আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

নাগরিক সেবা নিশ্চিত করব ॥ নাছির দলবাজি মুক্ত রাখব ॥ মনজুর

প্রকাশিত : ১৮ এপ্রিল ২০১৫
  • দুই মেয়র প্রার্থীর অঙ্গীকার

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ ভোটের জন্য চট্টগ্রাম নগরীর অলিগলি চষে বেড়াচ্ছেন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা। চলছে নাগরিক সেবার মানোন্নয়নে প্রতিশ্রুতির বন্যা। মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা শুক্রবারও বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ চালান। মেয়র প্রার্থীরা ব্যক্ত করছেন জলাবদ্ধতামুক্ত একটি নগরী গড়ার অঙ্গীকার। আ জ ম নাছির উদ্দিন তার প্রচারে সাবেক মেয়রের ব্যর্থতার প্রসঙ্গ তুলে ধরে তাকে একবার সুযোগ দেয়ার আবেদন জানাচ্ছেন। অপরদিকে, এম মনজুর আলমের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রেখে অসমাপ্ত কাজ শেষ করার জন্য আরেকবার সুযোগ চাইছেন।

শুক্রবার বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগে আওয়ামী লীগ সমর্থিত নাগরিক কমিটির মেয়র প্রার্থী আ জ ম নাছির বলেন, দল মতের উর্ধে উঠে নাগরিক সেবা নিশ্চিত করব। নগরী ঘুরে যেসব সমস্যা চোখে পড়ছে তা সমাধানে সচেষ্ট থাকব। আর বিএনপি সমর্থিত চট্টগ্রাম উন্নয়ন আন্দোলনের প্রার্র্থী সাবেক মেয়র এম মনজুর আলম বলেন, অতীতের মতো আগামীতেও কর্পোরেশনকে দলবাজি থেকে মুক্ত রাখব। তিনি মেয়র পদের মর্যাদা ও সুনাম রক্ষায় ফের তাকে নির্বাচিত করার আহ্বান জানান।

আ জ ম নাছিরের গণসংযোগ ॥ আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী আ জ ম নাছির উদ্দীন শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টায় পাথরঘাটা মধুব্যাপারী জামে মসজিদ কবরস্থান জিয়ারত করে এলাকায় গণসংযোগ শুরু করেন। এরপর তিনি পাথরঘাটা নজুমিয়া লেইন, ব্রিকফ্রিল্ড রোড, আশরাফ আলী রোড, শামসুল হুদা মিয়া লেইন, ওমর আলী মার্কেট, ফিশারিঘাট, ইকবাল রোড, বংশাল রোড, গঙ্গাবাড়ি, জলিলগঞ্জ, মনোহরখালী, বান্ডেল রোড এলাকায় গণসংযোগ করেন। পরে তিনি টাইগারপাস কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে জুমার নামাজ আদায় করেন। জুমার নামাজের পর আমবাগান, ঝাউতলা রেলওয়ে কলোনি, ঝাউতলা বাজার, ওয়্যারলেস কলোনি, পশ্চিম খুলশী আবাসিক এলাকা, জালালাবাদ হাউসিং সোসাইটি এলাকায় গণসংযোগ করেন।

এ সময় আ জ ম নাছির উদ্দীন এলাকাবাসীর উদ্দেশে বলেন, নগরকেন্দ্রের কাছাকাছি অবস্থিত এলাকাগুলোতে নানা ধরনের সমস্যা বিরাজ করছে। যতযত্র ময়লা-আবর্জনার স্তূপ পড়ে থাকে। দুর্গন্ধের কারণে অস্বাস্থ্যকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে। এ কারণে নগরবাসী অসুস্থ হয়ে পড়ছে। গত ৫ বছরে মেয়র মনজুর আলম এ সব এলাকার খবর একবারও নেননি। অথচ, কর্পোরেশনের সুবিধা নিয়ে নিজের আখের গুছিয়েছেন। নগরবাসী দুর্ভোগের মধ্যে বসবাস করছে। এ অবস্থার পরিবর্তনের জন্য আপনারা আমাকে একবার ভোট দিন। আমি দলমতের উর্ধে উঠে নাগরিক সেবা নিশ্চিত করব। মেয়র নির্বাচিত হলে আমি এলাকায় ঘুরে ঘুরে যে সব সমস্যা দেখবো সবই সমাধান করে দেব ইনশাআল্লাহ।

গণসংযোগকালে মেয়র প্রার্থী আ জ ম নাছিরের সঙ্গে ছিলেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সাবেক মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এমপি, নগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য নুরুল ইসলাম বিএসসি, নগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ, নগর যুবলীগের আহ্বায়ক মহিউদ্দিন বাচ্চু, নগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক এ্যাডভোকেট জিয়াউদ্দিন, যুগ্ম-আহ্বায়ক মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন, এ্যাডভোকেট চন্দন বিশ্বাস, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুল হায়দার রোটন, মোহাম্মদ হোসেন হিরণ, জালাল উদ্দিন ইকবাল, মান্না বিশ্বাস, কোতোয়ালি থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মনছুরসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতারা। বিকেল ৪টায় আ জ ম নাছির খুলশী এলাকায় গণসংযোগ করেন।

সাবেক মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, আ জ ম নাছির উদ্দিন মেয়র নির্বাচিত হলে চট্টগ্রাম নগরীর চেহারা বদলে যাবে। কারণ তিনি কথা দিয়ে কথা রাখেন।

মনজুর আলমের গণসংযোগ ॥ বিএনপি সমর্থিত চট্টগ্রাম উন্নয়ন আন্দোলনের মেয়র প্রার্থী এম মনজুর আলম শুক্রবার গণসংযোগ চালান নগরীর ৩৭ নম্বর মুনিরনগর ওয়ার্ড ও হালিশহর ওয়ার্ডে। এ সময় তিনি স্থানীয় জনগণের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। গণসংযোগ ও মতবিনিময়কালে তিনি বলেন, আমার মেয়াদে চট্টগ্রাম নগরীর কি উন্নয়ন হয়েছে তা জনগণই মূল্যায়ন করবে। স্বচ্ছ জবাবদিহিতার মাধ্যমে সিটি কর্পোরেশন পরিচালনা করেছি। নগরীর প্রতিটি ওয়ার্ডে সমান উন্নয়নের চেষ্টা করেছি। কর্পোরেশনকে সন্ত্রাস, দলবাজি, দুর্নীতির উর্ধে রেখে নগরবাসীর দেয়া ভোটের মর্যাদা ও মেয়র পদের সুনাম রক্ষা করেছি।

বিগত মেয়াদে নিজের সাফল্যের বিষয়ে তিনি বলেন, নগরীর অন্যান্য ওয়ার্ডের চেয়ে অনুন্নত ছিল হালিশহর ওয়ার্ড। সাগরে জোয়ার এলেও এখানে পানি উঠে। তবে আমার দায়িত্বকালে নালা নর্দমা পরিষ্কার, খাল সংস্কার, ড্রেন নির্মাণ, পুরাতন রাস্তা সংস্কারের মাধ্যমে এর কিছুটা হলেও সমাধানের চেষ্টা করা হয়েছে। এর ফলে এখন পানি উঠলেও দ্রুত পানি নেমে যায়। সদ্য সাবেক মেয়র বলেনÑ উত্তর, দক্ষিণ ও মধ্যম হালিশহরে গত সাড়ে ৪ বছরে শুধু রাস্তা সংস্কার, ড্রেন নির্মাণ, মাটি উত্তোলন, নালা নর্দমা সংস্কারসহ ১৪২টি প্রকল্প বাস্তবায়নের মাধ্যমে ব্যাপক উন্নয়ন কাজ হয়েছে। নগরীর উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে, নগরীর একজন খাদেম হিসেবে জনগণের সেবা করতে আমি আবার মেয়র পদে দাঁড়িয়েছি। আপনাদের দোয়া ও সহযোগিতা পেলে নগরীর অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করবো। তিনি বলেন, মেয়র থাকাকালীন চট্টগ্রাম মহানগরীর ক্রীড়ার উন্নয়নেও কাজ করেছি। বাকলিয়া এলাকায় স্টেডিয়াম নির্মাণসহ সুইমিংপুল ও জিম নির্মাণ করেছি। শুক্রবার দিনভর তিনি হেঁটে হালিশহর পোর্ট কলোনি, ইস্ট কলোনি, পোর্ট কলোনি ১২নং রোড, ৩নং রোড, মুন্সিপাড়া, আদর্শপাড়া, আনন্দীপুর, চৌচালা, পোর্ট মার্কেট এলাকায় ব্যাপক গণসংযোগ করেন। পরে তিনি হালিশহর দরবার শরীফের পীর হাফেজ মনির উদ্দিন নুরুল্লাহ ও কাজী সিরাজুল মোস্তফার মাজার জেয়ারত করেন।

প্রকাশিত : ১৮ এপ্রিল ২০১৫

১৮/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: