কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

সওজের জায়গায় বিএনপি নেতা সালাহউদ্দিনের বিলাসবহুল বাড়ি, মার্কেট

প্রকাশিত : ২৬ এপ্রিল ২০১৫
  • কর্তৃপক্ষ নির্বিকার

এইচএম এরশাদ, কক্সবাজার ॥ পেকুয়ায় সরকারী জায়গা জবরদখল করে বাড়ি ও মার্কেট নির্মাণ করেছেন নিখোঁজ বিএনপি নেতা সালাহউদ্দিন আহমেদ। পেকুয়া-চকরিয়া-আনোয়ারা-বাঁশখালী (এবিসি) আঞ্চলিক মহাসড়কের পেকুয়া কলেজের পাশেই সড়ক বিভাগের জায়গা দখল এবং অবৈধ ক্ষমতার প্রভাব বিস্তার করে তিনি দ্বিতল মার্কেট নির্মাণ করেন বলে অভিযোগ রয়েছে। গত ৮ মাস ধরে প্রকাশ্যে সড়কের জায়গায় মার্কেট নির্মাণের কাজ চালিয়ে গেলেও এতে সড়ক বিভাগের কর্মকর্তারা ছিলেন সম্পূর্ণ নীরব। সরকারী সম্পদ রক্ষাকল্পে কোন ধরনের পদক্ষেপ নেয়নি সওজ কর্তৃপক্ষ। স্থানীয়রা অভিযোগ করেছেন, সড়ক বিভাগের লোকজন বাধা দেয়ার পরিবর্তে উল্টো ওই প্রভাবশালী ক্ষমতাধর বিএনপি নেতা সালাহউদ্দিনের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নিয়ে তাড়াতাড়ি কাজ সমাপ্ত করতে উৎসাহ যুগিয়েছেন। এতে সরকারের কয়েক কোটি টাকার ভূ-সম্পদ বেদখলে চলে গেছে।

জানা গেছে, বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম-মহাসচিব, সাবেক যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী ও পেকুয়া সিকদারপাড়া গ্রামের মাওলানা সাঈদুল হকের পুত্র সালাহউদ্দিন আহমেদ অবৈধ ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে পেকুয়া কলেজের সামনে আঞ্চলিক মহাসড়কের পাশে সওজের কয়েক কোটি টাকা মূল্যের জায়গা দখল করে নেন। সেখানে ‘কলেজ মার্কেট’ নামে একটি দ্বিতল মার্কেট নির্মাণ কাজ শুরুর খবর পেয়ে কক্সবাজার সওজ কর্তৃপক্ষ বাঁধা দেয়। সে সময় সালাহউদ্দিন সওজ বিভাগের কতিপয় দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাকে মোটা অঙ্কের টাকায় ম্যানেজ করে নেন বলে জানা গেছে। ইতোমধ্যে মার্কেটের নির্মাণ কাজ শতভাগ শেষ হয়েছে। তবে সালাহউদ্দিন কালো টাকাকে সাদা করতে এটি ডেভেলপার কোম্পানির মাধ্যমে দালান নির্মাণের কাজটি বাস্তবায়ন করেছেন বলে জানিয়েছেন স্থানীয়দের অনেকে।

জানা গেছে, গত ১০ মার্চ বিএনপি নেতা সালাহউদ্দিন ঢাকার উত্তরার একটি বাসা থেকে নিখোঁজের পূর্ব থেকে তিনি নিজে মার্কেটটির নির্মাণ কাজের তদারকি করতেন। কলেজের সামনে মার্কেট নির্মাণ করে শিক্ষার পরিবেশ বিনষ্টের আশঙ্কায় প্রথমে স্থানীয়রা প্রতিবাদমুখর হয়ে উঠলেও পরে অবশ্য ওই বিএনপি নেতার ভয়ে কেউ মুখ খোলার সাহস পায়নি। এছাড়াও সালাহউদ্দিন আহমেদ পেকুয়া হাসপাতালের পাশে ২৪ ফুট খাস জমি এবং ৬৮ ফুট সওজ বিভাগের জায়গা দখলে নিয়ে বিলাসবহুল বাড়ি নির্মাণ করছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। এ বিষয়ে সওজ কর্তৃপক্ষ এবং স্থানীয় উপজেলা প্রশাসন দেখেও না দেখার ভান করে রয়েছে বলে তথ্য মিলেছে। সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, কয়েক কোটি টাকা মূল্যের সরকারী জায়গার ওপর নির্মিত ওই মাকের্টের নিচ তলার প্রায় ৭Ñ৮টি দোকান ৩ লাখ টাকা হারে সেলামী নিয়ে কয়েকজন ব্যবসায়ীকে ভাড়া দিয়েছেন। প্রতিটি দোকান থেকে মাসিক দেড় থেকে দুই হাজার টাকা পর্যন্ত ভাড়া উত্তোলন করে চলছেন সালাহউদ্দিনের ঘনিষ্ট এক লোক। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় এক ব্যক্তি জানান, পেকুয়ায় শহীদ জিয়াউর রহমান উপকূলীয় কলেজের প্রতিষ্ঠাতা হওয়ার সুবাদে কলেজের পাশে বিএনপি নেতা সালাহউদ্দিন প্রকাশ্যে মার্কেট নির্মাণের সুযোগটি হাতছাড়া করেননি। পেকুয়া শহীদ জিয়াউর রহমান উপকূলীয় কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ উবায়দুল হক জানান, মার্কেটটি কলেজের নামে হলেও মূলত তা কলেজের নিয়ন্ত্রণে নেই। বিএনপি নেতা সালাহউদ্দিন আহমদ নিজে বিপুল পরিমাণ অর্থ ব্যয় করে ‘কলেজ মার্কেট’ নামে এটি নির্মাণ করেছেন। কলেজের সামনে মার্কেট নির্মাণে কেন বাধা দেয়া হয়নি জানতে চাইলে অধ্যক্ষ জানান, উনি (সালাহউদ্দিন) মার্কেটের যাবতীয় আয় কলেজের উন্নয়নে ব্যয় করার আশ্বাস দেয়ায় কলেজ কর্তৃপক্ষ বাধা দেননি। এদিকে, বুধবার থেকে কক্সবাজারে চকরিয়া-পেকুয়া আঞ্চলিক মহাসড়কের দুপাশে সওজের জায়গায় অবৈধভাবে গড়ে ওঠা দোকানসহ নানা স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান শুরু করেছে কক্সবাজার সড়ক ও জনপথ বিভাগ। কক্সবাজার সরকারী কলেজের সম্মুখেও সওজের জায়গায় স্থাপিত দোকানপাট উচ্ছেদ করা হয়েছে।

প্রকাশিত : ২৬ এপ্রিল ২০১৫

২৬/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

অন্য খবর



ব্রেকিং নিউজ: