মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

উচ্চাভিলাষী নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করলেন তাবিথ

প্রকাশিত : ১৭ এপ্রিল ২০১৫
  • ১২ দফায় নেই বস্তিবাসীদের কথা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সমাজের বিত্তশালীদের দিকে তাকিয়ে উচ্চাভিলাষী নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের বিএনপি দলীয় মেয়রপ্রার্থী তাবিথ আউয়াল। তার ১২ দফা ইশতেহারের কোথাও নগরীর বস্তিবাসীদের ভাগ্য উন্নয়নের কথা নেই। এ ছাড়া ১২ দফা ইশতেহারের ৮৩ প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের জন্য কিভাবে আয় বাড়ানো হবে তার দিকনির্দেশনাও তিনি দেননি। তবে নির্বাচিত হলে তিনি ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন এলাকাকে বাসযোগ্য ও আন্তর্জাতিক মানের আধুনিক মহানগর হিসেবে গড়ে তোলার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর তেজগাঁও-গুলশান লিংক রোডে রেগনাম টাওয়ারে নিজের নির্বাচনী প্রচারের প্রধান কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তাবিথ আউয়াল ইশতেহার ঘোষণা করেন।

নতুন প্রজন্ম, নতুন ঢাকা সেøাগান সামনে রেখে ইশতেহারে তাবিথ আউয়াল ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনে নগরবাসীর সেবার মান উন্নয়নে যে ১২ দফা ইশতেহার ঘোষণা করেন। তার মধ্যে রয়েছে- খাদ্য, বাসস্থান, চিকিৎসা, শিক্ষা যানজট নিরসন ও যানবাহন সুবিধা, নগর পরিবেশ ব্যবস্থাপনা ও টেকসই উন্নয়ন, সামাজিক উন্নয়ন ও ব্যবস্থাপনা, আমোদ-প্রমোদ, চিত্তবিনোদন ও জনস্বাস্থ্য, ডিজিটাল সেবা, জননিরাপত্তা, প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলা ও নগর প্রশাসন ঢেলে সাজানো। এই ১২ দফা ইশতেহারে তিনি নগরবাসীর সেবার মান উন্নয়নে ৮৩ প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণার সময় মঞ্চে তাবিথ আউয়ালের সঙ্গে ছিলেন বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য ও ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে দলের প্রধান সমন্বয়ক ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, আদর্শ ঢাকা আন্দোলনের আহ্বায়ক এমাজউদ্দীন আহমদ, সদস্য সচিব ও বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা শওকত মাহমুদ। দর্শকসারিতে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, আলতাফ হোসেন চৌধুরী, বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য শামা ওবায়েদ, তাবিথ আউয়ালের মা নাসরিন আউয়াল, স্ত্রী সওসান ইস্কান্দার, ভাই তাফসির আউয়াল প্রমুখ।

এক প্রশ্নের জবাবে তাবিথ আউয়াল বলেন, মেয়র নির্বাচিত হলে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকারের সঙ্গে সমন্বয় রেখে কাজ করবেন। আমি একটি দল থেকে নির্বাচন করলেও জনগণের মেয়র হব। তাই সরকারের সহযোগিতা চাব এবং অবশ্যই সরকারের সহযোগিতা পাব। ব্যবসায়ী হিসেবে অভিজ্ঞতা থেকে বুঝেছি, আয় বাড়ানোর সুযোগ রয়েছে সিটিতে। সে সুযোগটি কাজে লাগাব। নগরীর ৩০ ভাগ মানুষ বস্তিবাসী। এই বস্তিবাসীদের জন্য ইশতেহারে কোন দিকনির্দেশনা নেই কেনÑ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, কাউকেই আমরা বিচ্ছিন্ন করে দেখতে চাই না। এখানে যাঁরা আছেন তাঁরা সবাই সমান সুযোগ-সুবিধা নিয়ে বাস করবেন।

নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণার আগে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, তাবিথের পরিবারের সঙ্গে আমার সম্পর্ক ৪০ বছরের। তাবিথ সৎ ও মেধাবী রাজনীতিবিদ। সে মেয়র নির্বাচিত হলে পরিচ্ছন্ন ও আধুনিক ঢাকা গড়ে তুলতে পারবে। আমরা তার মাধ্যমে দুর্নীতিমুক্ত রাজধানী প্রশাসন চাই। এই নির্বাচনের মাধ্যমে রাজধানীবাসী নীরব ব্যালট বিপ্লব ঘটাবে। আশা করি তার বিজয়ের মধ্য দিয়ে বিএনপির আন্দোলন আরও বেগবান হবে।

তাবিথের ইশতেহার ঘোষণার পর আদর্শ ঢাকা আন্দোলনের আহ্বায়ক অধ্যাপক এমাজউদ্দীন আহমদ বলেন, তাবিথ তরুণ ও উচ্চশিক্ষিত প্রার্থী। ৩০ বছরের নিচে যাদের বয়স সেই ভোটারদের পছন্দের হবেন তাবিথ। তাই তরুণদের প্রতি আহ্বান তাবিথ আউয়ালকে ভোট দিয়ে ৪০০ বছরের পুরনো শহর ঢাকার উন্নয়ন নিশ্চিত করুন। নগরীর উন্নয়নে বিদেশের উদাহরণ তুলে ধরে তাবিথ আউয়াল বলেন, জাপানের মতো ‘নগরকৃষি’ ব্যবস্থা চালু করা হবে। পথচারীদের সহজে বিভিন্ন স্থানে চলাচলের জন্য মুম্বাইয়ের মতো স্কাই ওয়াক চালু করা হবে। এ ছাড়া বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মতো কৃষক ও ভোক্তাদের সুবিধার্থে নাইট মার্কেট বা কৃষক মার্কেট স্থাপন করা হবে।

প্রকাশিত : ১৭ এপ্রিল ২০১৫

১৭/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: