মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

সেঞ্চুরি- স্যামুয়েলস, রুটের পর ব্রেথওয়েট

প্রকাশিত : ২৬ এপ্রিল ২০১৫
  • গ্রানাডা টেস্ট

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ সিরিজের জন্য ঘোষিত টেস্ট দল দেখে অনেকে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে অবহেলা করেছেন। ক্রিস গেইল-ড্যারেন সামিসহ প্রায় সাত-আটজন নিয়মিত ক্রিকেটার টাকার খেলা ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএলে)- দিনেশ রামদিনকে অধিনায়ক করে গড়া দলটি আসলেই ম্রিয়মাণ। যেখানে পরিষ্কার ফেবারিট সফরকারী ইংল্যান্ড। অথচ এন্টিগায় প্রথম টেস্ট ‘ড্র’ করার পর গ্রানাডায় দ্বিতীয় ম্যাচেও সমান তালে লড়ল ক্যারিবীয়রা। লড়ল এ জন্য যে, সকালে পত্রিকা হাতে পাওয়ার সময় পাঠক দ্বিতীয় টেস্টের ফল জেনে গেছেন, ক্রিকেটের গৌরবময় অনিশ্চয়তা বাদ দিয়ে হয়ত ড্র-ই হয়েছে শেষ পরিণতি! প্রথম ইনিংসে মারলন স্যামুয়েলসের পর দ্বিতীয় ইনিংসে সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন ক্রেইগ ব্রেথওয়েট। বার্বাডিয়ান ওপেনারের অপরাজিত ১০১ রানের সৌজন্যে চতুর্থ দিন শেষে ২ উইকেটে ২০২ রান করা উইন্ডিজের লিড ৩৭ রানের। ২২ রান নিয়ে সঙ্গে আছেন স্যামুলেস। জো রুটের দুরন্ত সেঞ্চুরির ওপর ভর করে প্রথম ইনিংসে স্বাগতিকদের ২৯৯ রানের জবাবে ৪৬৪ রানে অলআউট হয় এ্যালিস্টার কুকের ইংল্যান্ড। শেষ পরিণতি যাই হোক, একের পর এক সেঞ্চুরি গ্রানাডায় আলো ছড়িয়েছেন ভিন্ন সব ব্যাটসম্যান। যার শুরুটা করেছিলেন স্যামুয়েলস (২২৮ বলে ১০৩)। জবাবে সঙ্গীর অভাবে ক্যারিয়ারের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরিটা হয়নি জো রুটের।

প্রতিভাবান ইংলিশ ব্যাটসম্যান অপরাজিত ছিলেন ১৮২ রানে। ২২৯ বলের ক্ল্যাসিক্যাল ইনিংসটি ১৭ চার ও ৪ ছক্কায় সাজানো। প্রথম ইনিংসে ৪৬৪ রানের বড় সংগ্রহের পথে অবশ্য তাঁকে ভাল সঙ্গ দিয়েছেন এ্যালিস্টার কুক (৭৬), জোনাথন ট্রট (৫৯) ও গ্যারি ব্যালান্স (৭৭)। ১৬৫ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুতেই ধাক্কা খায় ক্যারিবীয়রা। ব্যক্তিগত ২ রানে ডেভন স্মিথকে বোল্ড করে সাজঘরে ফেরান জেমস এ্যান্ডারসন। এরপর দ্বিতীয় উইকেটে ১৪২ রানের জুটি গড়ে দলকে শক্ত অবস্থানের দিকে নিয়ে যান ব্রেথওয়েট-ড্যারেন ব্রাভো জুটি। ৬৯ রান করে স্টুয়ার্ট ব্রডের শিকারে পরিণত হন ব্রাভো। ২২ রানে অপরাজিত স্যামুয়েলসকে নিয়ে সেঞ্চুরিয়ান ব্রেথওয়েট মাত্র ৭৫ ওভারে দলের ভা-ারে ২০২ রান যোগ করেন। ২৩০ বলে ১১ চারের সাহায্যে ১০১ রান নিয়ে ব্যাট করছেন ২২ বছর বয়সী ওপেনার। ১৯তম টেস্টে ৬ হাফসেঞ্চুরির বিপরীতে এটি তার চতুর্থ সেঞ্চুরি। ‘দলটিতে তারুণ্যের আধিক্য। আমার কাছে দলের প্রত্যাশা অনেক। কিন্তু আগের ইনিংসগুলোতে ভাল করতে পারিনি। প্রয়োজনের সময় বড় ইনিংস খেলতে পেরে ভাল লাগছে। তবে লক্ষ্য আরও ভাল ক্রিকেট খেলা’- বলেন সেঞ্চুরিয়ান সহঅধিনায়ক ব্রেথওয়েট। সবচেয়ে অভিজ্ঞ শিবনারায়ণ চন্দরপল ব্যাট হাতে নিজের সঙ্গে যুঝছেন। কিংবদন্তিতুল্য তারকা তিন ইনিংসে করেন- ৪৬, ১৩ ও ১ রান!

স্কোর ॥ ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্রথম ইনিংস ২৯৯/১০ (১০৪.৪ ওভার; স্যামুয়েলস ১০৩, ড্যারেন ব্রাভো ৩৫, রামদিন ৩১, বিশু ৩০, গ্যাব্রিয়েল ২০*; ব্রড ৪/২৪, এ্যান্ডারসন ২/৪৭, জর্ডান ২/৬৫) ও দ্বিতীয় ইনিংস ২০২/২ (৭৫ ওভার; ব্রেথওয়েট ১০১*, ড্যারেন ব্রাভো ৬৯, স্যামুয়েলস ২২*; ব্রড ১/২৩, এ্যান্ডারসন ১/২৭)

ইংল্যান্ড প্রথম ইনিংস ৪৬৪/১০ (১৪৪.১ ওভার; রুট ১৮২*, ব্যালান্স ৭৭, কুক ৭৬, ট্রট ৫৯; বিশু ৪/১২৭, গ্যাব্রিয়েল ২/৬৭)। ** চতুর্থ দিন শেষে

প্রকাশিত : ২৬ এপ্রিল ২০১৫

২৬/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: