কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

বলের মতো দেখতে ফুল বলে দেয় মাসের কী নাম

প্রকাশিত : ৩ মে ২০১৫
বলের মতো দেখতে ফুল বলে দেয় মাসের কী নাম
  • ফুটেছে মে ফ্লাওয়ার

মোরসালিন মিজান ॥ মে মাসে আরও ফুল ফোটে। তবে মে ফ্লাওয়ার একটি-ই। বছরের অন্য কোন সময় এর দেখা মেলে না। যেই না মে মাসের শুরু, অদ্ভুত সুন্দর ফুল ফুটে। এখন সেই মাস। যথারীতি ফুলটি ফোটেছে। বাগানে বাসার ছাদে বেলকনিতে মাথা তুলে সৌন্দর্যের জানান দিচ্ছে মে ফ্লাওয়ার। যারা চেনেন, দেখেই বলে দিচ্ছেন এখন মে মাস! মাসজুড়েই থাকবে প্রিয় এই ফুল।

মে মাসের আগে পরে এগারো মাস ফুলটি দেখা যায় না। এ সময় গাছের কা- শুকিয়ে যায়। গোড়ার অংশটুকু শুধু গাছ হয়ে থাকে। কিন্তু এপ্রিল এলেই পায় নতুন জীবন। পুরোপুরি গাছের আকার ধারণ করে। আর এপ্রিলের শেষের দিকে এসে শুরু হয় ফুল ফোটা। মে মাসে ফুল পূর্ণাঙ্গ আকার ধারণ করে। সে অনুযায়ী এখন উপযুক্ত সময়। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে চোখ মেলে তাকিয়েছে মে ফ্লাওয়ার। আকর্ষণীয় গড়ন ও সৌন্দর্য খুব সহজেই অন্য ফুল থেকে একে আলাদা করে দেয়। উদ্ভিদবিদ দ্বিজেন শর্মা জানান, গোলাকার দেখতে হওয়ায় একে বল লিলিও বলা হয়। একই কারণে বলা হয় গ্লোব লিলি। পাউডার পাফ লিলি, আফ্রিকান ব্লাড লিলি নামেও পরিচিত। মে ফ্লাওয়ার গাছ লম্বায় ১০ মিটার পর্যন্ত হয়ে থাকে। ফুল প্রায় ৩ সে.মি. চওড়া হয়। পাপড়ি ও পুংকেশর অসমান।

মে ফ্লাওয়ারের অস্তিত্ব প্রথম চোখে পড়ে আফ্রিকা মহাদেশে। বর্তমানে পৃথিবীর অনেক দেশেই হয়। ফুলটি বাংলাদেশেও আছে বহুকাল ধরে। ঠিক এই মুহূর্তে রাজধানী ঢাকার বিভিন্ন উদ্যান ও বাসার ছাদে এর দেখা মিলছে।

অবসরপ্রাপ্ত সরকারী কর্মকর্তা জি এম মঈনুদ্দীন ও মেভিস জেসমিন দম্পতির মনিপুরিপাড়ার বাসায় প্রবেশ করার সময় যেন স্বাগত জানায় মে ফ্লাওয়ার। সেখানে গিয়ে দেখা যায়, বাসার সামনের খোলা জায়গায় ছোট্ট বাগান। বেশ কিছু টব। মৌসুমী ফুল আছে। তবে বিশেষ দৃষ্টি কাড়ে মে ফ্লাওয়ার। একটি ছোট্ট টবে তিনটি হালকা লাল রং ফুল। আকারে ক্রিকেট বলের চেয়ে বড়। প্রথম দেখায় মনে হয়, পুরোটা কাটায় ঘেরা। আদতে তা নয়। পুংকেশর সামান্য ছুঁয়ে দিতেই সেটি বোঝা গেল। আঙুলের ডগায় ওঠে এলো ছিটেফোটা হলুদ রং। সব মিলিয়ে সুন্দর। জি এম মঈনুদ্দীন জানান, একটি ফুল মে মাস শুরুর দুই দিন আগেই ফুটেছিল। একটু একুট করে পূর্ণাঙ্গ চেহারা পেয়েছে। ততদিনে ফুটে গেছে দ্বিতীয়টি। আর শনিবার সকালে ঘুম থেকে ওঠতেই দেখা মিলল তৃতীয়টির। মেভিস জেসমিন জানান, বাগানে অন্য অনেক ফুল থাকলেও মে মাসে এই ফুলটির জন্য অপেক্ষা করে থাকেন। প্রতিটি ফুল এক সপ্তাহর মতো থাকে। তবে একটি ঝরে যেতে যেতে আরও ফুটতে থাকে। ফলে বেশ কিছুদিন দেখা যায় মে মাসের অতিথিকে।

প্রকাশিত : ৩ মে ২০১৫

০৩/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: