মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ভারত থেকে তেল আমদানির সমঝোতা স্মারক সই

প্রকাশিত : ২১ এপ্রিল ২০১৫, ১২:২৭ এ. এম.

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ভারতের নুমালিগড় থেকে তেল আমদানির জন্য একটি সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) স্বাক্ষর করেছে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশন (বিপিসি)। সোমবার সন্ধ্যায় ঢাকায় এই এমওইউ স্বাক্ষরিত হয়। এর ভিত্তিতে আগামী এক মাসের মধ্যে ভারতের পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশনের সঙ্গে বিপিসির একটি তেল ক্রয় চুক্তি হওয়ার কথা রয়েছে।

প্রায় দু’বছর ধরে ভারত থেকে পরিশোধিত জ্বালানি তেল কেনার প্রক্রিয়া চলছিল। প্রধানমন্ত্রী গত বছর ফেব্রুয়ারিতে বিদ্যুত, জ্বালানি খনিজ ও সম্পদ মন্ত্রণালয়ে বৈঠক কালে ভারত থেকে তেল আমদানির প্রকল্পটি বাস্তবায়নের নির্দেশ দিয়েছিলেন। চলতি মাসে মন্ত্রণালয়ে আবারও অফিস করার সময় আবারও এ বিষয়ে আলোচনা হয়। বৈঠকে বিপিসির তরফ থেকে জানানো হয় অতিসত্বর এর এমওইউ হবে।

বিপিসি চেয়ারম্যান এ এম বদরুদ্দোজা সোমবার এমওইউটি স্বাক্ষরের বিষয় নিশ্চিত করেন। তিনি সন্ধ্যায় জনকণ্ঠকে বলেন, সত্বর এর অধীনে চুক্তি করা হবে। নুমালিগড় রিফাইনারি লিমিটেডের (এনআরএল) একটি প্রতিনিধি দল এ বিষয়ে আলোচনার জন্য ঢাকায় আসেন। তাদের সঙ্গে বৈঠকের পরই এমওইউ স্বাক্ষরের সিদ্ধান্ত হয়।

পাইপলাইনের মাধ্যমে ভারতের আসামের গোলাঘাট এলাকায় ভারত পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশনের নিয়ন্ত্রণাধীন নুমালিগড় রিফাইনারি লিমিটেড (এনআরএল) ডিপো থেকে দিনাজপুর দিয়ে পার্বতীপুর জ্বালানি তেল ডিপো পর্যন্ত তেল আমদানি করা হবে। ভারত থেকে বছরে ১০ লাখ টন ডিজেল পরিবহন হবে। এজন্য পাঁচ শ’ কোটি ভারতীয় রুপী বিনিয়োগ করে ১৩৫ কিলোমিটার স্থাপন করা হবে। চুক্তির পর প্রকল্প শেষ করতে এক বছর সময় প্রয়োজন হবে।

দেশে উত্তরাঞ্চলকে শষ্য ভা-ার হিসেবে বিবেচনা করা হয়। প্রতিবছর বোরো মৌসুমে চট্টগ্রাম ও খুলনা থেকে উত্তরবঙ্গে তেল পাঠাতে সমস্যায় পড়তে হয়। ডিজেল সঙ্কটের জন্য যাতে চাষাবাদ বিঘিœত না হয় এ জন্যই বিকল্প গ্রহণ করা হচ্ছে। পাইপলাইনটি হলে দেশের উত্তরাঞ্চলে বিশেষ করে সেচ মৌসুমে ডিজেল পরিবহনের ঝামেলা কমে আসবে।

প্রকাশিত : ২১ এপ্রিল ২০১৫, ১২:২৭ এ. এম.

২১/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: