কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

প্রচারে ব্যস্ত দুই মেয়রপ্রার্থী দিচ্ছেন প্রতিশ্রুতি

প্রকাশিত : ১৯ এপ্রিল ২০১৫
  • চসিক নির্বাচন

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই বাড়ছে প্রচারের জোয়ার। মেয়র, সংরক্ষিক নারী ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও সাধারণ কাউন্সিলরদের গণসংযোগ ও প্রচারে মুখর বন্দরনগরী। প্রতিদিনই কোন না কোন গলিতে রয়েছেন কোন না কোন প্রার্থী ও তাঁদের কর্মী সমর্থকরা। চলছে উন্নত ও আধুনিক নগরী গড়ার প্রতিশ্রুতি। নতুন প্রার্থীরা তুলে ধরছেন সাবেক মেয়র ও কাউন্সিলরদের ব্যর্থতা। অপরদিকে, পুরনোরা ভোট চাইছেন উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখা ও অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করার অঙ্গীকারের মধ্য দিয়ে। তবে সকল প্রার্থীর দিকেই রয়েছে সাধারণ ভোটারদের আগ্রহ। সে কারণেই প্রার্থীরা যেখানেই যাচ্ছেন সেখানেই ভোটারদের জটলা দেখা যাচ্ছে।

আওয়ামী লীগ সমর্থিত নাগরিক কমিটির মেয়র প্রার্থী আ জ ম নাছির উদ্দিন শনিবার গণসংযোগ চালান নগরীর উত্তর পাঠানটুলী ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকায়। এ সময় তিনি সাবেক মেয়র এম মনজুর আলমের নানা ব্যর্থতার চিত্র তুলে ধরেন। আ জ ম নাছির বলেন, জলাবদ্ধতার ইস্যু কাজে লাগিয়ে মনজুর আলম গতবার মেয়র নির্বাচিত হলেও পাঁচ বছরে তিনি জলাবদ্ধতা নিরসনে কোন কাজ করেননি। ভোটের মাধ্যমে এ প্রতারণার জবাব দিতে হবে। বক্তব্যে তিনি বলেন, মেয়র নির্বাচিত হলে কোন সম্মানী গ্রহণ করব না। প্রাপ্য সম্মানী আমি জনসাধারণের উন্নয়নে ব্যয় করব। একটিবার আমাকে সেবা করার সুযোগ দিন। আপনাদের কাছে ভোট ভিক্ষা করতে এসেছি। আশা করি ফিরিয়ে দেবেন না। তিনি হাতি প্রতীকে ভোট দিয়ে তাকে জয়যুক্ত করার আহ্বান জানান। অপরদিকে, বিএনপি সমর্থিত চট্টগ্রাম উন্নয়ন আন্দোলনের মেয়র প্রার্থী এম মনজুর আলম গত শুক্রবার বিকেলে চট্টগ্রামে বসবাসকারী বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। এ সময় তিনি বলেন, সাম্প্রদায়িকতার কোন স্থান তার কাছে নেই। বিগত সময়ে দল ও মতের উর্ধে উঠে একজন মানুষ হিসেবে সকলের জন্য সমান দৃষ্টিতে কাজ করেছি। ধর্ম যার যার, রাষ্ট্র সবারÑ এ মতাদর্শে আমি বিশ্বাসী। আবারও মেয়র নির্বাচিত হলে দল মতের উর্ধে থেকেই অতীতের মতো কাজ করে যাবেন ও কাজের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখবেন বলে প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।

আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী আ জ ম নাছির উদ্দিন শনিবার গণসংযোগ চালান রিক্সাযোগে। শহরের অপেক্ষাকৃত সরু সড়কগুলোতে প্রচারকালে তিনি দোকানদার, পথচারী ও নারী পুরুষ নির্বিশেষে সকল বয়সী মানুষের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন। ভোটারদের কাছ থেকে জানার চেষ্টা করেন তাদের বিভিন্ন সমস্যা। একই সঙ্গে মেয়র নির্বাচিত হলে এসব সমাধানের আশ্বাস দেন। তিনি বলেন, চট্টগ্রামকে একটি সত্যিকারের মেগাসিটিতে পরিণত করা আমার দীর্ঘদিনের স্বপ্ন। প্রচারে তিনি সাবেক মেয়র এম মনজুর আলমের ব্যর্থতারও সমালোচনা করেন। আ জ ম নাছির তাঁকে মেয়র নির্বাচিত করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, আমি মেয়র হলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সহায়তায় চট্টগ্রামের চেহারা পাল্টে দেব।

গণসংযোগকালে আ জ ম নাছিরের সঙ্গে ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য নুরুল ইসলাম বিএসসি, সাবেক গণপরিষদ সদস্য মো. ইসহাক মিয়া, নগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি খোরশেদ আলম সুজন, সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের ডা. তিমির বরণ চৌধুরী, এ্যাডভোকেট চন্দন বিশ্বাস, নগর আওয়ামী লীগের দোস্ত মোহাম্মদ এবং আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা। নুরুল ইসলাম বিএসসি বলেন, এ নগরীর ভোটাররা স্বতঃস্ফূর্তভাবে মেয়র প্রার্থী আ জ ম নাছিরের পক্ষে মাঠে নেমেছেন। হাতি প্রতীকের পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। আ জ ম নাছিরকে মেয়র নির্বাচিত করলে চট্টগ্রামের উন্নয়ন হবে। উন্নয়নের স্বার্থেই আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীকে মেয়র নির্বাচিত করতে তিনি ভোটারদের প্রতি অনুরোধ জানান।

এদিকে নগরীর রীমা কমিউনিটি সেন্টারে গত শুক্রবার বিকেলে বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের সঙ্গে মতবিনিময় করেন বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী এম মনজুর আলম। তবে শনিবার তাঁর নিজের উপস্থিতিতে কোন গণসংযোগ কর্মসূচী ছিল না। মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন নগর বিএনপি সভাপতি ও দলের চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী। আমীর খসরু বলেন, মেয়র হিসেবে মনজুর আলম কখনও সন্ত্রাসীদের প্রশ্রয় দেননি। আবারও নির্বাচিত করলে তিনি আরও ভালভাবে সিটি কর্পোরেশন চালাতে পারবেন। বৌদ্ধ ফ্রন্ট চট্টগ্রাম মহানগর আহ্বায়ক অধ্যাপক ঝন্টু কুমার বড়ুয়ার সভাপতিত্বে ও অমলেন্দু বড়ুয়ার পরিচালনায় এতে বক্তব্য রাখেন জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের কেন্দ্রীয় সভাপতি নুরী আরা সাফা, কেন্দ্রীয় বৌদ্ধ ফ্রন্টের আহ্বায়ক প্রকৌশলী পুলক বড়ুয়া, সদস্য সচিব বিপ্লব বড়ুয়া, উত্তর জেলা বিএনপির সদস্য সচিব কাজী হাসান, বিএনপি নেতা ইঞ্জিনিয়ার বেলায়েত হোসেন, ইয়াসিন চৌধুরী লিটন, বৌদ্ধ ফ্রন্টের নেতা সাধনা জ্যোতি ভিক্ষু, সনৎ তালুকদার, বৌদ্ধ নন্দ ভিক্ষু, আনন্দ বোধি, ডা. পরিতোষ প্রমুখ।

প্রকাশিত : ১৯ এপ্রিল ২০১৫

১৯/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

অন্য খবর



ব্রেকিং নিউজ: