রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ভোটের মাঠে ব্যবসায়ীরা

প্রকাশিত : ২৫ এপ্রিল ২০১৫

এম শাহজাহান ॥ সিটি নির্বাচন সামনে রেখে ভোটের ক্যাম্পেইনে অংশ নিচ্ছে ব্যবসায়ী সম্প্রদায়। পছন্দের প্রার্থীকে জিতিয়ে আনতে নিয়মিত প্রচারে অংশ নিচ্ছেন তাঁরা। সরাসরি ক্যাম্পেইনে যোগ না দিয়ে অনেকে আবার রাজধানীর অভিজাত হোটেল ও রেস্টুরেন্টে বসে বৈঠক করছেন। সেখানে যোগ দিচ্ছেন রাজনৈতিক দলের সিনিয়র নেতারা। ওই আলোচনায় উঠে আসছে আনিসুল হক, সাঈদ খোকন, তাবিথ আউয়াল এবং মির্জা আব্বাসের নাম। বাণিজ্যিক রাজধানী চট্টগ্রামের নগর পিতা কে হচ্ছেন তাও আলোচনায় আসছে। চট্টগ্রাম বন্দর নিয়ন্ত্রণে বরাবরই মেয়রদের প্রভাব থাকে। আর দেশের আমদানি-রফতানি মূলত নির্ভর করে এই বন্দরের ওপর। তাই চট্টগ্রাম নিয়েও ব্যবসায়ীদের আগ্রহ রয়েছে। সংশ্লিষ্ট সূত্র ও ব্যবসায়ী নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে এ তথ্য।

জানা গেছে, এবারের তিন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ব্যবসায়ীদের অংশগ্রহণ সবচেয়ে বেশি। মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের অধিকাংশ ব্যবসায়ী। তিন সিটির ৪৮ জন মেয়র প্রার্থীর মধ্যে ২৮ জন ব্যবসায়ী রয়েছেন। এর মধ্যে ঢাকা উত্তরের ১৬ জনের মধ্যে ৭ জনের পেশা ব্যবসা। দক্ষিণের ২০ প্রার্থীর মধ্যে ব্যবসায়ী ১১ জন। অন্যদিকে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ১২ প্রার্থীর মধ্যে ১০ জনই ব্যবসায়ী। সুশাসনের জন্য নাগরিক সুজনের বিশ্লেষণ অনুযায়ী ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনে মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের মধ্যে ব্যবসায়ী ৬৭ দশমিক শূন্য ২ শতাংশ। ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনে এই সংখ্যা ৭১ দশমিক ৮২ শতাংশ।

ঠিকাদারীসহ বিভিন্ন ব্যবসা-বাণিজ্যের সঙ্গে এসব প্রার্থীদের সরাসরি সম্পৃক্ততা রয়েছে। তাই এই নির্বাচন ঘিরে ব্যবসায়ীদের আগ্রহের শেষ নেই।

এ প্রসঙ্গে এফবিসিসিআই সভাপতি কাজী আকরাম উদ্দিন আহমেদ জনকণ্ঠকে বলেন, আসন্ন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে রাজধানীয় ঢাকায় অনেক ব্যবসায়ী প্রার্থী হয়েছেন। এর মধ্যে মেয়র প্রার্থী আনিসুল হক এফবিসিসিআই ও বিজিএমইএ’র সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন। তার চেয়ে বড় বিষয় হচ্ছে তিনি ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সমর্থন নিয়ে নির্বাচন করছেন। তাই এফবিসিসিআই সভাপতি হিসেবে ইতোমধ্যে তাঁকে আমি সমর্থন জানিয়েছি। এফবিসিসিআইয়ের অন্য ব্যবসায়ী নেতারাও তাঁর সঙ্গে রয়েছেন। তিনি বলেন, আমি যেহেতু দল করি, তাই আওয়ামী লীগ সমর্থিত সব মেয়র প্রার্থী জয়লাভ করুক এটাই আমার প্রত্যাশা। এফবিসিসিআইয়ের পাশাপাশি পোশাক রফতানিকারকদের সংগঠন বিজিএমইএ, বিকেএমইএ এবং বিটিএমইএ ইতোমধ্যে আওয়ামী লীগ সমর্থিত দুই মেয়র প্রার্থীদের সমর্থন দিয়েছে।

এদিকে, ব্যবসায়ী নেতা আনিসুল হক’কে সমগ্র ব্যবসায়ী সম্প্রদায়ের পক্ষ থেকে দেয়া হয়েছে। গত ১২ এপ্রিল ২০১৫ বিজিএমইএ, বিকেএমইএ ও বিটিএমএর যৌথ উদ্যোগে রাওয়া ক্লাবে আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় এই সমর্থনের কথা জানানো হয়। ওই মতবিনিময় সভায় বিজিএমইএ সভাপতি মোঃ আতিকুল ইসলাম বিজিএমইএ, বিকেএমইএ ও বিটিএমএসহ সমগ্র বস্ত্র ও পোশাক শিল্প পরিবারের পক্ষ থেকে সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র প্রার্থী আনিসুল হক’কে সমর্থনে ঘোষণা দেন।

সভায় প্রায় ৫ শতাধিক উদ্যোক্তা ও ব্যবসায়ী অংশগ্রহণ করেন। এ প্রসঙ্গে আব্দুস সালাম মুর্শেদী জনকণ্ঠকে বলেন, আনিসুল হক সফল ব্যবসায়ী নেতা। তিনি নির্বাচিত হলে মেয়র হিসেবেও সফল হবেন। রিয়াজ-বিন-মাহমুদ সুমন বলেন, আনিসুল হক বিজিএমইএ এবং সর্বশেষ এফবিসিসিআইয়ের নেতৃত্ব দিয়েছেন। তিনি ব্যবসায়ী নেতা। তাই আনিসুল হকের প্রতি আমাদের পূর্ণ সমর্থন রয়েছে।

জানা গেছে, সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী আব্দুল আউয়াল মিন্টুর মেয়র প্রার্থিতা বাতিল হওয়ার পর বিএনপিপন্থী ব্যবসায়ীরা অনেকটা নিষ্ক্রিয় রয়েছেন। তবে তাঁরা তাবিথ আউয়ালের পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করেছেন।

আত্মগোপনে থেকে ছেলের জন্য ভোট চাইছেন মিন্টু। এছাড়া ছেলেকে বিজয়ী করতে মা নাসরিন আউয়াল মিন্টু দ্বারে দ্বারে যাচ্ছেন। ব্যবসায়ী মহলে নাসরিন আউয়াল মিন্টুর ব্যাপক পরিচিতি থাকায় তিনিও নির্বাচনে মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন। ছেলের জন্য ভোট প্রার্থনা করছেন। এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক ও আবু মোতালেব জনকণ্ঠকে বলেন, তাবিথ আউয়াল মেয়র নির্বাচিত হয়ে নগরবাসীর পাশে থাকবে এটাই আমাদের প্রত্যাশা। অতীতে আমরা মিন্টু ভাইয়ের সঙ্গে কাজ করেছি। ভবিষ্যতেও আমরা তাঁর সঙ্গে কাজ করব।

প্রকাশিত : ২৫ এপ্রিল ২০১৫

২৫/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন



ব্রেকিং নিউজ: