কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

বহু নায়কের নায়িকা...

প্রকাশিত : ১৬ এপ্রিল ২০১৫

মূল ফিচার

বাংলাদেশে পপি একজনই। এই পপি সিনেমার পপি, এই পপি তাঁর মনোমুগ্ধকর অভিনয়ের জন্য তিনবার পেয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। এই বিবেচনায় তাঁর সমকক্ষদের চেয়ে তিনি এগিয়ে রয়েছেন। তবে চলচ্চিত্রে অভিনয়ের প্রতিযোগিতার দৌড়ে পপি একটু পিছিয়েই রয়েছেন। কিন্তু কেন? এর ব্যাখ্যা দিলেন পপি নিজেই। পপি বলেন, ‘এখন আমার কাছে যেসব চলচ্চিত্রে কাজ করার জন্য অফার আসে বেশির ভাগেরই গল্প ভাল লাগে না। তাছাড়া গল্প ভাল লাগলেও চলচ্চিত্রটি নির্মাণের বাজেট থেকে শুরু করে আমার পারিশ্রমিকও এমন বলে যে কাজ করার আগ্রহই থাকে না। যদি এমনই হয় অবস্থা তাহলে কিভাবে কাজ করব!’ পপি শুধু এই বিষয়ই নয় আরও বেশকিছু বিষয় তুলে ধরেছেন। পপি বলেন, এখন সিনেমার নামে টেলিফিল্ম নির্মিত হচ্ছে। এই ধারা অব্যাহত থাকলে এবং এর দিকে সরকারের বিশেষ দৃষ্টি না থাকলে আমাদের চলচ্চিত্র শিল্প সত্যিই ধ্বংস হয়ে যাবে। তাই এই শিল্পকে বাঁচাতে হলে খুব দ্রুতই যারা মনেপ্রাণে সিনেমাপ্রেমী মানুষ তাদের দিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণ করানো উচিত। পপি অভিনীত সর্বশেষ চলচ্চিত্র ছিল জাকির খান পরিচালিত ‘চার অক্ষরে ভালোবাসা’। এতে তার বিপরীতে ছিলেন ফেরদৌস ও নীরব। নতুন বছরে এখনও কোন নতুন চলচ্চিত্রে অভিনয় শুরু করেননি পপি। তবে তিনি জানান ‘প্রতিশোধ’ নামের নতুন একটি চলচ্চিত্রে কাজ শুরু করবেন। তবে আপাতত চলচ্চিত্রটির পরিচালক এবং প্রযোজনা সংস্থার নাম বলতে চাচ্ছেন না। সময় হলেই সবকিছুর জানান দেবেন তিনি। এদিকে আসছে ঈদ উপলক্ষে ‘লাইম লাইট’ এ্যান্টারটেইনম্যান্টের ব্যানারে পপি এক বছর পর চিত্রনায়ক আমিন খানের সঙ্গে জুটিবদ্ধ হয়ে অভিনয় করেছেন একটি টেলিফিল্মে। নাম ‘লাভ স্পীড’। এটি রচনা করেছেন শারমিন চৌধুরী ইপশিতা এবং নির্দেশনা দিয়েছেন জিএম সৈকত। গত সপ্তাহে এর শূটং সম্পন্ন হয়েছে রাজধানীর উত্তরার একটি শূটিং হাউসে। প্রয়াত দীলিপ সোম পরিচালিত ‘তোমার জন্য ভালোবাসা’ চলচ্চিত্রে প্রথমবারের মতো জুটিবদ্ধ হয়ে অভিনয় করেন চিত্রনায়ক আমিন খান ও চিত্রনায়িকা পপি। এরপর তারা দু’জন ‘দুই ভাইয়ের যুদ্ধ’, ‘লুটপাট’সহ আরও বেশকিছু চলচ্চিত্রে একসঙ্গে জুটিবদ্ধ হয়ে অভিনয় করেছেন। ‘লাভ স্পিড’ টেলিফিল্মে আমিন খান ও পপি জুটিবদ্ধ হয়ে অভিনয় করেছেন। একবছর পর। পরিচালক জিএম সৈকত জানান, ‘মূলত ভালবাসাকে উপজীব্য করেই লাভ স্পীড টেলিফিল্মের গল্প এগিয়ে যায়। গল্পের প্রয়োজনেই আমিন খান ও পপিকে নিয়ে কাজ করা।’ এতে অভিনয় প্রসঙ্গে আমিন খান বলেন, ‘বলা যায় বেশ কিছুদিন বিরতির পর ছোটপর্দায় কাজ করছি। সত্যি বলতে কী এখন সব গল্পই প্রায় একই রকম। একটু ভিন্ন ধরনের গল্প পাওয়াই যায় না। ইপশিতার লেখা এই টেলিফিল্মের গল্পটা একটু অন্যরকম। তাই কাজটি করছি। আর পপি এমনই একজন নায়িকা যাকে শুধু পর্দাতেই নয় পর্দার বাইরেও তাকে নায়িকাই মনে হয়। বেশ কিছুদিন পর তার সঙ্গে কাজ করছি, বেশ ভাল লাগছে।’ সাদিকা পারভীন পপি বলেন, ‘আমিন ভাই আর আমি একই এলাকার মানুষ। তাই তার সঙ্গে ব্যক্তিগত সম্পর্কটা অনেক ভাল। আমিন ভাই একজন মানুষ হিসেবে যেমন অসাধারণ ঠিক তেমনি শিল্পী হিসেবেও খুবই কো-অপারেটিভ। জিএম সৈকতের নির্দেশনায় প্রথম কাজ করছি। আশা করি কাজটি অনেক ভাল হবে। ইপশিতার গল্প বলার ধরন আমার খুব ভাল লেগেছে। মূলত তার লেখা পড়েই মুগ্ধ হয়ে আমি কাজটি করেছি। ’ আসছে ঈদে একটি স্যাটেলাইট চ্যানেলে প্রচারের লক্ষ্যে ‘লাভ স্পীড’ টেলিফিল্মটি নির্মিত হচ্ছে। এদিকে গত বছর ঈদ উল ফিতরে আমিন খান ও পপি বেলাল উদ্দিন শুভর নির্দেশনায় একটি নাটকে কাজ করেছিলেন। চিত্রনায়িকা পপি কালাম কায়সারের ‘কারাগার’, নারগিস আক্তারের ‘মেঘের কোলে রোদ’ এবং সৈয়দ ওয়াহিদুজ্জামান ডায়ম- পরিচালিত ‘গঙ্গাযাত্রা’তে অভিনয়ের জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান। ১০ সেপ্টেম্বর জন্ম নেয়া পপি মনতাজুর রহমান আকবর পরিচালিত ‘কুলি’ চলচ্চিত্রে চিত্রনায়ক ওমর সানীর সঙ্গে জুটিবদ্ধ হয়ে চলচ্চিত্রে নিজের অভিষেক ঘটান। চিত্রনায়ক রিয়াজের বিপরীতে তিনি প্রথম অভিনয় করেন প্রয়াত পরিচালক মহম্মদ হাননান পরিচালিত ‘বিদ্রোহ চারিদিকে’ চলচ্চিত্রে। এই সময়ের শীর্ষ নায়ক শাকিব খানের সঙ্গে পপি প্রথম অভিনয় করেন আবু সাঈদ খানের নির্দেশনায় ‘দু’জন দু’জনার’ চলচ্চিত্রে। চিত্রনায়ক অমিত হাসানের সঙ্গে প্রথম জুটি বেঁধে অভিনয় করেন প্রয়াত শিবলী সাদিক পরিচালিত ‘অনেকদিনের আশা’ চলচ্চিত্রে। তবে জুটি হিসেবে পপি সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়তা পান শাকিল খানের সঙ্গে জুটি বেঁধে। তারা প্রথম জুটিবদ্ধ হয়ে অভিনয় করেন সোহানুর রহমান সোহান পরিচালিত ‘আমার ঘর আমার বেহেস্ত’ চলচ্চিত্রে। চিত্রনায়ক রুবেলের বিপরীতে পপি প্রথম অভিনয় করেন শহীদুল ইসলাম খোকনের ‘চারিদিকে শত্রু’ চলচ্চিত্রে। ইলিয়াস কাঞ্চনের সঙ্গে প্রথম জুটিবদ্ধ হয়ে অভিনয় করেন শওকত জামিলের ‘দরদী সন্তান’ চলচ্চিত্রে। ফেরদৌসের সঙ্গে প্রথম অভিনয় করেন কালাম কায়সারের ‘কারাগার’ চলচ্চিত্রে। ইমনের সঙ্গে জুটি বাঁধেন জি সরকারের ‘গার্মেন্টস কন্যা’ চলচ্চিত্রে। হারিয়ে যাওয়া নায়ক ফারদিনের সঙ্গে জুটি বাঁধের মাসুদ পারভেজ পরিচালিত ‘ভালোবাসার মূল্য কতো’ চলচ্চিত্রে। প্রয়াত নায়ক মান্নার সঙ্গে প্রথম জুটিবদ্ধ হয়ে অভিনয় করেন পপি রায়হান মুজিবের ‘গরীবের দাদা’ চলচ্চিত্রে। খুব কাছাকাছি সময়ে তারা দু’জন আবারো অভিনয় করেন মনতাজুর রহমান আকবরের ‘কে আমার বাবা’ চলচ্চিত্রে। দুটি চলচ্চিত্রের ব্যবসায়িক সফলতা বিবেচনা করে নায়ক মান্না তার নিজের প্রযোজনা সংস্থা থেকে পপির সঙ্গে জুটি বেঁধে নির্মাণ করেন মালেক আফসারী ‘লাল বাদশা’। বাংলাদেশের একটি সময়ের জনপ্রিয় সব নায়কের বিপরীতেই অভিনয় করেছেন পপি। তবে আফসোস রয়ে গেছে তার সালমান শাহর সঙ্গে অভিনয় করার সুযোগ পেয়েও শেষ পর্যন্ত করতে না পেরে। তাইতো প্রিয় নায়কের কোন গান কিংবা সিনেমা টিভিতে প্রদর্শিত হলে এখনও দেখার লোভ সামলাতে পারেন না পপি।

ছবি : গোলাম সাব্বির ও আরিফ আহমেদ

প্রকাশিত : ১৬ এপ্রিল ২০১৫

১৬/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: