কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

সৈন্য প্রত্যাহারের দাবি মেনে নিন

প্রকাশিত : ২৬ এপ্রিল ২০১৫
  • হুতিদের প্রতি সালেহর আহ্বান নিহত সহস্রাধিক

ইয়েমেনের দখলকৃত এলাকা থেকে সৈন্য প্রত্যাহারের জাতিসংঘের দাবি মেনে নিতে শিয়া হুতি বিদ্রোহী মিত্রদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির এক সময়ের প্রভাবশালী সাবেক প্রেসিডেন্ট আলী আব্দুল্লাহ সালেহ। তিনি শুক্রবার তার মিত্রদের বলেছেন, দখলকৃত এলাকা থেকে বিদ্রোহী সৈন্যদের সরিয়ে নিন, যাতে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট বিমান হামলা বন্ধ করতে পারে এবং আপোস-মীমাংসা শুরু করা যায়। খবর এএফপি ও ওয়েবসাইটের।

ইয়েমেনের দক্ষিণ ও মধ্য অঞ্চলে শনিবার উপদলগুলোর মধ্যে তীব্র লড়াই চলে। এডেনে হুতি মিলিশিয়া বাহিনীর ওপর বিমান হামলা অব্যাহত থাকে। কিন্তু সঙ্ঘাত নিরসনের লক্ষ্যে সংলাপের কোন নতুন উদ্যোগ নেয়া হয়নি। শনিবারের হামলায় অন্তত ২৭ জন নিহত হয়েছে। জাতিসংঘের তথ্যানুযায়ী, ২৬ মার্চ থেকে যুদ্ধে এক হাজারেরও বেশি লোক নিহত হয়েছে এবং নিহতদের মধ্যে কমপক্ষে ১১৫ জন শিশু রয়েছে। চলতি মাসে নিরাপত্তা পরিষদের প্রস্তাবকে ‘ইয়েমেনে রক্তপাত বন্ধের উপায়’ উল্লেখ করে সালেহ স্বাগত জানিয়েছেন। হুতি বিদ্রোহীদের মিত্র পক্ষত্যাগকারী বিভিন্ন সেনা ইউনিটের ওপর সালেহের নিয়ন্ত্রণ রয়েছে। ইয়েমেনের বিস্তীর্ণ এলাকা এখন হুতি বিদ্রোহীদের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। গত কয়েক মাস ধরে ইয়েমেনে রাজনৈতিক অচলাবস্থা চলছে। গত সেপ্টেম্বরে বিদ্রোহী শিয়া মুসলিম গোষ্ঠী হুতি যোদ্ধারা রাজধানী দখল করে নেয়। এক মাস আগে তারা প্রেসিডেন্টের প্রাসাদ দখল করে প্রেসিডেন্ট আব্দরাব্বু মনসুর হাদি ও তার সরকারকে পদত্যাগে বাধ্য করে। এরপর হাদি গৃহবন্দিত্ব থেকে দক্ষিণাঞ্চলের এডেন নগরীতে পালিয়ে যেতে বাধ্য হন। গত মাসে হুতি ও বিদ্রোহী সেনা ইউনিটের সদস্যরা এডেন নগরীর দিকে অগ্রসর হলে হাদি সৌদি আরব চলে যান। ইয়েমেনের সংঘাত নিয়ে সুন্নি শাসিত সৌদি আরব ও শিয়াপন্থী ইরানের মধ্যে উত্তেজনা বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে ইয়েমেন নিয়ে মধ্যপ্রাচ্য শক্তিগুলোর মধ্যে ছায়াযুদ্ধ শুরু হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। সালেহের পাঠানো বিবৃতি ইয়েমেন টুডে টেলিভিশনে পড়ে শোনানো হয়। বিবৃতিতে তিনি বলেন, আমি জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের সিদ্ধান্ত মেনে নিতে হুতি বিদ্রোহীদের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি যাতে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট বাহিনী তাদের আগ্রাসন বন্ধ করতে পারে। আমি বিভিন্ন প্রদেশ বিশেষ করে এডেন থেকে মিলিশিয়া, আল কায়েদা ও প্রেসিডেন্ট আব্দরাব্বু মনসুর হাদির প্রতি বিশ্বস্ত মিলিশিয়াসহ সকলকে তাদের সৈন্য প্রত্যাহারের আহ্বান জানাচ্ছি। সালেহ প্রস্তাব দেন, প্রত্যেক প্রদেশের স্থানীয় কর্তৃপক্ষের নিয়ন্ত্রণাধীন সেনাবাহিনী ও নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে প্রদেশগুলোর শাসনভার অর্পণ করতে হবে এবং তিনি সব পক্ষকে আলোচনায় বসার ও ক্ষমা প্রদর্শনের আহ্বান জানান। তিনি বলেন, দেশের স্বার্থে আমি সকলকে ক্ষমা করে দেব।

সৌদি আরব ইরানী মিত্র হুতি এবং ইয়েমেনের সাবেক প্রেসিডেন্ট সালেহের অনুগত বাহিনীর ওপর এক মাস ধরে চলমান বোমা হামলা বন্ধ করছে বলে জানিয়ে আসছে। কিন্তু রিয়াদ বৃহস্পতিবার ইয়েমেনের বিভিন্ন স্থানে ২০ বার এবং শুক্রবার আরও দশবার লক্ষ্যস্থলগুলোর ওপর বিমান থেকে বোমা বর্ষণ করে। সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের বিমান হামলার সমর্থক ওয়াশিংটন ও অন্যান্য পশ্চিমা দেশ ইয়েমেনের মানবিক সঙ্কট নিয়ে ক্রমশ উদ্বেগ বোধ করেছে। সুন্নি মুসলিম জিহাদী দলগুলো অরাজকতার সুযোগ নেয়ার যে ঝুঁকি দেখা দিয়েছে, তাতেও তারা চিন্তিত। ইসলামিক স্টেট বৃহস্পতিবার এক ভিডিও প্রচার করে ইয়েমেনে দলটির সদস্যদের সামরিক প্রশিক্ষণ নেয়া এবং হুতিদের ওপর আক্রমণ চালানোর সংকল্প নেয়ার দৃশ্য দেখানো হয়।

প্রকাশিত : ২৬ এপ্রিল ২০১৫

২৬/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: