্সবাজার-৪ আসনে সরকারদলীয় সাংসদ আবদুর রহমান বদির বিরুদ্ধেও চার্জশিট দাখিলের অনুমোদন দিয়েছে দুদক।

বুধবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় দুদকের কার্যালয়ে কমিশনের বৈঠকে এসব মামলার চার্জশিট অনুমোদন দেওয়া হয় বলে নিশ্চিত করেন দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য।

এর আগে গত বছরের ২১ আগস্ট মান্নান খানের বিরুদ্ধে ৭৯ লাখ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জন ও হাসিনা সুলতানার বিরুদ্ধে ৩ কোটি ৪৫ লাখ ৫ হাজার ৬৪০ টাকার সম্পদ অর্জন ও সম্পদের তথ্য গোপনের অভিযোগে মামলা করে দুদক।

দুদকের চার্জশিটে বলা হয়, আব্দুল মান্নান নিজ নামে ২ কোটি ২২ লাখ ৯৬ হাজার ৩১৬ টাকার স্থাবর সম্পদ ও ৯৩ লাখ ৫ হাজার ৩৬২ টাকার অস্থাবর সম্পদ অর্থাৎ মোট ৩ কোটি ১৬ লাখ ১ হাজার ৬৭৮ টাকার সম্পদের হিসাব দেন। তার এ সম্পদের মধ্যে ৭৯ লাখ টাকার সম্পদের তথ্য গোপন করার প্রমাণ পায় দুদক। যা দুদক আইন ২০০৪ এর ২৬ (২) ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

অন্যদিকে তার স্ত্রী হাসিনা সুলতানা ৩ কোটি ৪৫ লাখ ৫ হাজার ৬৪০ টাকার জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জন করেছেন যা যা দুর্নীতি দমন কমিশন আইন-২০০৪ এর ২৬(২) এবং ২৭(১) ধারায় শাস্তিমূলক অপরাধ।

প্রসঙ্গত, দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের হলফনামায় উল্লিখিত অস্বাভাবিক সম্পদ বিবরণীর সূত্র ধরে গত বছর ২২ জানুয়ারি মান্নান খান দম্পতির বিরুদ্ধে অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেয় দুদক। নির্বাচনে পরাজিত মান্নান খান হলফনামায় ১১ কোটি ৩ লাখ টাকার সম্পদ রয়েছে বলে উল্লেখ করেন। অথচ নবম সংসদের হলফনামায় তার সম্পদের পরিমাণ ছিল মাত্র ১০ লাখ ৩৩ হাজার টাকা। গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী থাকাকালে পাঁচ বছরে তার সম্পদ বাড়ে ১০৭ গুণ।

প্রকাশিত : ৬ মে ২০১৫, ০২:৫৯ পি. এম.

০৬/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: