কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

করিমগঞ্জে অন্তঃসত্বা গৃহবুধূকে পুড়িয়ে মারার চেষ্টা, দেবর আটক

প্রকাশিত : ২ মে ২০১৫, ০২:৩৮ পি. এম.

নিজস্ব সংবাদদাতা, কিশোরগঞ্জ॥ করিমগঞ্জে ৪ মাসের অন্তঃসত্বা গৃহবধূ পাপিয়া আক্তারকে (২৮) তার শ্বশুর, শ্বাশুড়ি ও দেবর কেরোসিন ঢেলে আগুনে পুড়িয়ে মারার চেষ্টা চালিয়েছে। এতে ওই গৃহবধূর শরীরের অর্ধেকেরও বেশি অংশ পুড়ে গেছে। তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকার বার্ণ ইউনিটে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় দেবর মাশিকুল হককে এলাকাবাসী আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। আজ সকাল সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার নোয়াবাদ ইউনিয়নের উলুখলা গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে।

পুলিশ ও সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র জানায়, ২০১৪ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারি কিশোরগঞ্জের মিঠামইন উপজেলার ঘাগড়া গ্রামের কৃষক নজির মিয়ার মেয়ে পাপিয়া আক্তারের সঙ্গে করিমগঞ্জ উপজেলার নোয়াবাদ ইউনিয়নের উলুখলা গ্রামের আনোয়ারুল হক খোকনের ছেলে আশিকুল হকের বিয়ে হয়। এর আগে মোবাইল ফোনে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বিয়ের পর থেকে স্বামীর পরিবারের লোকজনের সাথে পাপিয়া আক্তারের বনিবনা হচ্ছিল না। তাদের দাম্পত্য কলহের বিষয়ে এলাকায় একাধিকবার শালিস-দরবারও হয়েছে।

অগ্নিদগ্ধ পাপিয়া আক্তার হাসপাতালের জরুরি বিভাগে প্রাথমিক চিকিৎসারত অবস্থায় জানান, দু’জনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক হয়ে বিয়ে হওয়ায় স্বামীর বাড়ির লোকজন এ বিয়ে সহজভাবে মেনে নেয়নি। এক পর্যায়ে স্বামীও তাদের পক্ষ নিয়ে তাকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করত। শনিবার সকালে স্বামীর অনুপস্থিতিতে শ্বশুর আনোয়ারুল হক খোকন, স্বাশুড়ি পারুল আক্তার ও দেবর মাশিকুল হক তার মুখে রুমাল চেপে জোরপূর্বক গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। পরে এলাকাবাসী এগিয়ে এসে তাকে উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে আসে।

জেলা হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাঃ পারভেজ আহমেদ জানান, অগ্নিদগ্ধ গৃহবধূর শরীরের অর্ধেকেরও বেশি অংশ পুড়ে গেছে। রোগীকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ঢাকার বার্ণ ইউনিটে রেফার্ড করা হয়েছে।

করিমগঞ্জ থানার ওসি বজলুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে জানান, এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে দেবর মাশিকুল হককে আটক করা হয়েছে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

প্রকাশিত : ২ মে ২০১৫, ০২:৩৮ পি. এম.

০২/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: