রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

কাঁচা আমের উপকারিতা

প্রকাশিত : ৪ মে ২০১৫

আম শুধু স্বাদে নয়- নানা গুণেও ভরপুর। আমের গুণ সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য জেনে নিন।

ভিটামিন সি

আমের মধ্যে যথেষ্ট পরিমাণ ভিটামিন সি রয়েছে। ভিটামিন সি নানা রকমভাবে শরীরে রোগ প্রতিরোধক ক্ষমতা গড়ে তুলতে সাহায্য করে।

* ভিটামিন সি অ্যানিমিয়া, কলেরা ও টিবির বিরুদ্ধে ইমিউনিটি গড়ে তোলে। আয়রন এ্যাবজবশনে সাহায্য করে।

* ভিটামিন সি ফ্যাট মেটাবলিজমে সাহায্য করে। তাই আম খেলেই আপনার ওজন বেড়ে যাবে, তা ঠিক নয়। আমের সঙ্গে আইসক্রিম বা মিল্ক ক্রিম মিশিয়ে খেলে অবশ্য আলাদা কথা।

* গরমের সময় বমিভাব ও মাথা ঝিমঝিম করার সমস্যা কম রাখার জন্য ভিটামিন সি সাহায্য করে।

আমের শরবত, আম দিয়ে নানা ধরনের ডেজার্টÑযেমন সুফলে, কাস্টার্ড, পুডিং তৈরি করে খেতে পারেন।

* হলুদ, কমলা, সবুজ রঙের ফল ও সবজির মধ্যে প্রচুর পরিমাণে এ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রয়েছে। হলুদ ও কমলা রঙের মিশ্রণে তৈরি আমে তাই প্রচুর এ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রয়েছে।

* চোখ, ভাল রাখার জন্য বিটা ক্যারোটিন জরুরী। রাতকানা, ড্রাই আইজ, রিফ্র্যাক্টিভ এরর, সফনিং অব কর্ণিয়ার মতো সমস্যা প্রতিরোধ করতে বিটা ক্যারোটিন রয়েছে। চোখ ভাল রাখার জন্য ডায়েটে আম রাখতে পারেন।

* অ্যানিমিয়ায় ভুগলে, আম আপনার জন্য উপকারী। মেনোপজের পরে আয়রনের ঘাটতি পূরণের জন্য আম খেতে পারেন।

* আমে এক ধরনের এনজাইম রয়েছে যা হজমে সাহায্য করে।

অসুখ প্রতিরোধে আম

শুধু আম নয়, আমের অন্যান্য অংশ যেমন আমের পাতা, আমের আঁটিও অসুখ প্রতিরোধ করে।

* আমের আঁটি শুকিয়ে নেয়ার পর গুঁড়া করে নিন। ১ বা দুই গ্রাম এই গুঁড়া পানি বা দইয়ের সঙ্গে মিশিয়ে খেতে পারেন।

* আম গাছের পাতা পরিষ্কার করে ধুয়ে, পানিতে ডুবিয়ে সারারাত রাখুন। পরের দিন পাতা ছেঁকে ওই পানি খান। ব্লাড সুগার লেভেলে ভারসাম্য বজায় রাখতে সাহায্য করবে।

প্রকাশিত : ৪ মে ২০১৫

০৪/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: