আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

নাছির ও মনজুর-দুজনই বিজয়ে আশাবাদী

প্রকাশিত : ২৮ এপ্রিল ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ ভোটের আগের দিন সোমবার নিজ বাসায় অবস্থান করে সময় কাটালেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত নাগরিক কমিটির মেয়র প্রার্থী আ জ ম নাছির উদ্দিন ও বিএনপি সমর্থিত চট্টগ্রাম উন্নয়ন আন্দোলনের মেয়র প্রার্থী এম মনজুর আলম। প্রচার ও গণসংযোগ বন্ধ থাকায় দিনটি দুই মেয়র প্রার্থীর কেটেছে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে। তবে প্রচারে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও প্রার্থীরা ব্যস্ত থাকেন চূড়ান্ত কর্মকৌশল নির্ধারণে। এদিন অনেক কর্মী সমর্থকই মেয়র প্রার্থীদের বাসায় যান। অবহিত করেন বিভিন্ন এলাকার সর্বশেষ চিত্র। বাসায় থেকেই তাঁরা প্রদান করেন প্রয়োজনীয় নির্দেশনা। সাংবাদিকদের কাছে প্রতিক্রিয়ায় শতভাগ বিজয়ের আশাবাদ ব্যক্ত করেন প্রধান দুই প্রার্থী আ জ ম নাছির ও মনজুর আলম। তবে বিএনপির পক্ষ থেকে এদিনও আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে বহিরাগত সন্ত্রাসী এনে জড়ো করা এবং ভোট কেন্দ্র দখলের নীলনক্সার অভিযোগ আনা হয়েছে।

আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আ জ ম নাছির উদ্দিন সোমবার ভোরে ফজরের নামাজ আদায়ের পর মায়ের পা ছুঁয়ে সালাম করে দোয়া নেন। কোথাও না বেরিয়ে অবস্থান নেন নিজ বাসায়। তবে নেতাকর্মীরা আসতে থাকেন তাঁর বাসভবনে। এ সময় তিনি বিভিন্ন ভোট কেন্দ্রের বিষয়ে অবহিত হন এবং প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদান করেন। তিনি তাঁর কর্মী-সমর্থকদের প্রতি শতভাগ সজাগ থাকার অনুরোধ জানান।

বিজয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদ ব্যক্ত করে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, উন্নয়নের জন্য চট্টগ্রামের মানুষ পরিবর্তন চায়। সাবেক মেয়র এম মনজুর আলম তাঁর আগেকার নির্বাচনে প্রতিশ্রুতি রক্ষা করতে পারেননি। তিনি ব্যর্থ হয়েছেন বলেই নাগরিক কমিটির প্রার্থীর পক্ষে জনজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। তিনি আরও বলেন, আমি ছাত্র জীবন থেকেই রাজনীতি করি। সব সময়ই মানুষের পাশে থেকেছি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে একটি বড় দায়িত্ব দিয়েছেন। মেয়র নির্বাচিত আমি নান্দনিক চট্টগ্রাম নগরী উপহার দেব। আবারও তিনি নগরবাসীর কাছে একটিবারের জন্য সুযোগ প্রার্থনা করে বলেন, আমি আমার দেয়া প্রতিশ্রুতি অক্ষরে অক্ষরে পালন করব।

বিএনপি সমর্থিত চট্টগ্রাম উন্নয়ন আন্দোলনের মেয়র প্রার্থী এম মনজুর আলমও সোমবার অবস্থান করেন নিজ বাসভবনে। তবে কোথাও না বেরুলেও তাঁর বাসায় যান বিভিন্ন এলাকার নেতাকর্মী ও সমর্থকরা। তিনি সকলের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন এবং কর্মী সমর্থকদের প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদান করেন। বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান ও নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক আবদুল্লাহ আল নোমান বলেছেন, নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হলে ৮৫ শতাংশ ভোট পেয়ে জয়ী হবেন মেয়র মনজুর আলম। তবে তা বুঝতে পেরে বহিরাগত সন্ত্রাসীদের নিয়ে এসে আওয়ামী লীগ জাল ভোট দেয়ার পরিকল্পনা নিয়েছে। নির্বাচনের জন্য লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি হয়নি বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন, সন্ত্রাসীরা বিভিন্ন এলাকায় পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে বিএনপির স্থানীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকদের হুমকি দিচ্ছে এবং সরকার দলীয় প্রার্থীর পক্ষে সহায়ক ভূমিকা পালন করছেন। নগরীর মেহেদীবাগ এলাকায় মহানগর বিএনপির সভাপতি আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীর বাসভবনে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে নোমান উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগ কেন্দ্র দখলের জন্য বহিরাগত সন্ত্রাসীদের এনে জড়ো করেছে। এ ব্যাপারে প্রশাসন ও নির্বাচন কমিশনকে অভিযোগ করা হলেও কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। তিনি বলেন, ২৫ এপ্রিল রাতের মধ্যে বহিরাগতদের চট্টগ্রাম ছেড়ে যাওয়ার নির্দেশনা থাকলেও তারা যায়নি, বরং উল্টো হাজার হাজার বহিরাগত নগরীতে প্রবেশ করেছে। নগরীর বিভিন্ন রেস্ট হাউস ও আবাসিক হোটেলে বহিরাগতদের রাখা হয়েছে ভোটের দিন কেন্দ্রগুলোতে প্রভাব বিস্তারের জন্য। প্রশাসনের সহযোগিতায় চট্টগ্রাম নগরী সন্ত্রাসীদের মিলনমেলায় পরিণত হয়েছে বলে তিনি মন্তব্য করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বন্দর থানা বিএনপির সভাপতি এম এ আজিজ, ওয়ার্ড কাউন্সিলর নিয়াজ মোহাম্মদ খান প্রমুখ।

প্রকাশিত : ২৮ এপ্রিল ২০১৫

২৮/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: