মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

কুড়িগ্রামে খাদ্য কর্মকর্তার দুর্নীতি তদন্তে দুটি কমিটি

প্রকাশিত : ২৭ এপ্রিল ২০১৫
  • অপসারণ দাবি

স্টাফ রিপোর্টার, কুড়িগ্রাম ॥ নাগেশ্বরী উপজেলার সরকারী খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ ফজলুল হকের সীমাহীন দুর্নীতি, অনিয়ম ও স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার মিল-চাতাল মালিকরা তার অপসারণের দাবিতে খাদ্য মন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট বিভাগে অভিযোগ পত্র দিয়েছেন। এ ঘটনায় দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। মিলাররা বলছেন দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা ফজলুল হকের কারণে চলতি ইরি বোর মৌসুমে নাগেশ্বরী উপজেলায় ইরি ধানের সংগ্রহ অভিযান ব্যাহত হবার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। তাদের মতে ঐ কর্মকর্তা মৌসুম এলে নিজেই ব্যবসা করেন নামে বেনামে।

জানা গেছে, মোঃ ফজলুল হক দুই বছর আগে নাগেশ্বরী উপজেলার খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিসেবে যোগদান করেন। গত ২০১৩-১৪ এবং ২০১৪-১৫ বোরো ও আমন সংগ্রহ মৌসুমে নিজের পারিবারিক অসুবিধা এবং খাদ্য সরবরাহে মিলারদের সুবিধা দেয়ার কথা বলে কিছু সংখ্যক মিলারের কাছ থেকে প্রায় ৮ লাখ টাকা কর্জ নেন। পরবর্তীতে তা পরিশোধের কথা থাকলেও নানা অজুহাতে পরিশোধ করেননি। বোরো মৌসুমে চালের গুণগত মান থাকা সত্ত্বেও মিল মালিকদের নিকট থেকে বস্তা প্রতি ৩০ থেকে ৩৫ টাকা আদায় করেন। মিলাররা টাকা দিতে আপত্তি জানালে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে চাল ফেরত দেন। এর আগে ভুরুঙ্গামারী উপজেলার জয়মনির হাট খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন কালে মোঃ ফজলুল হক ভুয়া ডব্লিউকিউএসসি বিল করে ১০ লাখ ৩৫হাজার ১শ’ টাকা আত্মসাৎ করে। পরে নি¤œ স্তরের কর্মচারীর ওপর দোষ চাপিয়ে বিষয়টি ধামাচাপা দেয়। সরকারী কর্মকর্তা হওয়া সত্ত্বে¡ও স্বনামে-বেনামে নিজস্ব পরিবহনে টি.আর, জি.আর ও কাবিখা খাতের মালামাল ক্রয়-বিক্রয় করে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছেন।

এ ব্যাপারে নাগেশ্বরী উপজেলার মিল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের সরকার জানান, ভারপ্রাপ্ত গুদাম কর্মকর্তা ফজলুল হক ধুরন্দর ও দুর্নীতিবাজ। তার স্বেচ্ছাচারিতা ও অনিয়মে আমাদের ব্যবসা লাটে ওঠার উপক্রম হয়েছে।

নাগেশ্বরী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু হায়াত মোঃ রহমতুল্ল্যা জানান, অভিযোগের ভিত্তিতে উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তাকে প্রধান করে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মোঃ আশরাফুজ্জামান জানান, ফজলুল হকের বিরুদ্ধে মিল-চাতাল মালিকদের অভিযোগ পত্র পেয়েছি। বিষয়টি উর্ধতন কর্মকর্তাকে জানানোর পর আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক অফিস থেকে ফজলুল হকের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের বিষয়ে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ভারপ্রাপ্ত খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা মোঃ ফজলুল হক জানান, তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ ষড়যন্ত্র মূলক ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।

প্রকাশিত : ২৭ এপ্রিল ২০১৫

২৭/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: