কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

রুবেল আউট আবুল ইন

প্রকাশিত : ৫ মে ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বরাবরই বাংলাদেশ ক্রিকেট বাঁহাতি স্পিনারদের ওপর নির্ভরশীল। এমনটাই আগে যে কোন সফরকারী দল হিসেব করে পরিকল্পনা সাজাতেন। তবে সেই পরিস্থিতি পাল্টে দিয়েছেন রুবেল হোসেন। বাংলাদেশ দলের পেস বিভাগও এখন সমীহ করার মতো শুধু তাঁর কারণেই। যদিও পেস বিভাগের অন্যতম ভরসা রুবেল খুলনায় প্রথম টেস্টে তেমন সুবিধা করতে পারেননি। কোন উইকেট শিকার করতে পারেননি। বুধবার মিরপুরে শুরু হতে যাওয়া দ্বিতীয় টেস্টে নামাই হচ্ছে না তাঁর। খুলনা টেস্টে ফিল্ডিংয়ের সময় শরীরের বাঁ পাশ এবং কাঁধে ব্যথা পেয়েছিলেন। শরীরর বাঁ পাশের পেশীতে টান ধরায় তিনি ছিটকে গেছেন দ্বিতীয় টেস্টের দল থেকে। সেই সুবাদে টেস্ট দলে ফিরেছেন আরেক পেসার আবুল হোসেন রাজু। খুলনায় কাঁধে আঘাত পাওয়ার পর রুবেলের বিষয়ে জানানো হয়েছিল তেমন কোন শঙ্কা নেই তাঁর খেলা নিয়ে। এ কারণে রবিবার দ্বিতীয় টেস্টের জন্য ঘোষিত দলেও রাখা হয়েছিল রুবেলকে। তবে এমআরআই করানোর পর সোমবার নিশ্চিত করা হয়েছে ঢাকা টেস্টে খেলা হবে না তাঁর। এ বিষয়ে জাতীয় দলের ফিজিও বায়েজেদুল ইসলাম বলেন, ‘স্ক্যানের রিপোর্টে নিশ্চিত হয়েছে রুবেলের গ্রেড-১ পর্যায়ের সাইড স্ট্রেইন হয়েছে। সাধারণত এ ধরনের ইনজুরি থেকে পুরোপুরি সেরে উঠতে ৩-৪ সপ্তাহ সময় লাগে। এ কারণে তাঁকে পুনর্বাসন প্রক্রিয়ার মধ্যে থাকতে হবে।’

রুবেলের ইনজুরি আবারও টেস্ট দলে ফেরার দ্বারোন্মুক্ত করেছে রাজুর জন্য। দুই বছর পর আবার টেস্ট খেলার সুযোগ তাঁর। সর্বশেষ ২০১৩ সালের মার্চে শ্রীলঙ্কা সফরে ডানহাতি এ পেসার কলম্বো টেস্টে খেলেছিলেন। এবার পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচ খেলেছিলেন রাজু। ওই ম্যাচে বেধড়ক পিটুনি খেয়েছিলেন। তবে চলমান প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেট আসর বাংলাদেশ ক্রিকেট লীগের (বিসিএল) শেষ ম্যাচে চার উইকেট পাওয়ার কারণে টেস্ট দলে ঠাঁই করে নিলেন তিনি। ৩ টেস্ট খেলে মাত্র ৩ উইকেট পেলেও ব্যাট হাতে দারুণ ইনিংস উপহার দেয়ার বাড়তি সামর্থ্য রয়েছে রাজুর। খুলনায় ২০১২ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ১১৩ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস খেলে নজর কেড়েছিলেন তিনি।

চেন্নাইর সহজ জয়

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আইপিএলে সোমবার রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর বিপক্ষে ২৪ রানের সহজ জয় পেয়েছে মহেন্দ্র সিং ধোনির চেন্নাই সুপার কিংস। চিপকে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেটে ১৪৮ রানের স্কোর গড়ে চেন্নাই। জবাবে ১৯.৪ ওভারে ১২৪ রানে অলআউট হয় বিরাট কোহলির ব্যাঙ্গালুরু। দশম ম্যাচে সপ্তম জয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে চেন্নাই।

শুরুতেই ওপেনার ডোয়াইন স্মিথকে (০) হারিয়ে ধাক্কা খায় চেন্নাই। এরপর টপ-অর্ডারে একাধিক কার্যকর ইনিংস দলকে সম্মানজনক সংগ্রহ এনে দেয়। ৪৬ বলে ৫ চার ও ১ ছক্কায় সর্বোচ্চ ৫২ রান করে আউট হন সুরেশ রায়না। ব্রেন্ডন ম্যাককুলাম ১৫ বলে ২০, অধিনায়ক ধোনি ১৮ বলে ২৯ ও ডুপ্লেসিস করেন ২০ বলে ২৪ রান। ব্যাঙ্গালুরুর হয়ে মিচেল স্টার্ক ৩টি, ডেভিড ওয়াইজ ও হার্ষা প্যাটেল নেন ২টি করে উইকেট।

ব্যাঙ্গালুরুর হয়ে এক কোহলি ছাড়া আর কেউ বড় ইনিংস খেলতে পারেননি। ৪৪ বলে ২ চার ও ১ ছক্কায় ৪৮ রান করে সাজঘরে ফেরেন অধিনায়ক। এছাড়া এবি ডিভিলিয়ার্সের ১৪ বলে ২১, দিনেশ কার্তিকের ২০ বলে ২৩ উল্লেখ্য। চেন্নাইর আশিষ নেহরা ৩টি, ঈশ্বর পান্ডে ও ডোয়াইন ব্রাভো নেন ২টি করে উইকেট।

স্কোর ॥ চেন্নাই ১৪৮/৯ (২০ ওভার; রায়না ৫২, ধোনি ২৯, ডুপ্লেসিস ২৪; স্টার্ক ৩/২৪, প্যাটেল ২/১৯, ওয়াইজ ২/২৯), ব্যাঙ্গালুরু ১২৪/১০ (১৯.৪ ওভার; কোহলি ৪৮, কার্তিক ২৩, ডিভিলিয়ার্স ২১; নেহরা ৩/১৯, ঈশ্বর ২/২৮)।

ফল ॥ চেন্নাই ২৪ রানে জয়ী।

ম্যাচসেরা ॥ রায়না (চেন্নাই)।

প্রকাশিত : ৫ মে ২০১৫

০৫/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: