কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

জেলা প্রশাসন ও কমিশনের নির্দেশনার ব্যত্যয় হলে আইনানুগ ব্যবস্থা

প্রকাশিত : ২৪ এপ্রিল ২০১৫

মাকসুদ আহমদ, চট্টগ্রাম অফিস ॥ চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনে ৭১৯টি কেন্দ্রে সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠান সম্পন্নের জন্য নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এ নির্দেশনায় শুধু ভোট কেন্দ্রই নয়, নগরীর আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখাসহ যানবাহন চলাচলেও বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। নিষিদ্ধ করা হয়েছে নির্বাচনের আগের দিন থেকে পরদিন পর্যন্ত মোটরসাইকেল চলাচল। এছাড়াও পর্যবেক্ষক হিসেবে বিভিন্ন কেন্দ্র পরিদর্শনে দেশী-বিদেশী সাংবাদিক ও বিভিন্ন সংস্থার পরিচয় ব্যতীত ভোট কেন্দ্রে প্রবেশাধিকার নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

চট্টগ্রামের আঞ্চলিক নির্বাচন কমিশনের দফতর সূত্রে জানা গেছে, চসিকের ৪১টি ওয়ার্ডের আওতায় মেয়র ও কাউন্সিলর নির্বাচন করতে ৭১৯টি কেন্দ্রে আগামী ২৮ এপ্রিল সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত একটানা ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এ ৪১টি ওয়ার্ডে পুলিশ, র‌্যাব ও বিজিবির প্রতিটি স্ট্রাইকিং ফোর্স এক ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে টহল দেবে। ১৪০ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ১০ জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নির্বাচন কাজে নিয়োজিত থাকবেন। প্রতিটি কেন্দ্রে ২২ থেকে ২৪ পুলিশ, আনসার ও ভিডিপি সদস্য দায়িত্ব পালন করবে। যে সকল কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ সেখানে ২৪ জনের ও যেসব কেন্দ্র সাধারণ সেখানে ২২ জনের টিম কাজ করবে। ৭১৯টি কেন্দ্রে মোট ১৭ হাজার আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য কাজ করবে। ৩০ প্লাটুন বিজিবি ও এক ব্যাটেলিয়ন সেনাবাহিনী নিয়োজিত থাকবে।

আরও জানা গেছে, আগামী ২৫ এপ্রিল রাত ১২টা থেকে নির্বাচন শেষ না হওয়া পর্যন্ত কোন বহিরাগত নগরীতে প্রবেশ করতে পারবে না। এক্ষেত্রে নগরীর বিভিন্ন হোটেল রেস্টুরেন্ট ও বোর্ডিংয়ে এমনকি সন্দেহভাজন স্থাপনায় ২৫ এপ্রিল রাত ১২টার পর থেকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ব্লক রেড অব্যাহত থাকবে। ২৭ এপ্রিল রাত ১২টা থেকে ২৮ এপ্রিল রাত ১২টা পর্যন্ত নগরীতে কোন ধরনের যানবাহন চলাচল করতে পারবে না। এক্ষেত্রে বেবিট্যাক্সি, অটোরিক্সা, ইজিবাইক, ট্যাক্সিক্যাব, মাইক্রোবাস, জীপ, পিকআপ, প্রাইভেটকার, বাস, ট্রাক ও টেম্পো গণপরিবহনের জন্য রাস্তায় চলাচল নিষেধ করা হয়েছে। এছাড়াও জনসাধারণের মোটর সাইকেল চলাচলে ২৫ এপ্রিল রাত ১২ থেকে আগামী ২৯ এপ্রিল রাত ১২টা পর্যন্ত চলাচল নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

নিষেধাজ্ঞা চলাকালীন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী অথবা তার নির্বাচনী এজেন্ট পরিচয়পত্র সঙ্গে রাখতে হবে। দেশী-বিদেশী পর্যবেক্ষক, নির্বাচনের সংবাদ সংগ্রহের কাজে নিয়োজিত দেশী বিদেশী প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকদের পরিচয়পত্র থাকা বাঞ্ছনীয়। নির্বাচন কাজে নিয়োজিত কর্মকর্তা-কর্মচারী, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য, নির্বাচনের বৈধ পরিদর্শক, সরকারী সেবামূলক প্রতিষ্ঠান যেমন ফায়ার সার্ভিস, পিডিবি, গ্যাস, ডাক ও ডেলিযোগাযোগ রোগী বহনের এ্যাম্বুলেন্স চলাচলে কোন বাধা নেই।

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রাজিবুল আহসান জনকণ্ঠকে জানিয়েছেন, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে ও সুষ্ঠু নির্বাচনের নিমিত্তে ২৫ এপ্রিল থেকে ২৯ এপ্রিল পর্যন্ত বিভিন্ন প্রকারের নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।

প্রকাশিত : ২৪ এপ্রিল ২০১৫

২৪/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: