মূলত মেঘলা, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
২১ ফেব্রুয়ারী ২০১৭, ৯ ফাল্গুন ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

কৃষি পণ্যের মান নিয়ন্ত্রণের তাগিদ

প্রকাশিত : ১২ এপ্রিল ২০১৫

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ কৃষি খাতে উৎপাদিত পণ্যের মান নিয়ন্ত্রণে গুরুত্বারোপ করেছেন বিশেষজ্ঞরা। তারা বলছেন, মান উন্নয়নে সংশ্লিষ্ট খাতের শ্রমিকদের অভিজ্ঞতা ও দক্ষতাই যথেষ্ট নয়। ভাল ফসল উৎপাদনে মাটি ও এর উপাদানগুলোর গুণাগুণের যথেষ্ট ভূমিকা রয়েছে। এ বিষয়টি নিশ্চিত করতে পারলে বাংলাদেশের মানুষের স্বাস্থ্যেরও সুরক্ষা হবে।

শনিবার কৃষিপণ্যের মান উন্নয়ন শীর্ষক সেমিনারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন। রাজধানীর একটি মিলনায়তনে বাংলাদেশ এ্যাগ্রো-প্রসেসরস এ্যাসোসিয়েশন (বাপা) ও এ্যাগ্রো-প্রোডাক্টস বিজনেস প্রমোশন কাউন্সিল (এপিবিপিসি) যৌথভাবে সেমিনারটির আয়োজন করে। বাপা’র সিনিয়র সহসভাপতি মোহাম্মদ সাহাবুদ্দিনের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন কোষাধ্যক্ষ্য মোঃ ইকতাদুল হক, সাধারণ সম্পাদক রাজু আহমেদ, উপদেষ্টা মোঃ মোসলেম আলী।

অনুষ্ঠানের মূল পর্বে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন এসজিএস বাংলাদেশ লিমিটেডের সিনিয়ন এ্যাসিস্ট্যান্ট ম্যানেজার আনিসুর রহমান, স্কয়ার ফুড এ্যান্ড বেভারেজের কর্মকর্তা খুরশীদ আহমেদ ফাহাদ। সেমিনারে কৃষি প্রকিয়াকরণে সংশ্লিষ্ট প্রায় ৪০ জন কর্মকর্তা অংশ নেন।

বাপা’র সিনিয়র সহসভাপতি মোহাম্মদ সাহাবুদ্দিন বলেন, কৃষি পণ্যের বিপণনে গুণগত মান উন্নয়ন প্রয়োজন। তবে ছোট উদ্যোক্তাদের জন্য বিষয়টি বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। বড় উদ্যোক্তাদের অভিজ্ঞ ও দক্ষ জনশক্তি রয়েছে। তবে উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করতে না পারলে এ বিষয়টিও যথেষ্ট নয়। সেমিনারে ইকতাদুল হক জানান, ইউরোপে বাংলাদেশ থেকে লেবু, পান, করল্লা ও কাকরোল রফতানির সম্ভাবনা রয়েছে। ক্ষতিকারক উপাদান থাকায় ইউরোপের দেশগুলো সাত বছর ধরে এসব কৃষিপণ্য আমদানি নিষিদ্ধ রেখেছে। কৃষিপণ্য উৎপাদনকারী, প্রক্রিয়ার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট বা রফতানিকারকরা এতে দায়ী নন। মূলত জমির সমস্যার কারণে এসব কৃষিপণ্য নিষিদ্ধ হয়েছে। এ শিল্পকে টিকিয়ে রাখতে হলে প্রাকৃতিক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় পর্যাপ্ত প্রস্তুতি নেয়া প্রয়োজন।

প্রকাশিত : ১২ এপ্রিল ২০১৫

১২/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

অর্থ বাণিজ্য



ব্রেকিং নিউজ: