আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

দল সমর্থিত প্রার্থীদের পক্ষে কাজ করতে এরশাদের নির্দেশ

প্রকাশিত : ২৩ এপ্রিল ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার ॥ দল সমর্থিত প্রার্থীদের পক্ষে কাজ করতে কেন্দ্রীয় নেতাদের নির্দেশ দিলেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। বুধবার সংক্ষিপ্ত প্রেসিডিয়াম বৈঠকে তিনি এ নির্দেশনা দেন। উল্লেখ্য, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনে দলের কেন্দ্রীয় নেতা বাহাউদ্দিন বাবুল, দক্ষিণে সাইফুদ্দিন আহমেদ মিলন ও চট্টগ্রামে সোলায়মান আলম শেঠকে মেয়র প্রার্থী হিসেবে দল থেকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। দলের একাধিক নেতার বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর হয়ে কাজ করার অভিযোগ উঠেছে। মূলত এই অভিযোগের প্রেক্ষিতেই জরুরী প্রেসিডিয়াম বৈঠক ডাকেন এরশাদ।

পার্টির কাকরাইলস্থ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সভাটি অনুষ্ঠিত হয়েছে। জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ এমপি এই সভায় সভাপতিত্ব করেন। সভায় আসন্ন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন ও সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে আলাপ আলোচনা হয়। সভায় সিদ্ধান্তসমূহের মধ্যে রয়েছে, দলীয় সিনিয়র নেতৃবৃন্দ পার্টির সমর্থিত মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীর পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নেবেন। বৈঠকে এরশাদ বলেন, দলের জনপ্রিয়তা যাচাই করতে এটি একটি মোক্ষম সময়। এই সময়ে সব নেতাকে দল সমর্থিত প্রার্থীদের হয়ে কাজ করতে হবে। কারও বিরুদ্ধে বিরোধিতার অভিযোগ পাওয়া গেলে সাংগঠনিকভাবে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ারও হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তিনি।

সিটি নির্বাচনে বিজয়ী হতে সরকার সন্ত্রাসের পথ বেছে নিয়েছে ॥ রিপন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিজয়ী হতে সরকার সন্ত্রাসের পথ বেছে নিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন। বুধবার দুপুরে নয়াপল্টন বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, সরকার খালেদা জিয়া ও বিএনপিকে রাজনৈতিকভাবে মোকাবেলা করতে ভয় পায় বলেই সন্ত্রাসকে বেছে নিয়ে খালেদা জিয়ার গাড়িবহরে হামলা চালাচ্ছে। মঙ্গলবার রাতে ফকিরাপুলে আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী সাঈদ খোকনের সমর্থকরা খালেদা জিয়ার গাড়িবহরে হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ করে তিনি বলেন, এ ধরনের ঘটনায় দেশ ও রাজনীতি গভীর সঙ্কটে চলে যেতে পারে।

রিপন বলেন, সেনাবাহিনীর প্রতি দেশের মানুষের এখনও আস্থা আছে। সবকিছু যখন ভেস্তে যায় তখন শেষ ভরসাস্থল হিসেবে সেনাবাহিনীর প্রতি আস্থা রাখে। দেশের রাজনীতি ক্রমে উত্তপ্ত হয়ে উঠছে, সরকারী দলের সন্ত্রাসীরা সন্ত্রাসী কর্মকা- করছে। এতে করে ভোটারদের মধ্যে ভীতির সঞ্চার হচ্ছে। সেজন্যই ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত অপেক্ষা না করে এখন থেকেই বিচারিক ক্ষমতা দিয়ে প্রতিটি কেন্দ্রে সেনাবাহিনী মোতায়েন করতে হবে। সেনা মোতায়েনে কালক্ষেপণ করলে কোন অঘটন ঘটলে এর দায়-দায়িত্ব সরকার ও নির্বাচন কমিশনকেই বহন করতে হবে।

প্রকাশিত : ২৩ এপ্রিল ২০১৫

২৩/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: