কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ধামরাইয়ে বাস-কার সংঘর্ষে একই পরিবারের হত ৬

প্রকাশিত : ১৯ এপ্রিল ২০১৫
  • অন্যত্র ১৬ জনের মৃত্যু

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ সাভার থেকে মানিকগঞ্জে বিয়ের অনুষ্ঠানে যাওয়ার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের ছয়জনসহ সাতজন নিহত হয়েছে। শনিবার দুপুরে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের ধামরাইয়ের বাথুলী বাসস্ট্যান্ডে এ দুর্ঘটনা ঘটে। একটি প্রাইভেটকারকে দুটি যাত্রীবাহী বাস চাপা দিলে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে প্রাইভেটকারের চালকও নিহত হয়। দুর্ঘটনায় আহত পাঁচ বাসযাত্রীকে মানিকগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। দুর্ঘটনার পর মহাসড়কে ঘণ্টাখানেক যান চলাচল বন্ধ থাকে। এছাড়া দেশের বিভিন্ন স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় ১৬ জন নিহত হয়েছে। এরমধ্যে সিরাজগঞ্জে নারী-শিশুসহ পাঁচজন, বগুড়ায় স্বামী-স্ত্রীসহ তিনজন এবং লালমনিরহাট, টাঙ্গাইলের মির্জাপুর, ময়মনসিংহের ভালুকা, নেত্রকোনার মোহনগঞ্জ ও কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জে একজন করে নিহত হয়েছে। এসব ঘটনায় কমপক্ষে ৪০ জন আহত হয়। শুক্র ও শনিবার পৃথক দুর্ঘটনায় এসব হতাহতের ঘটনা ঘটে। খবর স্টাফ রিপোর্টার ও নিজস্ব সংবাদদাতাদের।

জানা গেছে, সাভারের হেমায়েতপুর থেকে শেখ মনোয়ার হোসেন (৩২) তাঁর স্ত্রী ও শিশুপুত্রসহ পরিবারের ছয় সদস্যকে নিয়ে প্রাইভেটকারে গ্রামের বাড়ি মানিকগঞ্জের আটিগ্রামে বড় ভাইয়ের মেয়ের বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যাচ্ছিলেন। দুপুর সোয়া দুইটার দিকে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের ধামরাইয়ের বাথুলী বাসস্ট্যান্ডে ‘সোহাগ’ পরিবহনের একটি কোচের সঙ্গে প্রাইভেটকারের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। একই সময় পেছন থেকে আসা ‘পদ্মা লাইন’-এর অপর একটি দ্রুতগামী বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে প্রাইভেটকারটিকে চাপা দেয়। এতে প্রাইভেটকারটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। ঘটনাস্থলেই একই পরিবারের ছয়জন এবং প্রাইভেটকারের চালক নিহত হয়। দুর্ঘটনার পর মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। স্থানীয় লোকজন দ্রুত ছুটে গিয়ে দুমড়ে-মুচড়ে যাওয়া প্রাইভেটকারের ভেতর থেকে নিহতদের মৃতদেহ বের করে আনে। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বাস দুটিকে মহাসড়ক থেকে সরিয়ে নিলে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়। এ সময় মহাসড়কে ঘণ্টাখানেক যান চলাচল বন্ধ থাকে। দুর্ঘটনায় অন্তত পাঁচ বাসযাত্রী আহত হয়। তাদেরও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ধামরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফিরোজ তালুকদার জানান, যাত্রীবাহী বাস দুটিকে আটক করে থানায় আনা হয়েছে। আহত যাত্রীদের মানিকগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সিরাজগঞ্জ ॥ শুক্রবার গভীর রাতে বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম সংযোগ সড়কে কামারখন্দের বানিয়াগাতী এলাকায় বাস ও ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে শিশু-নারীসহ পাঁচজন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে অন্তত ২৫ জন। নিহতদের মধ্যে কুড়িগ্রামের চিলমারী উপজেলার পাথরঘাটা গ্রামের বেলাল হোসেনের স্ত্রী চায়না খাতুনের (২৫) পরিচয় পাওয়া গেছে। অন্য চারজনের পরিচয় জানা যায়নি। আহতদের সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালসহ বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।

বগুড়া ॥ শনিবার সকালে বগুড়ায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় স্বামী-স্ত্রীসহ তিনজন নিহত হয়েছে। নিহতরা হলোÑ মোঃ মমতাজ উদ্দীন (৪৫), শেফালী খাতুন (৩৫) ও ওমর ফারুক (২০)।

মির্জাপুর ॥ ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের মির্জাপুরের দেওহাটা বাসস্ট্যান্ডে বালুভর্তি একটি ট্রাকের চাপায় নয়ন বালা (৫০) নামে এক মহিলার মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনার পর বিক্ষুব্ধ জনতা ও দেওহাটা এ জে উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ওই স্থানে একটি ফুট ওভারব্রিজ নির্মাণের দাবিতে প্রায় এক ঘণ্টা মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে। এতে মহাসড়কের উভয়পাশে ছয় কিলোমিটার এলাকাজুড়ে যানজট সৃষ্টি হয়।

ভালুকা ॥ ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে ভালুকার হাজীরবাজার এলাকায় বাসচাপায় এক শ্রমিক নিহত হয়েছে। শুক্রবার রাতে রাস্তা পার হওয়ার সময় কন্জিউমার নিটেক্স মিলের শ্রমিক রিপা আক্তার (১৫) মারা যায়।

লালমনিরহাট ॥ শুক্রবার বিকেল চারটায় নয়ারহাট বাজারে ফাকল স্কুলের দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্র শিমুল চন্দ্র রায় (১২) সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছে। বাইসাইকেলে বাজার হতে বাড়ি ফেরার পথে ট্রাকচাপায় নিহত হয় সে। ঘাতক চালক শফিকুল ইসলাম ও ট্রাকটিকে জনতা আটক করে পুলিশে দিয়েছে।

কিশোরগঞ্জ ॥ করিমগঞ্জে শুক্রবার রাত পৌনে নয়টার দিকে মালবাহী ট্রাক ও অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে একজন নিহত ও ছয়জন আহত হয়েছে। নিহত সোহাগ (২৪) উপজেলার কাদিরজঙ্গল ইউনিয়নের সাতারপুর গ্রামের আব্দুস সালামের ছেলে।

মোহনগঞ্জ ॥ নেত্রকোনার মোহনগঞ্জে ধানবোঝাই লরি উল্টে চালক ওয়াহিদ মিয়া (৩০) নিহত হয়েছেন। ডিঙ্গাপোতা হাওর থেকে লরিবোঝাই করে ধান নিয়ে মোহনগঞ্জ ফেরার পথে শুক্রবার রাতে হাইজদা বেড়িবাঁধ এলাকায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে লরিটি উল্টে গেলে চালক নিচে চাপা পড়ে নিহত হন।

এদিকে উপজেলার তেঁতুলিয়া ইউনিয়নে সড়ক দুর্ঘটনায় ২ জন নিহত হয়েছে ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এক শিশু মারা গেছে। হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, শনিবার সন্ধ্যায় তেঁতুলিয়া ইউনিয়নের আজমপুর থেকে মোটরসাইকেলযোগে মোহনগঞ্জ আসার পথে আনছার আলী (৫৫), মোকাম্মেল (৩০) নামের দুই মোটর সাইকেল আরোহী উলাসখালী নামক স্থানে ধানবোঝাই লরির ধাক্কায় নিহত হয়েছে। অপরদিকে চিকিৎকের অবহেলায় শাকিল (৬) নামের এক শিশুর মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। সে গাগলাজুর গ্রামের শাহীন মিয়ার ছেলে।

প্রকাশিত : ১৯ এপ্রিল ২০১৫

১৯/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: