মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

হাইকোর্টের রুলের রায়ের তারিখ ২০ এপ্রিল

প্রকাশিত : ১৬ এপ্রিল ২০১৫
  • সালাহউদ্দিন নিখোঁজ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সালাহউদ্দিন আহমেদকে খুঁজে বের করে হাজির করার নির্দেশ সংক্রান্ত হাইকোর্টের রুলের রায়ের দিন পিছিয়ে আগামী ২০ এপ্রিল পুনর্নির্ধারণ করেছে হাইকোর্ট। বুধবার এ মামলার রায় ঘোষণার কথা থাকলেও আবেদনকারীর আইনজীবী সময় চাওয়ায় আগামী সোমবার রায় ঘোষণার নতুন দিন ঠিক করে আদালত। বিচারপতি কামরুল ইসলাম সিদ্দিকী ও বিচারপতি গোবিন্দ চন্দ্র ঠাকুরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ গত ৯ এপ্রিল শুনানি শেষে বুধবার রায়ের দিন রেখেছিলেন।

আবেদনকারীর আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন বুধবার আদালতে বলেন, নতুন কিছু তথ্যপ্রমাণ আদালতে উপস্থাপনের জন্য সময় চান তাঁরা। সালাহ উদ্দিনের স্ত্রী হাসিনা আহমেদের অভিযোগ, গত ১০ মার্চ রাতে উত্তরার একটি বাসা থেকে তার স্বামীকে তুলে নিয়ে যায় গোয়েন্দা পুলিশের সদস্যরা। ‘নিখোঁজ’ হওয়ার আগে ফোন করে তাকে বিষয়টি জানানোরও চেষ্টা করেন এই বিএনপি নেতা। স্বামীর খোঁজ চেয়ে পরদিন রাতে গুলশান থানা ও উত্তরা থানায় জিডি করতে চাইলেও পুলিশ তা নেয়নি বলে অভিযোগ করেন হাসিনা।

এরপর তিনি হাইকোর্টে গেলে আদালত রুল জারি করে। সালাহউদ্দিনকে কেন খুঁজে বের করে আদালতে হাজিরের নির্দেশ দেয়া হবে না- সরকারকে তা ১৫ মার্চের মধ্যে জানাতে বলা হয়। পরে গত ১৫ মার্চ এ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর পাঁচটি প্রতিবেদন ও দুটি পুলিশ ডায়েরি আদালতে উপস্থাপন করেন। সালাহউদ্দিনের আইনজীবীদের আবেদনে এ্যাটর্নি জেনারেল এসব প্রতিবেদনের সত্যায়িত অনুলিপিও জমা দেন।

উপস্থাপিত তথ্যে দেখা যায়, যে বাসা থেকে সালাহউদ্দিন আহমেদকে ‘তুলে নেয়ার’ অভিযোগ করেছে পরিবার, সেখানে খুঁজে এসে রায়হান নামে এক ব্যক্তির অবস্থান ও চলে যাওয়ার তথ্য পাওয়ার কথা বলেছে পুলিশ। বিভিন্ন বাহিনীর পক্ষ থেকে আদালতে যে প্রতিবেদন পাঠানো হয় তাতে বলা হয়, পুলিশের কোন শাখা এই বিএনপি নেতাকে আটক বা গ্রেফতার করেনি। তার কোন খোঁজও তারা পায়নি। স্বামীর খোঁজে প্রধানমন্ত্রীর কাছেও দুই দফা স্মারকলিপি দিয়েছেন সালাহউদ্দিনের স্ত্রী। প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাতও চেয়েছেন তিনি।

প্রকাশিত : ১৬ এপ্রিল ২০১৫

১৬/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: