আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

মেসির ৪০০, রোনাল্ডোর ৫০ গোলের মাইলফলক

প্রকাশিত : ২০ এপ্রিল ২০১৫
  • স্প্যানিশ লা লিগা, বার্সিলোনা ও রিয়াল মাদ্রিদের সহজ জয়, বার্সিলোনা ২- ভ্যালেন্সিয়া, রিয়াল মাদ্রিদ ৩-১ মালাগা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ একই দিনে গৌরবময় রেকর্ডের অংশীদার হয়েছেন দুই বিশ্বসেরা ফুটবলার লিওনেল মেসি ও ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। তাও আবার দারুণ সাদৃশ্য রেখে। পরশু স্প্যানিশ লা লিগায় সময়ের দুই সেরা তারকাই নিজ নিজ দলের হয়ে গোল করেন। ভ্যালেন্সিয়ার বিরুদ্ধে বার্সিলোনার ২-০ গোলের জয়ে মেসি গোল করেন ম্যাচের ৯০ মিনিটে। আরেক ম্যাচে মালাগার বিরুদ্ধে রিয়াল মাদ্রিদের ৩-১ গোলের জয়ে রোনাল্ডোও গোল করেন ম্যাচের ৯০ মিনিটে!

অপূর্ব এই সাদৃশ্যের সঙ্গে দুর্দান্ত রেকর্র্ডও গড়েছেন বর্তমান ও সাবেক ফিফা বর্ষসেরা ফুটবলার। একের পর এক কীর্তি গড়া মেসি বার্সিলোনার হয়ে প্রথম ফুটবলার হিসেবে করেছেন ৪০০ গোল। আর মৌসুমে ৫০ গোলের মাইলফলক স্পর্শ করেছেন রোনাল্ডো। এ নিয়ে টানা পাঁচ মৌসুমে ৫০ গোল করার কৃতিত্ব দেখালেন সি আর সেভেন।

ভ্যালেন্সিয়ার বিরুদ্ধে ম্যাচের শেষ মিনিটে মাঝমাঠে বল পেয়ে বিনা বাধায় ডি বক্সে ঢুকে পড়েন মেসি। আর্জেন্টাইন অধিনায়কের নেয়া প্রথম শটটি রুখে দেন অতিথি গোলরক্ষক দিয়াগো আলভেস। কিন্তু ফিরতি বল জালে পাঠিয়ে অনন্য এক মাইলফলকে পৌঁছে যান সাবেক টানা চারবারের ফিফা সেরা ফুটবলার। লীগে বার্সিলোনার হয়ে মেসির এটা ক্যারিয়ারের ২৭৮ নম্বর গোল। ৭৫ গোল করেছেন চ্যাম্পিয়ন্স লীগে। স্প্যানিশ কাপে ৩২ গোল। স্প্যানিশ সুপার কাপে করেন ১০ গোল। চার গোল করেছেন ফিফ ক্লাব বিশ্বকাপে। ৪০০ গোলের বাকি একটি মেসি করেন উয়েফা সুপার কাপে। বার্সার হয়ে সবচেয়ে বেশি গোল করার রেকর্ড আগেই গড়েছেন মেসি। এছাড়া অনেক রেকর্ড নিজের করে নিয়েছেন ক্ষুদে এই জাদুকর।

মালগার বিরুদ্ধে পেনাল্টির সুযোগ নষ্ট করার পর রোনাল্ডো মাইলফলকে পৌঁছানোর গোলটি করেন ম্যাচের শেষ মিনিটে। লা লিগায় চলতি মৌসুমে সি আর সেভেনের এটি ৩৯ গোল। এই মুহূর্তে লীগের সর্বোচ্চ গোলদাতাও তিনি। ৩৫ গোল নিয়ে তার পরেই আছেন লিওনেল মেসি। ২০০৯-১০ মৌসুমে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড থেকে রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দেন রোনাল্ডো। গ্যালাক্টিকোদের হয়ে এটা তার ষষ্ঠ মৌসুম। প্রথম মৌসুমেই কেবল ৫০ গোলের মাইলফলক পেরোতে পারেননি রোনাল্ডো। ৩৫ ম্যাচ খেলে সেবার সব ধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ৩৩ গোল করেছিলেন পর্তুগাল অধিনায়ক। পরের মৌসুমে ৫৪ ম্যাচ খেলে করেন ৫৩ গোল। ২০১১-১২ মৌসুমটা আরও ভাল কাটে সুদর্শন সুপারস্টারের। ৫৫ ম্যাচে করেন ৬০ গোল। ২০১২-১৩ মৌসুমে ৫৫ ম্যাচ খেলে করেন ৫৫ গোল। গত মৌসুমে ৪৭ ম্যাচে খেলে করেন ৫১ গোল। আর এবার ৪৫ ম্যাচ খেলেই ৫০ গোলের মাইলফলকে পৌঁছেছেন রোনাল্ডো। রিয়ালের হয়ে লা লিগায় রোনাল্ডো খেলেছেন খেলেন ১৯৪ ম্যাচ। গোল করেন ২১৭।

গত সপ্তাহে সেভিয়ার মাঠে হোঁচট খাওয়া বার্সিলোনার সামনে শীর্ষস্থান হারানোর শঙ্কা এড়াতে ম্যাচে জয়ের বিকল্প ছিল না। তাদের প্রতিপক্ষ চতুর্থ স্থানে থাকা ভালেন্সিয়ার সম্প্রতি পারফর্মেন্স দারুণ লড়াইয়ের আভাস দিচ্ছিল। ঘরের মাঠ ন্যুক্যাম্পে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা উরুগুয়ের স্ট্রাইকার লুইস সুয়ারেজের গোলে প্রথম মিনিটেই এগিয়ে যায় বার্সিলোনা। ডান পায়ের কোনাকুনি শটে করা সুয়ারেজের গোলটিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন মেসি। লা লিগার চলমান মৌসুমে সুয়ারেজের এটি ১১ নম্বর গোল। আর শেষ ১৬ ম্যাচে এটা তার ১৪ নম্বর গোল। ম্যাচের শেষ মিনিটে মেসি রেকর্ড গড়া গোলে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে বার্সা।

প্রথম ম্যাচে বার্সা জয় পাওয়ায় তাদের চেয়ে পাঁচ পয়েন্ট পিছিয়ে পড়ে রিয়াল। এ কারণে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের সঙ্গে ব্যবধান দুই পয়েন্টে ফিরিয়ে আনতে মালাগার বিরুদ্ধে জয়ের বিকল্প ছিল না কার্লো আনচেলত্তির দলের। এ লক্ষ্যে ঘরের মাঠ সান্টিয়াগো বার্নাব্যুতে শুরুতেই বড় ধাক্কা খায় রিয়াল। চোটের কারণে এমনিতেই দলে ছিলেন না স্ট্রাইকার করিম বেনজেমা। তার ওপর আবার পঞ্চম মিনিটে চোট পেয়ে মাঠ ছাড়েন গ্যারেথ বেল। আক্রমণভাগের অন্যতম সেরা দুই তারকাকে ছাড়া রিয়াল কিছুটা এলোমেলো হয়ে পড়ে। প্রথম ২০ মিনিটে তেমন কোন সুযোগই সৃষ্টি করতে পারেনি দলটি। তবে ২৪ মিনিটে সার্জিও রামোসের গোলে এগিয়ে যায় রিয়াল। রোনাল্ডোর ফ্রিকিকে কাছ থেকে গোলটি করেন স্প্যানিশ ডিফেন্ডার।

বিরতির পর ৫০ মিনিটে আরেকটি ধাক্কা খায় রিয়াল। চোট পেয়ে মাঠ ছাড়েন দারুণ ফর্মে থাকা মিডফিল্ডার লুকা মডরিচ। এর পাঁচ মিনিট পর ব্যবধান বাড়ানোর সহজ সুযোগ পায় রিয়াল। কিন্তু পেনাল্টি থেকে গোল করতে ব্যর্থ হন রোনাল্ডো। পরের মিনিটেই জেমস রড্রিগুয়েজ গোল করে সেই হতাশা দূর করেন। তবে ৭১ মিনিটে জিমিনেজ লোপেজ মালগার হয়ে গোল করে ম্যাচে প্রতিদ্বন্দ্বিতার আভাস দেন। কিন্তু ম্যাচের শেষ মিনিটে রোনাল্ডোর মাইলফলক গড়া গোলে সহজ জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে রিয়াল।

এই জয়ে শিরোপা লড়াইয়ে টিকে থাকল রিয়াল মাদ্রিদ। বর্তমানে দ্বিতীয় স্থানে থাকা রিয়ালের পয়েন্ট ৩২ ম্যাচে ৭৬। সমান ম্যাচে শীর্ষে থাকা বার্সিলোনার পয়েন্ট ৭৮। তৃতীয় স্থানে থাকা এ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের পয়েন্ট ৬৯। পরশু রাতে আসরের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন এ্যাটলেটিকো ২-১ গোলে পরাজিত করে ডিপোর্টিভো লা করুনাকে।

প্রকাশিত : ২০ এপ্রিল ২০১৫

২০/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: