মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ঝিনাইদহে দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণ করেছে মাদ্রাসাছাত্র ॥ পুলিশে দিলেন

প্রকাশিত : ২৬ এপ্রিল ২০১৫

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ ঝিনাইদহের কালীগঞ্জের মোস্তফাপুর গ্রামে দ্বিতীয় শ্রেণীর এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ করেছে মাদ্রাসাছাত্র ইউসুফ আলী। শনিবার সকালে ধর্ষক মাদ্রাসাছাত্র ইউসুফ আলীকে (১৭) তার পিতা আজগর আলী কালীগঞ্জ থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছেন। শিশুটিকে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শিশুটির ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য তিন সদস্যর মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করা হয়েছে। এদিকে, কিশোরগঞ্জের তাড়াইলে তিন স্কুলছাত্রীকে যৌন নিপীড়ন করেছে তিন সন্তানের জনক রোকন উদ্দিন। এ ঘটনায় এলাকায় ক্ষোভ ও অসন্তোষ বিরাজ করছে। এছাড়া কক্সবাজারে এক দারোগার বিরুদ্ধে গৃহবধূকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। খবর স্টাফ রিপোর্টার ও নিজস্ব সংবাদদাতাদের।

কালীগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) ইউনুছ আলী জানান, শুক্রবার সন্ধ্যায় কালীগঞ্জ উপজেলার মোস্তফাপুর গ্রামের আলেক আলীর দ্বিতীয় শ্রেণী পড়ুয়া মেয়ে বাড়ির পাশে সহপাঠীদের সঙ্গে খেলা করছিল। সে সময় প্রতিবেশী আজগর আলীর ছেলে মাদ্রাসাছাত্র ইউসুফ আলী তাকে আম খেতে দেয়ার কথা বলে নিজ বাড়িতে নিয়ে যায়। তাকে ঘরের মধ্যে নিয়ে গামছা দিয়ে মুখ বেঁধে ধর্ষণ করার চেষ্টা করে। শিশুটি চিৎকার করলে প্রতিবেশী ও পরিবারের লোকজন ছুটে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে। লম্পট ইউসুফ আলী দৌড়ে পালিয়ে যায়। শিশুটিকে অসুস্থ অবস্থায় শুক্রবার সন্ধ্যার পর ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শনিবার সকাল ১০টার দিকে অভিযুক্ত ইউসুফ আলীকে তার পিতা আজগর আলী কালীগঞ্জ থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করেন।

শিশুটির স্বাস্থ্য পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য তিন সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করা হয়েছে।

কিশোরগঞ্জ ॥ তাড়াইল উপজেলার রাউতি ইউনিয়নের মেছগাঁও গ্রামের বজলু মিয়া, রইছু মিয়া ও নজরুল ইসলামের তিন কিশোরী কন্যা, দাউদকান্দি আলিম মাদ্রাসার ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী গত ১০ এপ্রিল দুপুরে বাড়ির পার্শ্ববর্তী হাওরের বন্দে গরুর জন্য ঘাস কাটতে যায়। এ সময় মেছগাঁও গ্রামের তিন সন্তানের জনক লম্পট রোকন উদ্দিন ওই তিন কিশোরীকে বন্দে একা পেয়ে যৌন নির্যাতন করে। পরে বাড়ি ফিরে ওই কিশোরীরা তাদের পরিবারের লোকজনকে ঘটনাটি জানায়। এ ঘটনা স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও গ্রামের গণ্যমান্য ব্যক্তিদের জানিয়েও কোন কাজ হয়নি। অবশেষে গত ২৩ এপ্রিল ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চেয়ে ইউএনওর কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন নির্যাতিতদের পরিবারের লোকজন।

কক্সবাজার ॥ চকরিয় ার বদরখালী নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির আইসি এসআই আউয়ালের বিরুদ্ধে কুলছুমা বেগম নামে এক গৃহবধূকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ওই গৃহবধূ অভিযুক্ত পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে আইজিপির কাছে অভিযোগ দাখিল করেছে। গৃহবধূ কুলছুমা বেগম দাবি করেন, গত ১১ মার্চ পারিবারিক বিষয় নিয়ে বদরখালী নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির আইসির কাছে একটি অভিযোগ করার সূত্র ধরে তার সঙ্গে সাক্ষাত ও কথা হয়। সম্প্রতি গভীর রাতে স্বামী মাশুক আহমদ বাড়িতে না থাকার সুযোগে এসআই আউয়াল ঘরে এসে তাকে অতর্কিত ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। তার চিৎকারে প্রতিবেশী মহিলারা এগিয়ে এলে দ্রুত সটকে পড়েন তিনি। যাওয়ার সময় এ ঘটনায় বাড়াবাড়ি করলে তার স্বামী মাশুক আহমদকে মামলায় জড়িয়ে হয়রানি করার হুমকি দেয়। অভিযোগ অস্বীকার করে বদরখালী নৌ-পুলিশের আইসি এসআই আবদুল আউয়াল বলেন, ধর্ষণ চেষ্টা তো দূরের কথা, তার বাড়িতে গেছি এমন প্রমাণ দিতে পারবে না ওই মহিলা।

প্রকাশিত : ২৬ এপ্রিল ২০১৫

২৬/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: