মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

শেখ জামাল বদলা নিতে ব্যর্থ

প্রকাশিত : ৩ মে ২০১৫
  • শেখ জামাল - ব্রাদার্স

রুমেল খান ॥ এক দলের জন্য ম্যাচটি ছিল প্রতিশোধ নেয়ার, আরেক দলের জন্য ছিল পয়েন্ট সংগ্রহের। শেষের দলটির মনোবাসনাই পূর্ণ হলো শনিবার। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ‘মান্যবর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ’ ফুটবলে দিনের প্রথম খেলায় গত লীগের শিরোপাধারী ‘বেঙ্গল ইয়োলোস’ খ্যাত শেখ জামাল ধানমণ্ডি লিমিটেডকে রুখে দিয়েছে ‘অরেঞ্জ ব্রিগেড’ খ্যাত ব্রাদার্স ইউনিয়ন লিমিটেড। ম্যাচের স্কোরলাইন ছিল ০-০। উভয় দলেরই এটি ছিল সপ্তম ম্যাচ। এটি জামালের প্রথম ড্র, পয়েন্ট ১৯। অবস্থান আগের মতোই- শীর্ষে। পক্ষান্তরে এটি ব্রাদার্সের দ্বিতীয় ড্র, পয়েন্ট ১১, তাদের অবস্থানও সেই আগের মতোই- পঞ্চম। শনিবার দিনটা শেখ জামালের জন্য যেন ছিল আসলেই ‘শনি’ময়! একাধিক গোলের সুযোগ নষ্ট করে আক্ষেপের অনলে পুড়তে হয়েছে মারুফুল হকের শিষ্যদের। আর সৈয়দ নইমুদ্দিনের শিষ্যদের জন্য এই ড্র ছিল জয়ের সমতুল্য। কেননা লীগের টপ ফেবারিট দলের কাছ থেকে একটি পয়েন্ট ছিনিয়ে নেয়া তো চাট্টিখানি কথা নয়। সেই অসাধ্য সাধনই করে দেখাল তারা।

গত লীগে জামাল যে অপরাজিত লীগ চ্যাম্পিয়ন হতে পারেনি, এর জন্য দায়ী ব্রাদার্স! জামাল সেবার একমাত্র হেরেছিল গোপীবাগের এই ব্রাদার্সের কাছেই! বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ২০১৪ সালের ১৯ জুনের তৃতীয় লেগের ওই ম্যাচে রুবেলের গোলে (১-০) ব্রাদার্সের কাছে মাথানত করেছিল ‘বেঙ্গল ইয়োলোস’ খ্যাত জামাল। সেই হারের প্রতিশোধ নিতে ব্যর্থ হলো জামাল।

৩৪ মিনিটে ডি বক্সের চার গজ দূরে ফ্রি কিক পায় জামাল। গাম্বিয়ান মিডফিল্ডার ল্যান্ডিং ডার্বোয়ের শট ব্রাদার্সের বক্সে পেয়ে শট করতে গেলে প্রতিপক্ষ ডিফেন্ডাররা বল বাইরে পাঠান। প্রথমার্ধের মতো দ্বিতীয়ার্ধেরও প্রায় পুরো সময় ধারাবাহিকতা বজায় রেখে জামালকে আটকে রেখে মাঝেমধ্যেই পাল্টা আক্রমণ শাণায় ব্রাদার্স। ৬৬ মিনিটে বল নিয়ে জামালের বক্সে ঢুকে পড়েন ব্রাদার্সের নাইজিরিয়ান ফরোয়ার্ড কেস্টার এ্যাকন। ছোট বক্সে ঢুকে শট নেন। কোনক্রমে বল সরিয়ে গোল হজমের হাত থেকে দলকে বাঁচান জামালের ডিফেন্ডাররা। ম্যাচের অন্তিম সময়ে জামালের ল্যান্ডিং বল নিয়ে বক্সে ঢুকে শট নিলেও বল বারে লেগে মাঠের বাইরে চলে যাওয়ায় কাক্সিক্ষত গোলের দেখা পায়নি শেখ জামাল। আজ বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে দুটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম ম্যাচে বিকেল সোয়া চারটায় ঢাকা মোহামেডানের মুখোমুখি হবে ফেনী সকার ক্লাব। পরের ম্যাচে সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় টিম বিজেএমসির মুখোমুখি হবে শেখ রসেল ক্রীড়া চক্র লিমিটেড।

অনেকেই বলছেন, এবার শেখ জামাল পয়েন্ট টেবিলের এক নম্বরে থাকলেও তারা নিজেদের সুনাম অনুযায়ী খেলছে না। প্রায় প্রতিম্যাচেই বিপক্ষ দল তাদের জালে আগে বল পাঠাচ্ছে। প্রথমার্ধে জঘন্য খেলছে তারা। তবে অভিজ্ঞতা ও ম্যাচ টেম্পারমেন্টকে কাজে লাগিয়ে দ্বিতীয়ার্ধে বা ম্যাচের শেষদিকে গিয়ে তারা গোল করে জয় কুড়িয়ে নিচ্ছে। তবে শনিবারের ম্যাচে এমনটি ঘটেনি। এবারের লীগে জামাল তাদের ছয় ম্যাচে হারিয়েছে- ফরাশগঞ্জকে ৪-১, রহমতগঞ্জকে ২-১, ফেনী সকার ক্লাবকে ২-০, চট্টগ্রাম আবাহনীকে ৪-০, টিম বিজেএমসিকে ২-১ এবং শেখ রাসেলকে ১-০ গোলে। চলমান লীগে ব্রাদার্সের জয়গুলো হচ্ছেÑ ফরাশগঞ্জ (৩-১), ঢাকা মোহামেডান (১-০) এবং মুক্তিযোদ্ধার (৫-২) বিরুদ্ধে। ড্র করেছে বিজেএমসির সঙ্গে (০-০)। আর হেরেছে শেখ রাসেল (১-২) এবং ঢাকা আবাহনীর (০-১) কাছে।

প্রকাশিত : ৩ মে ২০১৫

০৩/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: