মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

সাঈদ খোকনকে ঢাকা ভার্সিটি পরিবারের অকুণ্ঠ সমর্থন

প্রকাশিত : ১৭ এপ্রিল ২০১৫, ১২:৫০ এ. এম.

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার ॥ মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী এদেশের মানুষকে যেভাবে আগুনে পুড়িয়ে, গুলি করে মেরেছিল, বিএনপি-জামায়াত জোট কর্মসূচীর নামে ঠিক একইভাবে দেশের সাধারণ মানুষকে পুড়িয়ে মেরেছে। স্বাধীনতার ৪৪ বছর পরে এসে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হচ্ছে, সেই বিচারের রায় কার্যকর হচ্ছে। হরতাল-অবরোধের নামে সাধারণ মানুষকে পুড়িয়ে মারার বিচারও এদেশের মাটিতে হবে। আপনাদের ভোট ও আমাদের বিজয়ের মাধ্যমে সেই বিচার প্রক্রিয়ার কার্যক্রম শুরু হবে। বৃহস্পতিবার বিকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় আসন্ন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মহানগর দক্ষিণের মেয়র পদপ্রার্থী সাঈদ খোকন এসব কথা বলেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার এই মতবিনিময় সভার আয়োজন করে।

ঢাকা শহরের অবকাঠামোগত উন্নয়নের মাধ্যমে এই শহর আরও উন্নত এবং বাসযোগ্য সুন্দর শহর হিসেবে গড়ে তোলা সম্ভব উল্লেখ করে তিনি বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাই জাতির দুর্দিনে পাশে এসে দাঁড়িয়েছে এবং বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রামে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে বিজয় এনেছে। সামনে এগিয়ে যাওয়ার লড়াইয়ে এই বিশ্ববিদ্যালয়কে পাশে পেয়ে আমাদের আত্মবিশ্বাস আরও সুদৃঢ় হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক এ এস এম মাকসুদ কামালের উপস্থাপনায় সভায় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত, নির্বাচনের মুখ্য সমন্বয়ক এবং সাবেক মন্ত্রী আবদুর রাজ্জাক, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এনামুল হক শামীম, ছাত্রলীগ সভাপতি এইচ এম বদিউজ্জামান সোহাগ, বিশ্ববিদ্যালয়ের নীল দলের আহ্বায়ক অধ্যাপক নাজমা শাহীন প্রমুখ।

সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত বলেন, যারা আন্দোলনে হেরে যায়, তারা নির্বাচনেও হেরে যায়। বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া সব পরীক্ষায় ফেল করেছেন। এই নির্বাচনেও ফেল করবেন। কেন্দ্রীয় সরকারে যারা আছেন তারাই স্থানীয় সরকারে জয়ী হবে।

তিনি বিএনপির প্রার্থীদের সমালোচনা করে বলেন, বিএনপির প্রার্থীরা সবাই মামলার আসামি। তাদের যোগ্যতা নিয়ে জনসাধারণের মধ্যে প্রশ্ন রয়েছে। খালেদা জিয়া প্রার্থী খুঁজে না পেয়ে অযোগ্যদের মনোনয়ন দিয়েছেন। এদের দিয়ে আর যাই হোক জনগণের সমর্থন পাওয়া যাবে না।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সবসময়ই স্বাধীনতার পক্ষে। কিন্তু দেশকে, দেশের মানুষকে স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের বিষয়ে বিভাজনের চেষ্টা অনেক আগে থেকেই রয়েছে। স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধকে বিভাজন করা রাষ্ট্রদ্রোহের শামিল। যারা এ কাজ করছে তারা মুক্তিযুদ্ধের ত্রিশ লক্ষ শহীদের রক্তের সঙ্গে বেঈমানী করছে।

তিনি আরও বলেন, এ দেশের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে যারাই নেতৃত্ব দিতে আসবে তাদের সবাইকে স্বাধীনতার পক্ষের এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী হতে হবে। আসন্ন নির্বাচনে মহানগর দক্ষিণের মেয়র পদপ্রার্থী হিসেবে সাঈদ খোকন অত্যন্ত যোগ্য। তিনি তার পিতার মতো স্বাধীনতার সপক্ষের চেতনাকে ধারণ করে কাজ করে যাচ্ছেন। তার প্রতি আমাদের সবার অকুণ্ঠ সমর্থন রয়েছে।

প্রকাশিত : ১৭ এপ্রিল ২০১৫, ১২:৫০ এ. এম.

১৭/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: