মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

ব্রিজটাউনে বোলারদের দিন

প্রকাশিত : ৪ মে ২০১৫
ব্রিজটাউনে বোলারদের দিন

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ প্রথম ইনিংসে ইংল্যান্ডের ২৫৭ রানের জবাবে ১৮৯ রানে অলআউট ওয়েস্ট ইন্ডিজ। স্বাগতিকদের গর্তে ঢুকিয়ে দেয়া ৬ উইকেটÑ জেমস এ্যান্ডারসনকেই বলা যেত দিনের নায়ক। কিন্তু নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ৩৯ রান তুলতে ৫ উইকেট হারিয়ে বসেছে ইংলিশরা! সব মিলিয়ে ব্রিজটাউন টেস্টের দ্বিতীয় দিনে উইকেট পড়েছে ১৮, ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে একদিনে সর্বোচ্চ উইকেট পতনের নতুন রেকর্ড এটি। তবু প্রথম ইনিংসে অধিনায়ক কুকের দৃঢ়তায় আড়াই শ’ পেরোনো ইংল্যান্ডের লিড ১০৭ রানের। দ্বিতীয় ইনিংসে গ্যারি ব্যালান্স ব্যাট করছেন ১২ রান নিয়ে, ব্যক্তিগত শূন্য রানে সঙ্গী বেন স্টোকস। দ্বিতীয় ম্যাচ জেতে তিন টেস্টের সিরিজে ১-০তে এগিয়ে ইংলিশরা। প্রথম ম্যাচ ছিল অমীমাংসিত।

জেমস এ্যান্ডারসন-জেরমো টেইলরদের সৌজন্যে ব্রিজটাউনে অন্যরকম দিনই দেখল ক্রিকেটবিশ্ব। ব্যাটসম্যানদের আসহয়ত্বের বিপরীতে যেখানে ছিল কেবলই বোলারদের উল্লাস। ৭ উইকেটে ২৪০ রান নিয়ে শুরু করা ইংল্যান্ড ১৭ রান যোগ করতেই হারায় বাকি ৩ উইকেট। ইনিংসের শেষ দুই বলে স্টুয়ার্ট ব্রড ও এ্যান্ডারসনকে তুলে নেন টেইলর। ফলে আগের দিন আউট হওয়া কুকের ১০৫ রানই হয়ে থাকে সর্বোচ্চ। ২৬৬ বলে ১২ চারের সাহায্যে ১০৫ রান করেন তিনি। দুই বছর পর ক্যারিয়ারের ২৬তম টেস্ট সেঞ্চুরির দেখা পান ইংল্যান্ড অধিনায়ক। দেশের হয়ে রেকর্ড সর্বাধিক সেঞ্চুরির মালিক লিডসে ২০১৩ সালের ২৪ মে পেয়েছিলেন আগের সেঞ্চুরি।

প্রতিপক্ষকে আয়ত্তের মধ্যে রাখার আনন্দ বেশি সময় উপভোগ করতে পারেনি স্বাগতিকরা। এ্যান্ডারসন ঝড়ে ল-ভ- দিনেশ রামদিনের দল। খাতা খোলার আগেই ওপেনার কার্ক ব্রেথওয়েটকে তুলে নিয়ে শুরু করেন ইংলিশ ইতিহাসের সর্বাধিক উইকেটের মালিক। ক্যারিয়ারের প্রথম টেস্ট খেলতে নামা শাই হোপকেও ডুবতে হয় এ্যান্ডারসন বিভীষিকায়। ৫ রান করা বার্বাডিয়ানকে কুকের হাতে ক্যাচ বানিয়ে সাজঘরে ফেরান ইংল্যান্ড পেসার। ৯ রান করা ড্যানের ব্রাভোকে তুলে নেন স্পিনার মঈন আলি। সমান রানে মারলন স্যামুয়েলস যখন এ্যান্ডারসনের তৃতীয় শিকারে পরিণত হন ১৬তম ওভারে ৪ উইকেটে ইংল্যান্ডের রান ৩৭। বিধ্বস্ত ক্যারিবীয়দের টেনে তুলতে মরিয়া চেষ্টা চালান শিবনরায়ণ চন্দরপল ও প্রতিভাবান ব্ল্যাকউড। পঞ্চম উইকেটে ১২ ওভারে সর্বোচ্চ ৪৫ রান যোগ করেন তারা।

২৫ রান করা অভিজ্ঞ চন্দরপলকে সাজঘরে পাঠান অকেশনাল জো রুট। স্রোতের বিপরীতে ঝলসে ওঠা ব্ল্যাকউডকে ফেরান সুপার এ্যান্ডারসন। ইনিংসের শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে ৮৮ বলে ৮৫ রানের আক্রমণাত্মক ইনিংস খেলে মঈনের হাতে ক্যাচ তুলে দেন প্রথম টেস্টের সেঞ্চুরিয়ান। তার আগে ব্রড-স্টোকস ও এ্যান্ডারসন তোপে একে একে বিদায় নেন অধিনায়ক দিনেশ রামদিন (১৩), ওয়ানডে সেনাপতি জেসন হোল্ডার (৫) ও বীরাস্বামী পারমল (১৮)। ৮ বলে ১৫ রান করা টেইলরকে বোল্ড করে স্বাগতিকদের প্রথম ইনিংসে শেষ পেরেকটি ঠুকে দেন এ্যান্ডারসনই। ইংলিশ সুইং-মাস্টারের বোলিং ফিগার ১২.৪-৫-৪২-৬। ১০২ টেস্টের ক্যারিয়ারে ১৭তম বারের মতো ইনিংসে ৫ উইকেট তুলে নিলেন ৩০ বছর বয়সী ডানহাতি পেসার।

এখানেই শেষ নয়। ৬৮ রানে এগিয়ে শুরু করা ইংল্যান্ডও দ্বিতীয় ইনিংসে পড়ে ক্যারিবীয়দের বোলিং-তোপের মুখে। ২১ ওভারে ৩৯ রান তুলেত শীর্ষ ৫ ব্যাটসম্যান সাজঘরে! সর্বোচ্চ ১২ রান নিয়ে ব্যাট করছেন ব্যালান্স। জোনাথন ট্রট ৯, অধিনায়ক কুক ৪, ইয়ান বেল ০, দ্বিতীয় টেস্টের নায়ক রুট ১ ও মঈন ফেরেন ৮ রান করে। উইন্ডিজের হয়ে টেইলর ২ এবং শ্যানন গ্যাব্রিয়েল, হোল্ডার ও পারমল প্রত্যেকে নেন ১টি করে উইকেট।

স্কোর ॥ ইংল্যান্ড প্রথম ইনিংস ২৫৭/১০ (৯৬.৩ ওভার; কুক ১০৫, মঈন ৫৮, রুট ৩৩, ব্যালান্স ১৮, স্টোকস ২২, ব্রড ১০; টেইলর ৩/৩৬, গ্যাব্রিয়েল ২/৪৭, হোল্ডার ২/৩৪) ও দ্বিতীয় ইনিংস ৩৯/৫ (২১ ওভার; ব্যালান্স ১২*, ট্রট ৯, মঈন ৮; টেইলর ২/১৬, গ্যাব্রিয়েল ১/৪, হোল্ডার ১/৭)

ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্রথম ইনিংস ১৮৯/১০ (৪৯.৪ ওভার; ব্ল্যাকউড ৮৫, চন্দরপল ২৫, পারমল ১৮, টেইলর ১৫, রামদিন ১৩; এ্যান্ডারসন ৬/৪২, ব্রড ১/৩১, রুট ১/৩৪)

** দ্বিতীয় দিন শেষে

প্রকাশিত : ৪ মে ২০১৫

০৪/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: