রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

সেনা মোতায়েনের সিদ্ধান্ত আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীদের স্বাগত

প্রকাশিত : ২৩ এপ্রিল ২০১৫
  • বিএনপির মেয়র প্রার্থীরা চাইছেন সেনাবাহিনীর বিচারিক ক্ষমতা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সিটি নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েনের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থীরা। অপরদিকে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীরা চান সেনাবাহিনীর বিচারিক ক্ষমতা। ঢাকার উত্তর দক্ষিণের আওয়ামী সমর্থিত প্রার্থী আনিসুল হক ও সাঈদ খোকন এতদিন সেনা মোতায়েনের প্রয়োজন নেই উল্লেখ করেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত গত মঙ্গলবার ইসি সেনা মোতায়েনের সিদ্ধান্ত নিলে তারা এ সিদ্ধান্ত স্বাগত জানান। তারা বলেন, সেনাবাহিনী মোতায়েনের ফলে মানুষ নিরাপদে ভোট দিতে পারবে। এদিকে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীরা প্রথম থেকেই সেনা মোতায়েনের দাবি জানান। কিন্তু ইসির পক্ষ থেকে সেনাবাহিনী মোতায়েনের সিদ্ধান্ত নেয়া হলেও এতে তারা খুশি নন। তারা চান সেনাবাহিনীর বিচারিক ক্ষমতা। বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী তাবিথ আউয়াল ও মির্জা আব্বাসের পক্ষ থেকে বলা হয় সেনাবাহিনীকে বিচারিক ক্ষমতা দিতে হবে।

বুধবার সকালে ঢাকার সব প্রার্থী জনসংযোগে ব্যস্ত সময় কাটান। রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় হেঁটে, পথসভায় অংশ নিয়ে তারা নির্বাচনী প্রচার চালান। এছাড়া প্রার্থীদের পক্ষে দলীয় নেতাকর্মীরা সক্রিয়ভাবে প্রচার চালাচ্ছেন। বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে প্রার্থীদের সমর্থন দেয়া হচ্ছে। ঘুম নেই প্রার্থীর আত্মীয়স্বজন ও পরিবার পরিজনেরও। ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণের বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী তাবিথ আউয়াল ও মির্জা আব্বাসের পক্ষে খালেদা পঞ্চম দিনের মতো নির্বাচনী মাঠে সক্রিয় রয়েছেন। নির্বাচনী আইন অনুযায়ী খালেদা জিয়া রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ পদে না থাকায় তাঁর নির্বাচনে প্রচারে অংশ নিতে কোন বাধা নেই। তারপরও তার গাড়ি বহরের কারণে যাতে জনসাধারণের স্বাভাবিক চলাচলে কোন বিঘœ না ঘটে সে বিষয়ে সতর্ক করা হয়েছে। খালেদা জিয়ার পাশাপাশি নির্বাচনী প্রচারে রয়েছেন জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান এইচএম এরশাদ। যদিও আইন অনুযায়ী এরশাদের নির্বাচনী প্রচারে বাধা রয়েছে প্রধানমন্ত্রী বিশেষ দূত হওয়ার কারণে। রিটার্নিং কর্মকর্তার পক্ষ থেকে তাকে নির্বাচনী প্রচার চালাতে নিষেধ করা হলেও তিনি মঙ্গলবার পর্যন্ত তার প্রার্থীর পক্ষে প্রচার চালান। বুধবার সকাল থেকেই ঢাকা দক্ষিণে সাঈদ খোকন ও তার পক্ষের সমর্থকরা এবং মির্জা আব্বাসের পক্ষে তার স্ত্রী ও তার সমর্থকরা নির্বাচনী জনসংযোগ চালিয়েছেন। অপরদিকে ঢাকা উত্তরের আনিসুল হক ও তাবিথ আউয়াল নিজে এবং তাঁর সমর্থক নির্বাচনী প্রচারের ব্যস্ত সময় পার করেছেন। ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে ভোট চাওয়ার পাশাপাশি বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।

আনিসুল হক ॥ উত্তরের মেয়র প্রার্থী আনিসুল হক সকাল থেকেই নির্বাচনী প্রচারে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ছুটছেন। মিরপুরের মুসলিম বাজার এলাকা থেকে নির্বাচনী প্রচার শুরু করেন। এ সময় তিনি আসন্ন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ভোট বিক্রি না করতে ভোটারদের প্রতি আহ্বান জানান। ভোটারদের উদ্দেশে বলেন, অনেক চাপ, লোভ আসবে। দয়া করে কেউ ভোট বিক্রি করবেন না। আপোস না করে আপনাদের পছন্দের প্রার্থীকেই নির্বাচিত করুন। নির্বাচন কমিশনের সেনা মোতায়েনের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, এটা খুবই ভাল হয়েছে। মানুষ নিরাপদে ভোট দিতে পারবে।

তাবিথ আউয়াল ॥ বুধবার উত্তরের মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল রাজধানীর জাফরাবাদ, রায়েরবাজার, পুলপাড় এলাকায় নির্বাচনী গণসংযোগ চালান। এ সময় তিনি সেনাবাহিনীকে বিচারিক ক্ষমতা দেয়ার দাবি জানান। তিনি বলেন, ২০ দলীয় জোট সমর্থিত প্রার্থীরা নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন। ২৬ এপ্রিলের আগে সেনাবাহিনী মোতায়েনের দাবি জানিয়ে তাবিথ বলেন, নির্বাচনে সেনাবাহিনী ভূমিকা দৃশ্যমান হতে হবে। তাছাড়া আশ্বস্ত হতে পারছি না।

সাঈদ খোকন ॥ ঢাকা দক্ষিণের মেয়র প্রার্থী সাঈদ খোকন বুধবার নির্বাচনী প্রচারের অংশ হিসেবে রাজধানীর হাজারীবাগ ট্যানারী মোড়ে ব্যবসায়ী ও শ্রমিকদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় অংশ নেন। এ সময় তিনি নির্বাচনে সেনা মোতায়েনকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, এটা কমিশনের ভাল সিদ্ধান্ত।

আফরোজা আব্বাস ॥ এদিকে বুধবার সকাল ৯টা থেকে স্বামীর পক্ষে নির্বাচনী প্রচারে নামেন আফরোজা আব্বাস। নির্বাচনী প্রচারের এ সময় আফরোজা আব্বাসের পক্ষে ছিলেন বিএনপির স্থানীয় নেতাকর্মীরা। সূত্রাপুর থানা ছাড়িয়ে পশ্চিম দিকে এগিয়ে রাস্তার দু’পাশে দোকান, পথচারীদের মধ্যে স্বামীর নির্বাচনী প্রতীক ‘মগ’র প্রচারপত্র বিলি করেন তিনি।

প্রকাশিত : ২৩ এপ্রিল ২০১৫

২৩/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: