আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

বেয়ার্নকে হারিয়ে ফাইনালে বরুসিয়া

প্রকাশিত : ৩০ এপ্রিল ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ট্রেবল জয়ের স্বপ্ন ভেস্তে গেছে বেয়ার্ন মিউনিখের। মঙ্গলবার রাতে জার্মান কাপের সেমিফাইনালে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের কাছে হারের জ্বালায় জ্বলতে হয়েছে পেপ গার্ডিওলার দলকে। মিউনিখের এ্যালিয়েঞ্জ এ্যারানায় দু’দলের নির্ধারিত ৯০ মিনিটের খেলা ১-১ গোল অমীমাংসিত থাকে। এরপর অতিরিক্ত ৩০ মিনিটেও গোলের দেখা পায়নি কোন দল।

এরপর ভাগ্যনির্ধারণী টাইব্রেকারে গড়ায় ম্যাচ। সেখানে নিদারুণ ব্যর্থতার স্বাক্ষর রাখেন বেয়ার্নের ফুটবলাররা। স্পট কিকে চার শট থেকে একটিও গোল করতে পারেনি বাভারিয়ান তারকারা। কিন্তু প্রথম দুটি শট থেকে গোল পাওয়ায় ২-০ ব্যবধানের জয় নিয়ে ফাইনালে উঠে যায় বরুসিয়া ডর্টমুন্ড। সদ্যই বুন্দেসলিগায় শিরোপা জয় নিশ্চিত হওয়া বেয়ার্নের সামনে ছিল তিন শিরোপা জয়ের হাতছানি। কিন্তু কাপের সেমি থেকে বিদায় নেয়ায় এখন ডাবল জয়েই দৃষ্টি পেপ গার্ডিওলার দলের। এ জন্য বাভারিয়ানদের জিততে হবে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগের শিরোপা। এ লক্ষ্যে ফাইনালে ওঠার পথে বার্সিলোনার বিরুদ্ধে লড়তে হবে পেপ গার্ডিওলার দলকে। আগামী ৩০ মে জার্মান কাপের ফাইনাল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে বরুসিয়ার প্রতিপক্ষ উলফসবার্গ ও আরমিনিয়া বিয়েলেফেল্ডের মধ্যকার দ্বিতীয় সেমির বিজয়ী দল। নিজেদের মাঠ এ্যালিয়েঞ্জ এ্যারানায় ম্যাচের ২৯ মিনিটে সাবেক ডর্টমুন্ড তারকা রবার্ট লেভানডোস্কির গোলে এগিয়ে যায় বেয়ার্ন। কিন্তু ৭৫ মিনিটে পিয়েরে-এমেরিক আমবামেয়াংয়ের গোলে সমতা ফেরায় অতিথি বরুসিয়া। ফলে সমতাবস্থায় শেষ হয় নির্ধারিত সময়ের খেলা। এরপর অতিরিক্ত সময়েও কোন গোল না হলে ম্যাচ গড়ায় টাইব্রেকারে। সেখানে অধিনায়ক ফিলিপ লাম ও জাবি এ্যালানসো বেয়ার্নের হয়ে প্রথম দুটি শট বারের ওপর দিয়ে মারলে নাটকীয়তা বৃদ্ধি পায়। কিন্তু ইকে গুনডোগান ও সেবাস্টিন কেহল ডর্টমুন্ডের হয়ে প্রথম দুই পেনাল্টিতে গোল করলে চাপে পড়ে বেয়ার্ন। এরপর মারিও গোয়েটজের তৃতীয় শট বরুসিয়ার অস্ট্রেলিয়ান গোলরক্ষক মিশেল ল্যানগেরাক রুখে দিলে হার সময়ের বিষয় হয়ে দাঁড়ায় বাভারিয়ানদের। এরপর ডর্টমুন্ডের অধিনায়ক ম্যাটস হামেলসের শট আটকে দেন বেয়ার্ন গোলরক্ষক নিউয়ের। কিন্তু বেয়ার্নের হয়ে চতুর্থ শট নিতে গিয়ে ব্যর্থ হন নিউয়ের নিজেই। ফলে ফাইনাল নিশ্চিত হয় বরুসিয়ার।

পাল্টা আক্রমণ থেকে ম্যাচের ২৯ মিনিটে পোলিশ তারকা লেভানডোস্কির গোলে এগিয়ে যায় বেয়ার্ন। গত মৌসুমের শেষে ফ্রি ট্রান্সফার উইন্ডোতে তাকে দলে নেয় বাভারিয়ানরা। ৫৫ মিনিটে লেভানডোস্কির আরেকটি শট ক্রসবারে লেগে ফেরত আসলে হতাশ হতে হয় স্বাগতিকদের। কিন্তু ফিরতে বলটি ডর্টমুন্ড ডিফেন্ডার মার্সেল শামেলজারের হাতে স্পষ্টভাবে স্পর্শ করলেও রেফারি পিটার গেজেলমান তা এড়িয়ে যান। ৭৫ মিনিটে পিয়েরে এমেরিক আমবামেয়াং ডর্টমুন্ডকে সমতায় ফেরালে সেমিফাইনালের নাটকীয়তা জমে উঠে। যদিও গোলটি নিয়ে বিতর্ক ছিল। গোলরক্ষক নিউয়েরের হাতে ধরা পড়ার আগে বলটি লাইন ক্রস করেছিল কি না তা নিয়ে বিতর্ক উঠেছে। কিন্তু গোলটিকে বৈধতা দিয়ে রেফারি গোললাইন প্রযুক্তির ব্যবহার কাজে লাগাতে চাননি।

গত চার বছরে এই নিয়ে তৃতীয়বারের মতো জার্মান কাপের ফাইনালে উঠল বরুষিয়া ডর্টমুন্ড। ম্যাচে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড পেয়ে অতিরিক্ত সময়ের দ্বিতীয়ার্ধে মিডফিল্ডার কেভিন কামপেল মাঠ ছাড়লে ডর্টমুন্ড দশজনের দলে পরিণত হয়। জ্যাকব ব্লাসসিজিকোস্কির বদলি হিসেবে ৮৩ মিনিটে মাঠে নামা কামপেল ২৫ মিনিট খেলেন। চ্যাম্পিয়নস লীগের সেমিফাইনালের আগে বেয়ার্ন কোচ পেপ গার্র্ডিওলার সামনে ইনজুরি দুশ্চিন্তা হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে। দলের তারকা স্ট্রাইকার লেভানডোস্কি ম্যাচের শেষ মুহূর্তে ইনজুরিতে পড়েন। এছাড়া ডাচ্ উইঙ্গার আরিয়েন রোবেন ইনজুরি কাটিয়ে একমাস পরে মাঠে ফিরলেও ১৬ মিনিট মাঠে থাকার পর আবারও ইনজুরি আক্রান্ত হন। ফলে মৌসুম শেষ হয়ে গেছে তার।

প্রকাশিত : ৩০ এপ্রিল ২০১৫

৩০/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: