মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

অপমানিত পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটাররা

প্রকাশিত : ৫ মে ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ খুলনা টেস্টে পাক পেসার ওয়াহাব রিয়াজের সঙ্গে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময়ে জড়িয়ে পড়েছিলেন বাংলাদেশ অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। সে জন্য সাকিবকে জরিমানা করা হয়েছে। ম্যাচ ফি’র ৩০ শতাংশ কেটে নেয়া হবে সাকিবের। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সংস্থা (আইসিসি) এক মেইল বার্তায় এমনটিই জানিয়েছে। সাকিবের সঙ্গে পেসার ওয়াহাব রিয়াজেরও সমপরিমাণ জরিমানা হয়েছে। তবে আইসিসি যে শাস্তিই সাকিব-রিয়াজকে দিক, দুইজনের কথা কাটাকাটিতে অপমানিতই বোধ করছেন পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটাররা।

খুলনা টেস্টের পঞ্চম দিনে ওয়াহাব-রিয়াজের সঙ্গে বেশ উত্তপ্ত বাক্যবিনিময় হয় সাকিবের। যা টিভি ক্যামেরাতে ধরা পড়েছিল। আইসিসির নিয়ম ভাঙ্গায় শেষ পর্যন্ত তাদের জরিমানা দিতে হবে। বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের মধ্যে শনিবার খুলনাতে ড্র হওয়া প্রথম টেস্টের সাকিব ও রিয়াজ একে অপরের সঙ্গে তর্কে লিপ্ত হন। ম্যাচের পঞ্চম ও শেষ দিনে যখন ম্যাচ নিশ্চিত ড্র’র পথে এগিয়ে গেছে, তখন ১১৮তম ওভারে রিয়াজ ও সাকিব একে অপরের প্রতি আঙ্গুল তুলে তর্কে লিপ্ত হন। এ সময় পাকিস্তান অধিনায়ক মিসবাহ উল হক এগিয়ে এসে পরিস্থিতি সামাল দেয়ার চেষ্টা করেন। পরবর্তীতে আম্পায়ার র্যা নমোর মার্টিনেজ এসে উভয়ের সঙ্গে কথা বলে পরিস্থিতি ঠা-া করেন। একদিন পরই আইসিসি দুইজনকেই শাস্তি দেয়।একটা সময় ছিল, যখন বাংলাদেশ ক্রিকেটারদের ওপর উত্তপ্ত বাক্যবিনিময় করত পাকিস্তান। কিন্তু বাংলাদেশ ক্রিকেটাররা তা মুখ বুঝেই সহ্য করত। এখন দিন বদলে গেছে। বাংলাদেশের কোন ক্রিকেটারই বিশ্বের কোন ক্রিকেটারকে যে ছাড় দেবে না, তা বুঝিয়ে দিয়েছেন সাকিব। এমনকি আঙ্গুল তুলেই ওয়াহাব রিয়াজের বাক্যের প্রতিবাদ জানিয়েছেন সাকিব। পাকিস্তান ক্রিকেটের কী দুর্দশাই না হয়েছে। এমন দুর্দশায় পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটাররাও অপমান বোধ করছেন। পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার রমিজ রাজা ও মোহাম্মদ ইউসুুফ যেন এমন কা-ে অপমান বোধ করছেন। বাংলাদেশের কোন ক্রিকেটারই যে এর আগে কখনই কোন পাকিস্তান ক্রিকেটারকে শাসাতে পারেননি। তাই রমিজ রাজা বলেছেন, ‘পাকিস্তান ক্রিকেটে এমন দিনও এসে পড়ল যে বাংলাদেশের কেউ এমন চোখ গরম করে শাসানোর সাহস পাচ্ছে!’ মোহাম্মদ ইউসুফ বলেন, ‘হ্যাঁ, এমন দিন যে এসেছে, এর পেছনে কারণও আছে। ওদের (বাংলাদেশের) ক্রিকেট বোর্ড গত ৫-৬ বছর ধরে সঠিক পরিচর্যা করে এসব আত্মবিশ্বাসী ক্রিকেটারদের গড়ে তুলেছে। আমাদের দল যেখানে ক্রমাগত নিচের দিকে যাচ্ছে, ওদের দল উপরে উঠছে। এই ঘটনা আমি দেখেছি। এর আগে জীবনে কখনও এমন হয়নি যে বাংলাদেশের কেউ আমাদের সঙ্গে এভাবে কথা বলেছে!’ বাংলাদেশ দল যে এখন পৃথিবীর কাউকেই ছেড়ে কথা বলতে রাজি নয় তা সাকিবের ওই আচরণেই পরিষ্কার। দিন যে আসলেই বদলাচ্ছে তারও প্রমাণ মিলছে!

প্রকাশিত : ৫ মে ২০১৫

০৫/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: