আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

মৃত্যুবরণ করলেন অসি কিংবদন্তি রিচি বেনো

প্রকাশিত : ১১ এপ্রিল ২০১৫
মৃত্যুবরণ করলেন অসি কিংবদন্তি রিচি বেনো
  • থেমে গেল ‘ক্রিকেটের কণ্ঠস্বর’

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ মৃত্যু আসে বিধাতার নিয়মে। ‘জন্মিলে মরিতে হয়’Ñ এটাই স্বাভাবিক। তবে মাঝে মধ্যে কিছু মৃত্যু নাড়িয়ে দেয় বিশ্ব বিবেক। রিচি বেনো তেমনই একজন। সিডনিতে ৯ এপ্রিল মৃত্যুকে আলিঙ্গনের সময় তার বয়স হয়েছিল ৮৪ বছর ১৮৫ দিন। ১৯৬৪ সালে ক্রিকেট ছাড়ার পর একাধারে লেখক, কলামিস্ট ও ধারাভাষ্যকার হিসেবে সুনাম কুড়ান সাবেক অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক। বহুগুণে গুণান্বিত বোনো ছিলেন ক্রিকেটের সত্যিকারের দূত, অনুপম ধারা বর্ণনায় আধুনিক ক্রিকেটের এক ‘অপার কণ্ঠস্বর।’

১৯৫২-১৯৬৪ পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ৬৩ টেস্ট ও ২৫৯ প্রথমশ্রেণীর ম্যাচ খেলেন অলরাউন্ডার বেনো। টেস্টে ২৪৮ উইকেট নেয়ার পাশাপাশি ব্যাট হাতে করেন ২২০১ রান। ক্রিকেটে লেগস্পিনের অন্যতম প্রবক্তা ভাবা হয় তাকেই। সিডনিতে ১৯৬৪-এর ১২ ফেব্রুয়ারি দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে জীবনের শেষ টেস্ট খেলেন। বেনোর জীবনের নতুন অধ্যায়ের শুরু এরপরই। একাধারে সাংবাদিকতা, লেখালেখি ও ধারাভাষ্যের জন্য জীবদ্দশাতেই ভক্তরা তাকে ‘ভয়েস অব ক্রিকেট’ নামে ডাকেন। ক্রিকেটে এমন প্রতিভা সত্যি বিরল।

গত বছর সিডনিতে এক গাড়ি দুর্ঘটনা থেকে প্রাণে বেঁচে যাওয়া কিংবদন্তি অসি ক্রিকেটার কয়েক বছর ধরে ত্বকের ক্যান্সারে ভুগছিলেন। বৃহস্পতিবার রাতে সিডনিতে নিজ বাসভবনে মৃত্যুবরণ করেন রিচার্ড বোনো, সংক্ষেপে রিচি বেনো নামেই বেশি পরিচিত। গর্বের অসি জার্সিতে ৬৩ টেস্ট খেলা বেনো দেশকে ২৮ টেস্টে নেতৃত্ব দেন। তার অধিনায়কত্বে অস্ট্রেলিয়া কখনই হারেনি! ষাটের দশকে ‘স্পিন-অলরাউন্ডার’ হিসেবে তিনিই ছিলেন ‘নাম্বার ওয়ান।’ ইতিহাসের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে টেস্টে ২০০ উইকেট ও ২ হাজার রানের ‘ডাবল’ অর্জন করেন বেনো।

ক্রিকেট ছাড়ার পর সাংবাদিকতা ও ধারাভষ্যকার হিসেবে নতুন ইনিংস শুরু করেন। মজার বিষয়, সাফল্যে সেখানে ক্রিকেট মাঠের জনপ্রিয়তাকেও যেন ছাপিয়ে যান। তিন বছর পর যুক্ত হন টেলিভিশনের সঙ্গে। ১৯৭৭-২০১৩ সাল পর্যন্ত ছিলেন অস্ট্রেলিয়ার ‘চ্যানেল নাইন’ এর প্রধান ধারাভাষ্যকার ও অন্যতম নির্বাহী পরামর্শক। বলা যায়, তার কণ্ঠে ভর করেই বিশ্ব ক্রিকেটে ব্যাপক পরিচিতি পায় ‘চ্যানেল নাইন’। ২০১৩ সালে এক গাড়ি দুর্ঘটনায় পরে প্রাণে বেঁচে গেলেও ছাড়তে হয় মাইক্রোফোন, ধরা পড়ে ত্বকের ক্যান্সার। সব মিলিয়ে তিন বছরেরও কম সময়ে অদম্য সেই বেনোই হয়ে পড়েন ম্রিয়মান। বৃহস্পতিবার ঈশ্বরের ডাকে সাড়া দিয়ে পাড়ি জমালেন পরপারে।

‘একজন চ্যাম্পিয়নকে হারাল অস্ট্রেলিয়া।’ বেনোকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় সমাহিত করার ঘোষণা দিয়ে নিজের টুইটারে লেখেন অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী টনি এ্যাবট।

প্রকাশিত : ১১ এপ্রিল ২০১৫

১১/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: